কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জের ১৩ উপজেলায় প্রতীক পেলেন ৭৬ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী


 স্টাফ রিপোর্টার | ৮ মার্চ ২০১৯, শুক্রবার, ৯:৪৯ | বিশেষ সংবাদ 


পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তৃতীয় ধাপে আগামী ২৪ মার্চ কিশোরগঞ্জ জেলার ১৩টি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে ১৩টি উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মোট ৭৬ জন প্রার্থী। শুক্রবার (৮ মার্চ) তাদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়।

কিশোরগঞ্জ জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর, নিকলী, বাজিতপুর, কুলিয়ারচর, ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম এই ৭টি উপজেলার প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ কার্যক্রম জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। প্রতীক বরাদ্দ দেন রিটার্নিং অফিসার কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মো. আক্তার জামীল।

অন্যদিকে বাকি ৬টি উপজেলা করিমগঞ্জ, তাড়াইল, হোসেনপুর, পাকুন্দিয়া কটিয়াদী ও ভৈরব উপজেলার প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ কার্যক্রম জেলা নির্বাচন অফিসের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। প্রতীক বরাদ্দ দেন রিটার্নিং অফিসার কিশোরগঞ্জের জেলা নির্বাচন অফিসার মো. তাজুল ইসলাম।

কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাত প্রার্থী হলেন, আব্দুল জলিল (বৈদ্যুতিক বাল্ব), পল্লব কর (টিয়া পাখি), মাহাবুবুর রশীদ (মাইক), মো. আব্দুর রেজ্জাক (চশমা), মো. আব্দুস সাত্তার (তালা), শাহজাহান কবীর (টিউবওয়েল) এবং সৈয়দ তৌহিদ (উড়োজাহাজ)।

হোসেনপুর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুই প্রার্থী হলেন, মো. মোবারিছ মিয়া (তালা) ও মো. আশরাফ হোসেন (চশমা)।

তাড়াইল উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৭ প্রার্থী হলেন, মো. সামরুজ্জামান (মাইক), মো. আবুল কাশেম খান (চশমা), মো. মাহমুদুল হাসান রনি (উড়োজাহাজ), হারুন অর রশিদ (টিয়া পাখি), খাইরুল ইসলাম খান (বৈদ্যুতিক বাল্ব), আরাফাত হোসেন মুরাদ (তালা) এবং নাজমুল হক আকন্দ (টিউবওয়েল)।

করিমগঞ্জ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয় প্রার্থী হলেন, গোলাম মুহাম্মদ সুজন (টিয়া পাখি), বাহা উদ্দিন (উড়োজাহাজ), মো. রফিকুল ইসলাম রাসেল (টিউবওয়েল), মো. হান্নান মোল্লা (মাইক), মো. আবু আনিস ফকির (চশমা) এবং মো. জামাল উদ্দিন ফকির (তালা)।

কটিয়াদী উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ প্রার্থী হলেন, রেজাউল করিম শিকদার (তালা), মো. বকুল মিঞা (টিউবওয়েল), সদরুল হক (বৈদ্যুতিক বাল্ব), মজিবুর রহমান (টিয়া পাখি), মো. কামরুজ্জামান (মাইক) এবং মো. আবুল কালাম (উড়োজাহাজ)।

ভৈরব উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে চার প্রার্থী হলেন, মো. ইসহাক মিয়া (উড়োজাহাজ), আল মামুন (টিউবওয়েল), মো. মোশারফ হোসেন (তালা) এবং মো. শহীদুল্লাহ কায়সার (চশমা)।

নিকলী উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৮ প্রার্থী হলেন, এম. হাবিবুর রহমান (টিয়া পাখি), মিছবাহ উদ্দিন (চশমা), মো. আমিরুল আলম মামুন (উড়োজাহাজ), মো. আশরাফ উদ্দিন আসাদ (মাইক), মো. তাহের আলী (টিউবওয়েল), মো. নাজিউর রহমান (বই), মো. শামছুল আলম (বৈদ্যুতিক বাল্ব) এবং রিয়াজুল হক আয়াজ (তালা)।

ইটনা উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে চার প্রার্থী হলেন, মো. ইদ্রিছ আলী (তালা), মো. ফজলুর রহমান (টিউবওয়েল), মো. সাখাওয়াত হোসেন (চশমা) এবং রেজাউর রহমান ভূঞা (টিয়া পাখি)।

অষ্টগ্রাম উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাঁচ প্রার্থী হলেন, আল আমিন (চশমা), মানিক কুমার দেব (তালা), মো. আল এমরান (টিয়া পাখি), মো. তাহের উদ্দিন পাঠান (মাইক) এবং মো. সুরুজ ঠাকুর (টিউবওয়েল)।

বাজিতপুর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাত প্রার্থী হলেন, আবুল ফজল রাছেল (টিয়া পাখি), তানজিত হায়দার (বৈদ্যুতিক বাল্ব), মো. জিল্লুর রহমান (তালা), মো. মাসুদ মিয়া (টিউবওয়েল), মো. শাহজাহান কবীর (উড়োজাহাজ), মো. সুমন মিয়া (চশমা) এবং রাজু মিয়া (মাইক)।

পাকুন্দিয়া উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে আট প্রার্থী হলেন, মোহাম্মদ আসাদ মিয়া (টিউবওয়েল), আরিফুল হক (বৈদ্যুতিক বাল্ব), মো. দিদারুল আলম (তালা), মো. জুয়েল (মাইক), মো. খলিলুর রহমান (চশমা), মো. নেকবর আলী (টিয়া পাখি), মো. শামছুল হক মিটু (পালকি) এবং মো. তারেক রহমান (উড়োজাহাজ)।

কুলিয়ারচর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাঁচ প্রার্থী হলেন, মনিরুজ্জামান (টিউবওয়েল), মো. আবদুল আওয়াল (উড়োজাহাজ), মো. গিয়াস উদ্দিন (মাইক), মো. মহসিন মিয়া (তালা) এবং সৈয়দ নুরে আলম (চশমা)।

মিঠামইন উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাত প্রার্থী হলেন, মো. ইব্রাহীম চৌধুরী (চশমা), মো. ইব্রাহিম মিয়া (মাইক), মো. ইসলাম উদ্দিন (উড়োজাহাজ), মো. মজিবুর রহমান (টিয়া পাখি), মো. মতিউর রহমান (টিউবওয়েল), মো. রাসেল ভূঞা (তালা) এবং শেখ সাফিউর রহমান সাফির (বৈদ্যুতিক বাল্ব)।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর