কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


মিঠামইনে হোমিও ওষুধ খেয়ে দুই জনের মৃত্যু


 স্টাফ রিপোর্টার | ৬ মার্চ ২০১৯, বুধবার, ৪:৪৮ | মিঠামইন 


মিঠামইনে হোমিও চিকিৎসকের অগোচরে দোকান থেকে হোমিও ওষুধ সেবন করে জাহাঙ্গীর আলম (৪৩) ও শুকুর মাহমুদ (৪৪) নামে দুই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে জাহাঙ্গীর আলম উপজেলা সদরের কামালপুর গ্রামের মৃত হাজী মমতাজ উদ্দিনের ছেলে এবং শুকুর মাহমুদ একই গ্রামের মো. পছন্দ আলীর ছেলে। তারা সম্পর্কে মামাতো-ফুফাতো ভাই।

মঙ্গলবার (৫ মার্চ) দুপুরে মিঠামইন বাজারের সুজন হোমিও হল থেকে একোনাইট নামের হোমিও ওষুধ সেবনের পর বিষক্রিয়ায় তাদের মৃত্যু হয় বলে চিকিৎসা সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, মঙ্গলবার (৫ মার্চ) দুপুরে জাহাঙ্গীর আলম ও শুকুর মাহমুদ মিঠামইন বাজারের সুজন হোমিও হলে গিয়ে হোমিও চিকিৎসক সুজনের সাথে আলাপচারিতা শুরু করেন। এক পর্যায়ে হোমিও চিকিৎসক সুজন সিংহ পাশের একটি রেস্টুরেন্ট থেকে নাস্তার জন্য পুড়ি-সিঙ্গারা আনতে গেলে জাহাঙ্গীর আলম ও শুকুর মাহমুদ দু’জনে মিলে দোকানে রাখা ওষুধ থেকে একটি বোতলের ওষুধ নিজেরাই সেবন করে নেন। পরে তারা বাড়ি ফিরে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন।

শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বিকাল ৩টা ২০ মিনিটের দিকে দু’জনকে মিঠামইন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সন্ধ্যা ৭টায় কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মো. আলী আকবর খান দু’জনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে রাত ৮টার দিকে কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক হাসপাতালে ছুটে যান। বুধবার (৬ মার্চ) কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে নিহত দুইজনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

মিঠামইন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. তানভীর হাসান জিকো’র উদ্ধৃতি দিয়ে কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. হাবিবুর রহমান জানান, মারা যাওয়া দু’জনের মধ্যে একজন হোমিও দোকানটিতে গিয়ে নিয়মিত যৌন উত্তেজক ওষুধ সেবন করতেন। মঙ্গলবার (৫ মার্চ) দুপুরে দু’জনে মিলে তারা ওই হোমিও দোকানে যান। হোমিও দোকানটির মালিক সুজন নাশতা খাওয়ার জন্য বাইরে গেলে জাহাঙ্গীর আলম ও শুকুর মাহমুদ নিজেরাই দোকানের আলমারি থেকে একটি ওষুধের বোতল বের করে সেবন করে নেন।

মিঠামইন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. তানভীর হাসান জিকো তাকে জানিয়েছেন, হোমিও ওষুধ বিক্রেতার দেয়া তথ্য অনুযায়ী, দু’জনেই একোনাইট নামের হোমিও ওষুধ সেবন করেছিলেন। আর এই ওষুধ সেবনের কারণে বিষক্রিয়ায় তারা অসুস্থ ও পরবর্তিতে মারা যান।

মিঠামইন থানার ওসি মো. জাকির রব্বানী জানান, এ ঘটনায় লিখিত কোন অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর