কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা

কিশোরগঞ্জ ‘দারুল আরকাম’ ইবদেতায়ী মাদ্রাসা কারিকুলাম সিলেবাস ও পাঠ্যপুস্তক পর্যালোচনা বিষয়ে প্রশিক্ষণ


 স্টাফ রিপোর্টার | ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বুধবার, ৯:৪৮ | শিক্ষা  


কিশোরগঞ্জে জেলা পর্যায়ে ‘দারুল আরকাম’ ইবদেতায়ী মাদ্রাসা কারিকুলাম সিলেবাস ও পাঠ্যপুস্তক পর্যালোচনা শীর্ষক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (৫ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কিশোরগঞ্জ সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে ইসলামিক ফাউন্ডেশন আয়োজিত এই প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।

প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মো. আক্তার জামীল এর সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মো. ফারুক আহমেদ।

প্রশিক্ষণ কর্মশালায় কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আব্দুল্লাহ আল মাসউদ, হয়বতনগর এ.ইউ. কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মো. আজিজুল হক, জেলা শিক্ষা অফিসার মো. মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. সাজ্জাদ হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের কওমী মাদ্রাসা ও ইবতেদায়ী মক্তবের পরিসংখ্যান কোন সরকারের আমলেই করা হয়নি। বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগ ‘দারুল আরকাম’। যেখানে হযরত ওমর (রা.) ইসলাম শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েছিলেন ও ইসলাম গ্রহণ করেছিলেন, সেই জায়গার নামানুসারে বাংলাদেশের প্রতিটি উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর মাদ্রাসা কারিকুলাম সিলেবাস ও পাঠ্যপুস্তকের আলোকে ‘দারুল আরকাম’ প্রতি উপজেলায় দু’টি করে প্রতিষ্ঠিত হবে। পরবর্তীতে একটি সিলেবাসের আওতায় সমস্ত কওমী মাদ্রাসাকে অন্তর্ভূক্ত করা হবে।

প্রশিক্ষণে কওমী ও আলীয়া মাদ্রাসার মুহতামীম ও অধ্যক্ষ এবং কলেজ ও স্কুলের শিক্ষকদের সম্মিলিত ৯০ জন শিক্ষকের মতামতের ভিত্তিতে সুপারিশমালা কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসকের কাছে উপস্থাপিত হয় যা ‘দারুল আরকাম’ মাদরাসার কারিকুলামের সুপারিশমালায় থাকবে সারাদেশের মুহতামিম ও অধ্যদের মতামতের সাথে।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী বলেন, আমি ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র ছিলাম। আমাকে বইয়ে যা লেখা ছিল তা হুবহু বোর্ডে লিখে দেওয়া হতো। সে মোতাবেক মুখস্ত করে ভাল রেজাল্টও করেছি। কিন্তু আমাদের নৈতিকতা ও আদর্শ শিক্ষা মক্তব থেকেই পেয়েছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দারুল আরকাম মাদ্রাসাটি বর্তমান প্রজন্মের জন্য অত্যন্ত জরুরী। আমি মনে করি, অভিজ্ঞ হুজুর, মুহতামীম, অধ্যক্ষ, স্কুল ও কলেজ এর শিক্ষকবৃন্দের যে সুপারিশমালাগুলোর ভিত্তিতে সম্মিলিত সিলেবাস তৈরি করা হচ্ছে, এটিই হবে প্রাথমিক শিক্ষার জন্য আর্শীবাদস্বরূপ। তাই প্রধানমন্ত্রীর দারুল আরকাম মাদ্রাসাটির যথাযথ সাফল্য বয়ে নিয়ে আসবে সকল শিশুর জন্য।

প্রশিক্ষণ কর্মশালায় আলিয়া ও কওমী মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের দারুল আরকামের শিক্ষকবৃন্দ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ অংশ নেন।

পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জেলা পর্যায়ে হিফজ ও রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার ও সনদ বিতরণ করা হয়।

এসময় ইফার কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, শিক্ষক শিক্ষার্থী, প্রতিযোগীসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।



[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর



















সেগুনবাগিচা, গৌরাঙ্গবাজার, কিশোরগঞ্জ-২৩০০
মোবাইল:০ ১৮১৯ ৮৯১০৮৮, ০১৮৪১ ৮১৫৫০০
kishoreganjnews247@gmails.com
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি: সাইফুল হক মোল্লা দুলু
প্রধান সম্পাদক: আশরাফুল ইসলাম
সম্পাদক: সিম্মী আহাম্মেদ