কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


যানজট নিরসনে কিশোরগঞ্জ শহরে চলবে হলুদ রঙা পৌর স্টিকারযুক্ত ৬শ’ অটোরিক্সা


 স্টাফ রিপোর্টার | ৩ মার্চ ২০১৯, রবিবার, ৭:৫৪ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জ শহরকে যানজট মুক্ত করতে সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে এবার ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এর অংশ হিসেবে পৌরসভা থেকে লাইসেন্স পাওয়া ৬শ’ ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ছাড়া আর কোন অটোরিক্সা চলাচল করতে পারবে না শহরে। মঙ্গলবার (৫ মার্চ) থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

ফলে ৫ই মার্চ থেকে কিশোরগঞ্জ শহরে সামনের অংশে হলুদ রঙ করা এবং পৌরসভার লাইসেন্সের স্টিকারযুক্ত ৬শ’ ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা চলাচল করবে। এসব অটোরিক্সাকে চলাচলের এলাকা চিহ্নিত করে দেয়া হয়েছে। যাত্রী নিয়ে তারা কোন অবস্থাতেই চিহ্ণিত এলাকা অতিক্রম করতে পারবে না। এজন্যে ১০টি প্রবেশপথ নির্দিষ্ট করে দিয়ে চলাচলের এলাকা চিহ্ণিত করে দেয়া হয়েছে। এর নাম দেয়া হয়েছে ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক শহর সার্ভিস।

এছাড়া দুর্ঘটনা এড়াতে এসব ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা ডান পাশ দিয়ে কোন যাত্রী উঠানো-নামানো করতে পারবে না।

রোববার (৩ মার্চ) সকালে এই সার্ভিসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। কিশোরগঞ্জ পৌর ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক মালিক সমিতির আয়োজনে শহর সার্ভিসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী।

পৌরমেয়র মাহমুদ পারভেজ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার)।

কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. আবুবকর সিদ্দিক এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

শহর সার্ভিসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী ইজিবাইক চালকদের সুশৃঙ্খলভাবে ইজিবাইক চালানোর আহ্বান জানিয়ে বলেন, ইজিবাইকের ডান পাশ দিয়ে কোন যাত্রী উঠানো-নামানো যাবে না। এছাড়া অপ্রাপ্তবয়স্ক কোন চালক দিয়েও ইজিবাইক চালানো যাবে না।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) বলেন, পৌরসভার নির্ধারিত এলাকার মধ্যে পৌরসভার স্টিকারযুক্ত ৬শ’ হলুদ রং করা ইজিবাইক ছাড়া আর কোন ইজিবাইক চলাচল করতে পারবে না। শহরের যানজট নিরসনের মাধ্যমে জনসাধারণের দুর্ভোগ কমাতে এই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। সবাই মিলে এই উদ্যোগকে সফল করলেই মানুষ এর সুফল ভোগ করতে পারবেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কিশোরগঞ্জ পৌর ইজি বাইক মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ ছাড়াও ইজিবাইক চালকেরা উপস্থিত ছিলেন।

পরে প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি, সভাপতি ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ হলুদ রঙা ইজিবাইকে পৌরসভার স্টিকার লাগিয়ে শহর সার্ভিসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, গাইটাল বাসস্ট্যান্ড, গাইটাল শ্রীনগর (মুরাদ মিয়ার বাড়ি সংলগ্ন), কলাপাড়া মোড়, ঈশা খাঁ ইউনিভার্সিটি, শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন ব্রীজ, মনিপুরী ঘাট, বত্রিশ বাসস্ট্যান্ড, নগুয়া বাসস্ট্যান্ড, পাগলা মসজিদ ব্রীজ এবং হারুয়া মোড় থেকে শহর সার্ভিসের ইজিবাইক/অটোরিক্সাগুলো শহরে যাত্রী পরিবহন করবে। এসব ইজিবাইক/অটোরিক্সা কোন অবস্থাতেই চিহ্ণিত এলাকা অতিক্রম করতে পারবে না। তেমনিভাবে নির্ধারিত ৬শ’ ইজিবাইক/অটোরিক্সার বাইরে অন্য কোন ইজিবাইক/অটোরিক্সা নির্ধারিত এলাকায় প্রবেশ কিংবা যাত্রী পরিবহন করতে পারবে না।

যানজটে নাকাল শহরবাসী দীর্ঘদিন পর হলেও যানজট নিরসনে উদ্যোগ গ্রহণ করায় জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী এবং পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর