কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


৭ দিনের বৈশাখী উৎসবের ব্যাপক প্রস্তুতিতে ব্যস্ত ‘আমাদের কিশোরগঞ্জ’


 স্টাফ রিপোর্টার | ১০ এপ্রিল ২০১৯, বুধবার, ১১:৫০ | বিশেষ সংবাদ 


চৈত্রের শেষ সময়। প্রকৃতির আচরণ বোঝা বড় দায়। কখনো তপ্ত রোদ। আবার কখনো বা আকাশ কালো করে নেমে আসছে ঝুম বৃষ্টি। মৌসুমি ঝড়ে কখনো বা লণ্ডভণ্ড করে যাচ্ছে চারদিক। এ যেন জরা জীর্ণতাকে মুছে ফেলার শেষ আয়োজন। নতুনের আবাহনের আগাম বারতা।

আসছে বৈশাখে নতুন করে সাজবে প্রকৃতি। গাইবে প্রেমের গান। সেই গানে প্রেমময় হবে গোটা পৃথিবী। দূর হবে সকল অনাচার, দুঃখ, গ্লানি, হতাশা। অপশক্তিকে রুখে দিয়ে পৃথিবী সাজবে নতুন করে। মাথা উঁচু করে সাম্যের গান গাইবে মনুষ্যজাত। তাইতো বাংলা নববর্ষ-১৪২৬-এর মঙ্গল শোভাযাত্রার মূল প্রতিপাদ্যও ঠিক করা হয়েছে সে বিষয়টি মাথায় রেখে- ‘মস্তক তুলিতে দাও অনন্ত আকাশে’।

আগামী শনিবার (১৪ এপ্রিল) বাংলা নববর্ষ ১৪২৬-পহেলা বৈশাখ। দিবসটিকে বরণ করতে বাঙালির প্রতি বছরই থাকে নানা আয়োজন। তার মধ্যে অন্যতম মঙ্গল শোভাযাত্রা। কিশোরগঞ্জে গত ২০ বছর ধরে ধারাবাহিকভাবে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা আয়োজন করে আসছে ‘আমাদের কিশোরগঞ্জ’ সংগঠনটি। এবার একুশ বছরের আয়োজনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলার আদলেই কিশোরগঞ্জে ‘আমাদের কিশোরগঞ্জ’ এর ব্যানারে বের করা হবে মঙ্গল শোভাযাত্রা।

সে অনুযায়ী তৈরি করা হচ্ছে বিভিন্ন মোটিফ, মুখোশ, মাটির তৈরি পুতুলসহ নানা শিল্পকর্ম। এসব শিল্পকর্ম তৈরিতে কিশোরগঞ্জ শহরের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিার্থীরা পার করছে ব্যস্ত সময়।

আয়োজকেরা জানান, ‘আমাদের কিশোরগঞ্জ’ একটি অরাজনৈতিক সংগঠন। দলমত নির্বিশেষে সবাই এই সংগঠনের ব্যানারে বৈশাখী উৎসব পালন করে থাকেন।

কিশোরগঞ্জ পুরাতন স্টেডিয়ামে গিয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজনকে ঘিরে শিক্ষার্থীদের ব্যস্ততার দৃশ্য চোখে পড়ে। ভেতরে হাতুড়ি পেরেকের ঠুকঠাক শব্দ। চলছে বাঁশের কঞ্চি দিয়ে নানা রকমের মোটিফ তৈরি থেকে শুরু করে ছবি আঁকা, সরা, পুতুল, ভাস্কর্য তৈরির কাজ। সেগুলোকে শিল্পীর তুলিতে শেষ আঁচড় দিচ্ছেন কেউ কেউ।

আয়োজকেরা জানান, এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রায় থাকবে পুতুল, পেইন্টিং, মাটির তৈরি সরা, মুখোশ, রাজা-রাণীর মুখোশ, সূর্য, ভট, লকেট ইত্যাদি।

কিশোরগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের এইসএসসির ছাত্রী শ্রাবন্তী আক্তার ইতি বলেন, ‘আমাদের বিভিন্ন স্ট্রাকচার তৈরির কাজ চলছে। আশা করছি, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করতে পারব।’

কিশোরগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ডিপ্লোমা শিক্ষার্থী মাজহারুল ইসলাম তুষার বলেন, ‘আমাদের তৈরি বিভিন্ন শিল্পকর্ম ইতোমধ্যে আমরা এখানে সাজিয়েছি। আশা করছি, এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রা অন্য যেকোনো বারের থেকে আরও বেশি সুন্দর হবে।’

মাহাবুল হাসান রিফাত, দিয়া, জান্নাতুল ফেরদৌস তুলি ও রজত সাহাসহ আরো অনেকেই স্বতঃস্ফূর্তভাবে এসব কাজে অংশ নিচ্ছেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর