কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


আওয়ামী লীগের দুর্গ কিশোরগঞ্জ সদর আসন


 বিশেষ প্রতিনিধি | ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, শুক্রবার, ১২:০৫ | নির্বাচনী হালফিল 


বেশিরভাগ সময়ই কিশোরগঞ্জ-১ (কিশোরগঞ্জ সদর-হোসেনপুর) আসনের দখল ধরে রেখেছে আওয়ামী লীগ। নিজেদের 'দুর্গ' হিসেবে পরিচিত আসনটিতে আগামী নির্বাচনেও জয় চান ক্ষমতাসীন দলের নেতারা।

এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের বিজয় নিশ্চিত করতে একাট্টা হয়ে মাঠে নেমেছেন দলীয় নেতাকর্মীরা। তাঁদের প্রত্যাশা, এবার রেকর্ড ভোটে বিজয়ী হয়ে এই আসন থেকে পঞ্চমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হবেন সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।

অন্যদিকে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী আরেক বড় দল বিএনপিও। দলটির প্রার্থী সাবেক ঢাকা বিভাগীয় স্পেশাল জজ রেজাউল করিম খান চুন্নুকে ঘিরে আসনটি দখলে নেয়ার স্বপ্ন দেখছেন নেতাকর্মীরা।

কিশোরগঞ্জ সদর ও হোসেনপুর উপজেলার ১৭টি ইউনিয়ন ও দু’টি পৌরসভা নিয়ে কিশোরগঞ্জ-১ আসন। এ আসনটিতে বরাবরই আওয়ামী লীগ আধিপত্য ধরে রেখেছে।

১৯৭৩ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ৮টি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা নিয়ে গঠিত ছিল কিশোরগঞ্জ-৩ আসন। জেলার ঐতিহ্যবাহী এ আসন থেকে স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশে ১৯৭৩ সালের ৭ই মার্চ অনুষ্ঠিত প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশ সরকারের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। বাকশাল গঠনের পর তিনি উপ-রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব লাভ করায় এ আসনে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। উপ-নির্বাচনে মো. আশরাফুদ্দীন আহমদ বিজয়ী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

১৯৭৯ সালের নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী ডা. আবু আহম্মদ বজলুল করিম, ১৯৮৬ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী এডভোকেট ফজলুর রহমান, ১৯৮৮ সালের নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী আলমগীর হোসেন, ১৯৯১ সালের নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী মাওলানা আতাউর রহমান খান, ১৯৯৬ সালের ১৫ই ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী মো. মাসুদ হিলালী এবং ১৯৯৬ সালের ১২ই জুন থেকে ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারি পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ৪টি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টানা চার বার আওয়ামী লীগ প্রার্থী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

এর আগে ১৯৭০ সালের জাতীয় পরিষদ নির্বাচনে ময়মনসিংহ-১৭ (কিশোরগঞ্জ সদর এবং করিমগঞ্জ থানার অংশবিশেষ নিয়ে গঠিত) আসন থেকে জাতীয় পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন বাংলাদেশের ইতিহাসের প্রধানতম পুরুষ শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম।

টানা চার বার এ আসনে নির্বাচিত সংসদ সদস্য সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের জয় অব্যাহত রাখতে এবারও আশাবাদী আওয়ামী লীগ। সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম থাইল্যান্ডে চিকিৎসাধীন থাকায় তাঁর পক্ষে পরিবারের সদস্যরা সরাসরি নির্বাচনী প্রচারণায় নেমেছেন।

এছাড়া ‘রাজনীতির আইকন’ খ্যাত সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের গলায় জয়ের মালা পরাতে এ আসনের দুই উপজেলায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরাও একাট্টা হয়ে মাঠে নেমেছেন। ফলে মাঠে ভোটের তৎপরতায় অনেকটা এগিয়ে আওয়ামী লীগ।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর