কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


বিশ্ব সেরার লড়াইয়ে অংশ নিতে মিশর যাচ্ছেন কিশোরগঞ্জের হাফেজ মোহাম্মদ আলী


 স্টাফ রিপোর্টার | ২২ জুলাই ২০১৮, রবিবার, ৫:২০ | ইসলাম 


কোরআন তেলাওয়াতে দেশ সেরা কিশোরগঞ্জের হাফেজ মোহাম্মদ আলী এবার বিশ্ব সেরার লড়াইয়ে অংশ নিতে মিশর যাচ্ছেন। আগামী ২৭শে জুলাই মিশরের রাজধানী কায়রোতে অবস্থিত বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ইসলামিক ইউনিভার্সিটি আল-আযহার ইউনিভার্সিটিতে আন্তর্জাতিক পর্যায়ের কোরআন তেলাওয়াত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার জন্যে আগামী ২৫শে জুলাই মিশরের উদ্দেশ্যে রওনা হবেন কোরআন তেলাওয়াতে দেশ সেরা হাফেজ মোহাম্মদ আলী। বিশ্ব সেরার এই লড়াইয়েও তিনি যেন সেরা হয়ে দেশ ও জাতির মুখ উজ্জ্বল করতে পারে, এজন্যে সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

অনন্য প্রতিভাবান হাফেজ মোহাম্মদ আলী কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার সুখিয়া ইউনিয়নের কাওয়ালীকান্দা গ্রামের প্রান্তিক কৃষক আবু বকর সিদ্দিক ও গৃহিণী রিনা বেগমের মেজো ছেলে। তিনি হোসেনপুর উপজেলার চরপুমদী আহমাদু জুবায়দা দাখিল মাদরাসার ৮ম শ্রেণির ছাত্র।

জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৮ উপলক্ষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের আয়োজনে গত ১৫ই মে অনুষ্ঠিত জাতীয় পর্যায়ের কোরআন তেলাওয়াত প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে দেশ সেরা হওয়ার গৌরব অর্জন করেন হাফেজ মোহাম্মদ আলী। আর এর মাধ্যমে তিনি আন্তর্জাতিক পর্যায়ের কোরআন তেলাওয়াত প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার সুযোগ লাভ করেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, হাফেজ মোহাম্মদ আলী আহমাদু জুবায়দা ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসার ৮ম শ্রেণির একজন মেধাবী ছাত্র। ছোট বেলা থেকে কোরআন তেলাওয়াত এবং ইসলামী সংগীতের প্রতি তিনি আসক্ত ছিলেন। এমন কি এই বয়সেই বিভিন্ন ইসলামিক অনুষ্ঠানে কোরআন তেলাওয়াত ও ইসলামী সংগীত এবং ওয়াজ করে থাকেন তিনি। বয়সে ছোট হলেও তার আশা অনেক বড়। বড় হয়ে অনেক বড় আলেম বা বক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখেন তিনি।

কোরআন শিক্ষার প্রতি আসক্ত হয়ে মাত্র ৬ বছর বয়সেই স্থানীয় কাওয়ালীকান্দা ঠুটারজঙ্গল ‘খানক্বায়ে চিশতিয়া সাবেরীয়া সিদ্দিকিয়া হাফিজিয়া মাদরাসা’র নূরানি শাখায় ভর্তি হন মোহাম্মদ আলী। সেখানে এক বছর নূরানি ও নাযারা পড়ার পর হিফজ বিভাগে উত্তীর্ণ হয়ে তিন বছরে ২৫ পারা কোরআন মুখস্ত করেন। তারপরই পুরো কোরআন তেলাওয়াত শুনাতে গ্রামের বাড়ীর মাদরাসা থেকে সনদপত্র নিয়ে ভর্তি হন নারায়ণগঞ্জ জেলার জামি'আ আরাবিয়া দারুল উলূম দেওভোগ মাদরাসায়। দীর্ঘ ৭ মাস কোরআন তেলাওয়াত শুনানোর পর শারীরিক অসুস্থতার জন্যে নিজ বাড়িতে ফিরে আসেন এবং হোসেনপুর উপজেলার সিদলা গ্রামের ‘দারুল হেদায়াত কওমি মাদরাসা’য় বিশেষ জামাতে ভর্তি হন। পাশাপাশি উত্তরপুমদী ‘ইলাহি জামে মসজিদ’ এর ইমামের দায়িত্ব পালন করেন। সাধারণ শিক্ষা গ্রহণ করার ইচ্ছা থেকে তিনি চরপুমদী ‘আহমাদু জুবায়দা ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসা’য় এ বছর ৮ম শ্রেণিতে ভর্তি হন।

প্রান্তিক কৃষক আবু বকর সিদ্দিক ও গৃহিণী রিনা বেগমের ৫ ছেলে ও ৪ মেয়ের মধ্যে মোহাম্মদ আলী ২য় ছেলে। হাফেজ মোহাম্মদ আলীর ভাই-বোনদের মধ্যে কেউ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, মাধ্যমিক, প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি এবং স্থানীয় হাফিজিয়া মাদরাসায় হিফজ বিভাগে পড়া-লেখা করছে। গোবরে পদ্মফুল হয়ে ফোটা ভাই-বোনদের নিদারুণ অভাব আর কষ্টকে সঙ্গী করে পড়ালেখা চালাতে হচ্ছে।

এরকম পরিস্থিতিতে ভাগ্যের উজ্জ্বল প্রদীপ যেন ডাকছিল মোহাম্মদ আলীকে। ‘আহমাদু জুবায়দা ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসা’র প্রতিযোগী হিসেবে তিনি অংশ নেন জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৮ উপলক্ষে হোসেনপুর উপজেলা পর্যায়ে কোরআন তেলাওয়াত এবং ইসলামী সংগীত প্রতিযোগিতায়। দুই বিভাগেই প্রথম হয়ে তিনি সুযোগ করে নেন কিশোরগঞ্জ জেলা পর্যায়ের প্রতিযোগিতায়। জেলা পর্যায়ে কোরআন তেলাওয়াতে ১ম স্থান অর্জন করে অংশ নেন ময়মনসিংহ বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায়। সেখানেও প্রথম স্থান অধিকার করে নাম লেখায় সেরাদের সেরা হওয়ার লড়াইয়ে।



[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর



















সেগুনবাগিচা, গৌরাঙ্গবাজার, কিশোরগঞ্জ-২৩০০
মোবাইল:০ ১৮১৯ ৮৯১০৮৮, ০১৮৪১ ৮১৫৫০০
kishoreganjnews247@gmail .com
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি: সাইফুল হক মোল্লা দুলু
প্রধান সম্পাদক: আশরাফুল ইসলাম
সম্পাদক: সিম্মী আহাম্মেদ