কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


মসজিদের ভেতর মারা যাওয়ার ভঙ্গিতে পড়ে ছিলেন কটিয়াদীর মাসুম


 রাজীব সরকার পলাশ | ১৬ মার্চ ২০১৯, শনিবার, ১১:৪৩ | প্রবাস 


ক্রাইস্টচার্চ হামলায় ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছেন কটিয়াদীর ওমর জাহিদ মাসুম (৩৪)। মসজিদ আল নূরে নামাজ আদায় করতে গিয়ে বন্দুক হামলার মুখে পড়েন মাসুম। একটি গুলি তার পেটের পাশ দিয়ে চলে যায়। এ সময় মারা যাওয়ার ভঙ্গিতে রক্তাক্ত মানুষের স্তুপে পড়ে থাকেন তিনি। এভাবে দীর্ঘক্ষণ পড়ে থাকার পর পুলিশ গিয়ে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বাসায় ফিরলেও হামলার ভয়াবহতা ও নৃশংসতায় বার বার আঁতকে ওঠছেন তিনি। নিশ্চিত মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েও ভাগ্যই বাঁচিয়ে দিয়েছে তাকে।

নিউজিল্যান্ড প্রবাসী ওমর জাহিদ মাসুম কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার মুমুরদিয়া ইউনিয়নের ধনকীপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। তিনি সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্য মরহুম আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান দয়াল ও  সদ্য প্রয়াত মরহুম মমতাজ বেগমের পুত্র। চার ভাই এবং তিন বোনের মধ্যে সবার ছোট মাসুম।

ওমর জাহিদ মাসুম বাংলাদেশে থাকার সময়ে অরেঞ্জ বিডি আইটি ফার্মে কাজ করতেন। মিরপুর বাংলা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক শেষে তথ্য প্রযুক্তি (আইটি) তে উচ্চতর ডিগ্রি লাভের উদ্দেশ্যে ২০১৫ সালের ২৯শে অক্টোবর তিনি নিউজিল্যান্ডে পাড়ি জমান।

পড়াশোনা শেষ করে সেখানেই একটি সুপার শপ এবং একটি পেট্রল পাম্পে ব্যবস্থাপক হয়ে কাজ করছেন তিনি। ক্রাইস্টচার্চ মসজিদ আল নূর থেকে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে সস্ত্রীক বসবাস করেন মাসুম।

মাসুমের বড় ভাই অ্যাডভোকেট ওমর জাকির বাবুল জানান, প্রতিদিনের মত শুক্রবার (১৫ মার্চ) ক্রাইস্টচার্চ নূরে মসজিদে জুমআর নামাজ আদায় করতে যায় মাসুম। মসজিদের ভিতরে নামাজ পড়ার সময় অন্য মুসল্লীদের সাথে সেও হামলার শিকার হয়। একটি গুলি মাসুমের পেটের পাশ দিয়ে চলে যায়। মাসুম মসজিদের মেঝেতে মারা যাওয়ার ভঙ্গিতে পড়ে থাকেন।

পরে পুলিশ এসে উদ্ধার করে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। হ্সাপাতালে চিকিৎসা শেষে এখন বাসায় অবস্থান করছেন। মাসুম বর্তমানে সুস্থ রয়েছেন বলেও অ্যাডভোকেট ওমর জাকির বাবুল জানিয়েছেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর