কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভৈরবে পঁচা খেজুর বাসি হালিম আর মেয়াদ ছাড়া দইয়ে জরিমানা


 সোহেল সাশ্রু, ভৈরব | ১১ মে ২০১৯, শনিবার, ৮:৪৫ | ভৈরব 


ভৈরবে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে খাবার অযোগ্য পঁচা খেজুর, বাসি হালিম এবং মেয়াদোত্তীর্ণ দই বিক্রির দায়ে ৬ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করেছে ভ্রম্যমাণ আদালত। সেই সাথে ব্যবসায়ী ও প্রতিষ্ঠানগুলিকে সতর্ক করা হয়েছে জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকি, এমন কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থেকে ব্যবসা পরিচালনা করতে। অভিযানে প্রতিষ্ঠানগুলি থেকে আদায় করা হয় ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড।

শনিবার (১১ মে) বিকালে ভৈরব বাসস্ট্যান্ড দুর্জয় মোড় এলাকায় এই অভিযান পরিচালনা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, শনিবার (১১ মে) বিকাল পাঁচটার দিকে ভৈরব উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত সাদমীনের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত শহরের ভৈরব বাসস্ট্যান্ড দুর্জয়মোড় এলাকার খেজুর ব্যবসায়ী বাচ্চু মিয়া, আক্তার হোসেন, সবুজ মিয়া ও কাউসার মিয়ার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালায়। এ সময় মেয়াদ উত্তীর্ণ ও খাবার অযোগ্য খেজুর বিক্রির দায়ে তাদের প্রত্যেককে আড়াই হাজার টাকা করে মোট ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেন।

একই সময় স্থানীয় ফুলকলি সুইটমিট ও রেস্তোরাঁয় অভিযানকালে পঁচা ও খাবার অযোগ্য হালিম রাখার দায়ে ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ডসহ তৈরি হালিম রাস্তায় ফেলে দেয়ার নির্দেশ দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সময় সর্দার সুইটমিটে পাওয়া মেয়াদ উত্তীর্ণ ও বাসি দই পাওয়া গেলে সেগুলি ফেলে দেওয়া এবং পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেন।

পবিত্র মাহে রমযানে রোজাদারদের নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে এমন অভিযান নিয়মিতভাবে অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইসরাত সাদমীন। অভিযানে ভৈরব পৌরসভার স্বাস্থ্য পরিদর্শক নাসিমা বেগম ও পুলিশ সদস্যরা সহযোগিতা করেন বলেও তিনি জানান।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর