www.kishoreganjnews.com

চারিগ্রামে সংঘর্ষে নিহতদের পরিবারের পাশে এমপি তৌফিক



[ স্টাফ রিপোর্টার | ১০ নভেম্বর ২০১৭, শুক্রবার, ৫:৩৯ | কিশোরগঞ্জ ]


মিঠামইনে জলমহালে পাটিবাঁধ দেয়াকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে তিন সহোদরসহ পাঁচজন নিহত হওয়ার ঘটনায় শোকে স্তব্ধ উপজেলার প্রত্যন্ত হাওরের গ্রাম চারিগ্রাম। নিহতের স্বজনদের আর্তনাদ আর আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠেছে এলাকার পরিবেশ। পুরুষশূণ্য গ্রামটিতে মোতায়েন রয়েছে বিপুল সংখ্যক পুলিশ। শুক্রবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে নিহতদের পরিবারকে সান্ত¦না দিতে গিয়ে ভাষাহীন হয়ে পড়েন স্থানীয় সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক।

এদিকে সংঘর্ষে হতাহতের এই ঘটনায় শুক্রবার বিকাল পর্যন্ত কোন পক্ষই থানায় মামলা করেনি। বিকালে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে নিহত পাঁচজনের লাশের ময়নাতদন্ত শেষে বাড়িতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছিল।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জলমহালের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে বিরোধে চারিগ্রাম টাগুরিয়া গ্রামের সোলেমান ভূঁইয়া ও মারুফ খানের পক্ষের সঙ্গে খাসসিংহা গ্রামের পল্লব ও মাসুম পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে এক পক্ষের তিন সহোদর ফরদিস মিয়া (৫০), মাখন মিয়া (৪০) ও মাসুম মিয়া (৩৫) এবং প্রতিপরে রাজীব মিয়া (২৫) ও মকবুল মিয়া (২৫) নিহত হয়। নিহতদের মধ্যে তিন সহোদর ফরদিস মিয়া, মাখন মিয়া ও মাসুম মিয়া চারিগ্রাম খাসসিংহা গ্রামের মৃত আবদুল আজিজের ছেলে এবং রাজীব মিয়া চারিগ্রাম পশ্চিমপাড়ার মো. সুজন মিয়ার ছেলে ও মকবুল মিয়া পার্শ্ববর্তী ঢাকী পূর্বপাড়ার মৃত আইয়ুব রাজার ছেলে।

এছাড়া নিহত ফরদিস মিয়ার পুত্র রিফাকুল ইসলাম (২৮) কে মুমূর্ষু অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাতে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল থেকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। উভয়পক্ষের মধ্যে এই সংঘর্ষে আরো অন্তত ৪০জন আহত হয়।

ঘটনার খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে ঘটনাস্থলে ছুটে যান কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. আজিমুদ্দিন বিশ্বাস, পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন খান পিপিএমসহ জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তাগণ।

শুক্রবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক। এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাজমুল ইসলাম, মিঠামইন থানার ওসি মো. আলমগীর হোসেন, জেলা পরিষদ সদস্য ও মিঠামইন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সমীর কুমার বৈষ্ণব, মিঠামইন সদর ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ কামাল, ঢাকী ইউপি চেয়ারম্যান মো. মুজিবুর রহমান, ঢাকী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শফিকুল ইসলাম এমপি তৌফিকের সঙ্গে ছিলেন।

রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক নিহত পাঁচজনের বাড়িতে গিয়ে নিহতদের পরিবারকে সান্ত¦না দেন। এ সময় এমপিকে কাছে পেয়ে নিহতদের পরিবার ও স্বজনেরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তাদের আহাজারিতে হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়।

সংঘটিত এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার তাগিদ দেন।

মিঠামইন থানার ওসি মো. আলমগীর হোসেন জানান, এ ঘটনায় কোন পক্ষই এখন পর্যন্ত থানায় মামলা করেনি। এ ঘটনায় কেউ আটক বা গ্রেপ্তারও নেই। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এছাড়া পুনরায় সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে আরো পড়তে পারেন: মিঠামইনে জলমহাল বিরোধে তিন ভাইসহ নিহত পাঁচ



[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর



















প্রধান সম্পাদক: আশরাফুল ইসলাম

সম্পাদক: সিম্মী আহাম্মেদ

সেগুনবাগিচা, গৌরাঙ্গবাজার

কিশোরগঞ্জ-২৩০০

মোবাইল: +৮৮০ ১৮১৯ ৮৯১০৮৮

ইমেইল: kishoreganjnews247@gmail.com

©All rights reserve www.kishoreganjnews.com