কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


হোসেনপুরে নকল জুস কারখানা, এক বছরের কারাদণ্ড, দুই লাখ টাকা জরিমানা


 মো. জাকির হোসেন ও মিছবাহ উদ্দিন মানিক, হোসেনপুর | ৮ মে ২০১৯, বুধবার, ৯:০২ | বিশেষ সংবাদ 


হোসেনপুরে প্রশাসনের নাকের ডগায় তৈরি হচ্ছিল নকল জুস। পৌর সদরের  মধ্য আড়াইবাড়িয়া এলাকায় তুবা ফ্রুটি ও খান বেভারেজ নামে নকল জুস তৈরি করে দীর্ঘদিন ধরে বাজারজাত করে আসছিল নকল জুস। কেবল নকল জুসই নয়, পটেটোচিপস, যৌন উত্তেজক সিরাপ কোন কিছুই উৎপাদন বাদ যেতো না এই নকল কারখানা থেকে।

বাড়ির ভেতর টিন শেডের বাউন্ডারী দিয়ে ঘেরা ঘরেই তৈরি করা হতো জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর এসব জুস। রং মিশ্রিত ক্যামিকেল ব্যবহার করে এসব জুস তৈরি করে বোতলজাত করে রাতের আঁধারে ট্রাকে করে নরসিংদী, ঢাকাসহ আশপাশের জেলাসমূহে করা হতো বাজারজাত।

অবশেষে ভেজাল পণ্য তৈরির এই কারখানার সন্ধান পেয়েছে র‌্যাব। রমজান মাস উপলক্ষে ভেজাল বিরোধী বিশেষ অভিযান চালিয়ে র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২, কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের সদস্যরা কারখানাটির সন্ধান পান। বুধবার (৮ মে) দুপুরে কারখানাটিতে সমন্বিতভাবে অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব, হোসেনপুর উপজেলা প্রশাসন ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

হোসেনপুর পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের মধ্য আড়াইবাড়িয়া গ্রামের মৃত আশুখাঁর পুত্র রোবহান উদ্দিন খানের বাড়িতে খাঁন ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানীতে পরিচালিত এই অভিযানের সময় বিপুল পরিমাণ তরল পানীয় দ্রব্য ম্যাংগো জুস, অরেন্স জুস, লিচুর জুস, আইসপপ, পটেটো চিপসসহ নকল কারখানার বিপুল পরিমাণ মালামাল নষ্ট ও কারখানা গুড়িয়ে দেয়া হয়।

এছাড়া কারখানা মালিক বোরহান উদ্দিনের স্ত্রী হ্যাপি আক্তার (৪৫) কে ভেজাল খাদ্য দ্রব্য উৎপাদন ও বিক্রি করার দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং দুই লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২, কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক লে. কমান্ডার, বিএন এম শোভন খান জানান, বোরহান উদ্দিন খান তার বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ ভাবে বিভিন্ন ধরনের তরল পানীয় ও খাদ্যদ্রব্য  উৎপাদন এবং বাজারজাত করে আসছিল। বিষয়টি র‌্যাবের গোয়েন্দা সূত্রে নিশ্চিত হওয়ার পর বুধবার (৮ মে) তারা কারখানাটিকে ঘিরে রেখে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কমল কুমার ঘোষ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওয়াহিদুজ্জামান এবং জাতীয় ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর, কিশোরগঞ্জের সহকারী পরিচালক মো. ইব্রাহীম হোসেন অংশ নেন।

এ সময় জেলা ক্যাব সভাপতি আলম সারোয়ার টিটু এবং গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর