কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জ বারে মিয়া মোহাম্মদ ফেরদৌস সভাপতি, সহিদুল আলম শহীদ সাধারণ সম্পাদক


 স্টাফ রিপোর্টার | ৭ মার্চ ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১২:৪৮ | বিশেষ সংবাদ 


ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে কিশোরগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (৬ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত জেলা আইনজীবী সমিতি ভবনে নির্বাচনের ভোটগ্রহণ করা হয়।

নির্বাচনে স্বতন্ত্র হিসেবে লড়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি-সমর্থিত প্যানেলের দুই প্রার্থীকে পরাজিত করে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট মিয়া মোহাম্মদ ফেরদৌস। তিনি পেয়েছেন ১৯১ ভোট।

তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ ও সমমনা আইনজীবীদের প্যানেলের প্রার্থী অ্যাডভোকেট তারেক উদ্দিন আহমেদ আবাদ পেয়েছেন ১৮৪ ভোট।

এছাড়া সভাপতি পদে বিএনপি সমর্থিত জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট প্যানেলের প্রার্থী জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট জালাল মোহাম্মদ গাউস পেয়েছেন ১২৫ ভোট।

নির্বাচনে টানা একাদশ বারের মতো সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ ও সমমনা আইনজীবীদের প্যানেলের প্রার্থী মো. সহিদুল আলম শহীদ। তিনি পেয়েছেন ৩৪৮ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট প্যানেলের প্রার্থী এএম সাজ্জাদুল হক পেয়েছেন ১৪০ ভোট।

নির্বাচনে সহ-সভাপতির দু’টি পদে একটিতে বিএনপি সমর্থিত জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট প্যানেলের প্রার্থী মো. মনসুর আলম ২৯৭ ভোট ও আরেকটিতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ ও সমমনা আইনজীবীদের প্যানেলের প্রার্থী মো. নবী হোসেন ২৮৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ ও সমমনা আইনজীবীদের প্যানেলের প্রার্থী মো. ইমরাজ মিয়া পেয়েছেন ২৫৫ ভোট।

সহ-সম্পাদক এর দু’টি পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ ও সমমনা আইনজীবীদের প্যানেলের প্রার্থী নাজমুন নাহার মিলি ৩১৯ ভোট ও এহতেশামুল হক চৌধুরী জুয়েল ৩০৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের নিকটতমরা হলেন, বিএনপি সমর্থিত জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট প্যানেলের প্রার্থী মো. আসাদ রেজা ১৭৭ ভোট ও মো. জহিরুল হক ১০৩ ভোট।

সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ ও সমমনা আইনজীবীদের প্যানেলের প্রার্থী সাইফুল ইসলাম পলাশ ২৭৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট প্যানেলের প্রার্থী আবুল মোহাম্মদ সামিউল হক পেয়েছেন ২০৬ ভোট।

একক প্রার্থী হিসেব লাইব্ররি সম্পাদক পদে মো. ফজলুর রহমান সোহেল এবং অডিটর পদে মো. সাইফুল ইসলাম রাসেল বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁরা দু’জনেই আওয়ামী লীগ সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ ও সমমনা আইনজীবীদের প্যানেলের প্রার্থী।

এছাড়া সদস্য এর পাঁচটি পদে যথাক্রমে খন্দকার ইয়াকুব ফয়সাল ৩২৪ ভোট, তানভীর হাসান রানা ৩২৪ ভোট, মোহাম্মদ মোজাফফর আহমেদ সোহাগ ৩২০ ভোট, সায়েরা বানু ছবি ৩১৬ ভোট ও মোঃ হাফিজুর রহমান তালুকদার টিটু ২৯৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে তানভীর হাসান রানা বিএনপি সমর্থিত জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট প্যানেলের প্রার্থী এবং বাকি চারজন আওয়ামী লীগ সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ ও সমমনা আইনজীবীদের প্যানেলের প্রার্থী।

নির্বাচনে মোট ৫৩৮ জন ভোটারের মধ্যে ৫০৬ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দীন ফারুকী।

এ সংক্রান্ত সংবাদ: টানা ১১ বার কিশোরগঞ্জ বারের সাধারণ সম্পাদক হলেন সহিদুল




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর