কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


নিকলী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতিকে অবাঞ্চিত ঘোষণা


 খাইরুল মোমেন স্বপন | ৩০ মার্চ ২০১৯, শনিবার, ৬:১৬ | রাজনীতি 


নিকলী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব মো. ইসহাক ভূইয়া ও সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মো. ইকবাল হোসেনকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে শনিবার (৩০শে মার্চ) অবাঞ্চিত ঘোষণা করেছেন দলটির একটি অংশের নেতাকর্মীরা। নিকলী উপজেলা সদরের জেলা পরিষদ অডিটোরিয়াম কাম কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত সংগঠনটির বর্ধিত সভায় বক্তারা এ ঘোষণা দেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গোলামুর রহমান গোলাপের সভাপতিত্বে এই বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কারার সাইফুল ইসলামের সঞ্চালনায় সভায় নিকলী উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম মরম আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মানিক চেীধুরী, প্রচার সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন, আইন বিষয়ক সম্পাদক আসাদুজ্জামান লিটন, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ইমান আলী, সদস্য সব্দর আলী ছাড়াও উপজেলার ৭ ইউনিয়নের সভাপতি ও সম্পাদকগণ বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা জানান, সভাপতি আলহাজ্ব ইসহাক ভূইয়া ও সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ইকবাল হোসেন গত ২৪শে মার্চ অনুষ্ঠিত নিকলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী এম রুহুল কুদ্দুস ভূইয়া জনির (মোটর সাইকেল) পক্ষে ও দলীয় প্রার্থী কারার সাইফুল ইসলামের (নৌকা) বিপক্ষে জোরালো ভূমিকা রেখেছেন। দলীয় শৃঙখলা ভঙ্গকারীদের সাথে দলের কোন সম্পর্ক থাকতে পারে না।

বক্তারা দুইজনকেই অবাঞ্চিত ঘোষণা করে বলেন, শীঘ্রই আওয়ামী লীগ প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবরে দুইজনের বহিষ্কারাদেশের জন্য কাগজপত্র ও প্রমাণাদি পাঠানো হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব মো. ইসহাক ভূইয়া জানান, বর্ধিত সভাটি সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না। কী হয়েছে তাও আমার অজানা।

উল্লেখ্য, গত ২৪শে মার্চ অনুষ্ঠিত নিকলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব মো. ইসহাক ভূইয়ার পুত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী এম রুহুল কুদ্দুস ভূইয়া জনি (মোটর সাইকেল) ৪ হাজার ৩৪৭ ভোটের ব্যবধানে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী দলটির উপজেলা সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান কারার সাইফুল ইসলামকে পরাজিত করে বিজয়ী হন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর