কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা

পবিত্র কাবা ও মাসজিদুল হারামের ফজিলত



 যুবায়ের আহমাদ | ৯ আগস্ট ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ১১:২৮ | ইসলাম 


মক্কার মাসজিদুল হারামের কেন্দ্রবিন্দুতে অবস্থিত ঘরখানি পবিত্র কাবা আর কাবার চারপাশে গড়ে ওঠা আঙিনাই মাসজিদুল হারাম। কাবা ও মাসজিদুল হারামের সঙ্গে পৃথিবীর ১৮০ কোটি মুসলমানের অন্তর আধ্যাত্মিক সুতায় বাঁধা। ইবাদতের জন্য জমিনে সর্বপ্রথম স্থাপিত হয় কাবাঘর।

এ কাবাই পৃথিবীর স্থলভাগের কেন্দ্রবিন্দু।কারণ, পানিসর্বস্ব পৃথিবীতে মাটির সৃষ্টি এ কাবাকে কেন্দ্র করেই। আল্লাহতায়ালা বলেন, ‘নিশ্চয়ই প্রথম ঘর, যা মানুষের জন্য স্থাপন করা হয়েছে, তা মক্কায়। যা বরকতময় ও সৃষ্টিকুলের জন্য হেদায়েত।’ (সূরা আলে ইমরান : ৯৬)।

এ বিষয়ে ‘ইসকাতুল কুররাতিল আরধিয়্যা বিন্ নিসবতে লি মাক্কাতিল মুকাররামা’ শিরেনামে গবেষণা করে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন ড. হুসাইন কামাল উদ্দীন আহমদ। এ গবেষণায় তিনি প্রাচীন ও আধুনিক দলিল-দস্তাবেজের আলোকে এ কথা প্রমাণ করেছেন যে কাবাই পৃথিবীর মেরুদণ্ড ও পৃথিবীর মধ্যস্থলে অবস্থিত। ইসলামের রাজধানী হিসেবে কাবা একটি সুপরিচিত নাম। পানিসর্বস্ব পৃথিবীতে মাটির সৃষ্টি এ কাবাকে কেন্দ্র করেই।

উম্মুল কুরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণাকেন্দ্রের পরিচালক ড. খালিদ বাবতিনও তার গবেষণায় প্রমাণ করেছেন যে, সৌদি আরবে অবস্থিত পবিত্র কাবাই পৃথিবীর কেন্দ্রবিন্দু। (আল আরাবিয়া : ২৩ জুলাই, ২০১২) বছরের বিশেষ একটি দিন দুপুরে সূর্য ঠিক মাথার ওপর থাকে। তখন পবিত্র কাবা বা মক্কায় অবস্থিত কোনো অট্টালিকায় ছায়া দৃষ্টিগোচর হয় না। যেমন, ২০১৪ সালের ২৮ মে দুপুর ১২টা ১৮ মিনিটে সূর্য ছিল পবিত্র কাবার ঠিক মাথার ওপর। পৃথিবীর আর কোথাও এমনটি হয় না।

প্রায় ৫ হাজার বছর আগে হজরত ইবরাহিম ও ইসমাইল আলাইহিস সালাম মক্কায় কাবাঘর পুনর্নির্মাণের নির্দেশ পান। তারা উভয়ে তা নির্মাণ করেন। এরও আগে ফেরেশতারা, হজরত আদম ও শিশ আলাইহিস সালাম তা নির্মাণ করেন।

ইতিহাসবিদদের মতে, কাবাঘর ১২ বার নির্মাণ, পুনর্নির্মাণ ও সংস্কার করা হয়েছে। কাবাই পৃথিবীর সর্বাধিক পবিত্র ও সম্মানিত ঘর। কাবা শরিফ তাওয়াফে এমনকি এর দিকে তাকিয়ে থাকারও রয়েছে অনন্য ফজিলত। তাওয়াফ অর্থ চক্কর দেওয়া বা প্রদক্ষিণ করা। হাজরে আসওয়াদের কোণ থেকে কাবার দরজা অতিক্রম করে চারদিক ঘুরে আবার হাজরে আসওয়াদে এসে পৌঁছালে এক চক্কর হবে। এভাবে সাত চক্কর বা প্রদক্ষিণের মাধ্যমে এক তাওয়াফ হয়। তাওয়াফ শেষে মাকামে ইবরাহিমে দুই রাকাত নামাজ পড়লে একটি গোলাম আজাদ করার সওয়াবসহ অনেক মর্যাদা লাভ করা যায়। হজরত আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি, ‘কেউ যদি যথাযথভাবে বায়তুল্লাহ তাওয়াফ করে এবং (মাকামে ইবরাহিমে) দুই রাকাত নামাজ আদায় করে তবে সে একটি গোলাম আজাদ করার সওয়াব পাবে। তাওয়াফের প্রতিটি কদমে আল্লাহতায়ালা তাওয়াফকারীর জন্য ১০টি নেকি লেখেন, ১০টি গুনাহ ক্ষমা করেন এবং ১০টি মর্যাদা বৃদ্ধি করেন।’ মুসনাদে আহমাদ।

কাবা শরিফের ওপর আল্লাহতায়ালা প্রতিদিন, প্রতিক্ষণ বিশেষ রহমত বর্ষণ করেন। তাওয়াফকারী, বায়তুল্লাহ প্রাঙ্গণে নামাজ আদায়কারী এমনকি যে ব্যক্তি বায়তুল্লাহর (কাবা) দিকে তাকিয়ে থাকার সৌভাগ্য লাভ করে সেও সেই রহমত পেয়ে ধন্য হয়। হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত।

রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, ‘আল্লাহতায়ালা প্রতিদিন বায়তুল্লাহর ওপর ১২০টি রহমত নাজিল করেন, এর মধ্যে ৬০টি রহমত শুধু তাওয়াফকারীদের জন্য; ৪০টি মাসজিদুল হারামের মধ্যে নামাজ আদায়কারীদের জন্য এবং অবশিষ্ট ২০টি ওইসব (সৌভাগ্যবান) লোকের জন্য যারা (আবেগ ও ভালোবাসায়) বায়তুল্লাহর দিকে তাকিয়ে থাকে।’ বায়হাকি।

কাবার পরশে ধন্য হয়েছে এর চারপাশ ঘিরে থাকা মাসজিদুল হারামও। লাভ করেছে সর্বশ্রেষ্ঠ মসজিদের মর্যাদা। যে তিনটি মসজিদের জন্য সফর করা যায় তর প্রথমটিই মাসজিদুল হারাম।

হজরত আবু হুরায়রা (রা.) বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, ‘শুধু তিনটি মসজিদের উদ্দেশে সফর করা যাবে— আমার এই মসজিদ (মাসজিদুন নববী), মাসজিদুল হারাম ও মাসজিদুল আকসা।’ মুসলিম। মাসজিদুল হারামে এক রাকাত নামাজ পড়লে অনত্র ১ লাখ রাকাত নামাজেরও বেশি সওয়াব পাওয়া যায়।

হজরত জাবির (রা.) বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘আমার এ মসজিদে এক নামাজ অন্য মসজিদে হাজার নামাজ থেকেও উত্তম। তবে মাসজিদুল হারাম ছাড়া। কেননা, মাসজিদুল হারামে এক নামাজ অন্য মসজিদের এক লাখ নামাজের চেয়ে উত্তম।’ আহমাদ।

লেখক : বিভিন্ন বাংলা ও ইংরেজি জাতীয় দৈনিকের কলামিস্ট; খতিব, বাইতুশ শফিক মসজিদ, বোর্ডবাজার, গাজীপুর।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]


এ বিভাগের আরও খবর



















সেগুনবাগিচা, গৌরাঙ্গবাজার, কিশোরগঞ্জ-২৩০০
মোবাইল:০ ১৮১৯ ৮৯১০৮৮, ০১৮৪১ ৮১৫৫০০
kishoreganjnews247@gmail.com
Web: www. kishoreganjnews.com
প্রধান সম্পাদক: আশরাফুল ইসলাম
সম্পাদক: সিম্মী আহাম্মেদ