কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


বিশ্বকাপের ছক্কা-৫: মাঠে নামছে ইংল্যান্ড-পাকিস্তান


 মো. শাহাদত হোসেন | ৩ জুন ২০১৯, সোমবার, ১২:০৮ | বিশ্বকাপ ফুটবল ’১৮/ ক্রিকেট বিশ্বকাপ ‘১৯ 


আজ (৩ জুন) নটিংহামের ট্রেন্ট ব্রিজে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাঠে নামছে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হেরে যাওয়া পাকিস্তান। আজকের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী ইতোমধ্যে বিশ্বকাপের একটি করে ম্যাচ খেলেছে। ওভালে বিশ্বকাপের প্রথম এবং নিজেদেরও প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে পাত্তাই দেয়নি স্বাগতিক ইংল্যান্ড।

আগে ব্যাট করতে নেমে ৩১১ রান করে তারা। ৭৯ বলে ৮৯ রানের এক অনবদ্য ইনিংস খেলে প্লেয়ার অব দি ম্যাচ হয় বেন স্টোকস। জবাবে ৩৯.৫ ওভারে ২০৭ রানে গুটিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস। ১০৪ রানের বিশাল ব্যবধানে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে দারুণ উজ্জীবিত এউইন মরগানরা।

অন্যদিকে ট্রেন্ট ব্রিজে বিশ্বকাপের দ্বিতীয় এবং নিজেদের প্রথম ম্যাচে লজ্জাজনকভাবে হেরেছে পাকিস্তান। আগে ব্যাট করতে নেমে ২১.৪ ওভারে ১০৫ রানে গুটিয়ে যায় পাকিস্তানের ইনিংস। জবাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ মাত্র ৮২ বল খেলে জয় তুলে নেয়। বিশাল ব্যবধানে জয়ের কারণে এ মুহূর্তে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ আর সবচেয়ে তলানীতে পাকিস্তান।

সুতরাং অসম্ভব হলেও পাকিস্তানের জন্যে আজ (৩ জুন) জয়ের কোন বিকল্প নেই।

এই মুহূর্তে আইসিসি’র র‌্যাংকিং অনুযায়ী ওডিআইয়ে ইংল্যান্ড বিশ্বের সেরা দল। তাদের অবস্থান ১ নম্বরে, আর পাকিস্তানের অবস্থান ৭ নম্বরে। শুধু কি তাই? গত বিশ্বকাপের পর ইংল্যান্ড ৮৮টি ওডিআই খেলে জিতেছে ৫৬টিতে, হেরেছে মাত্র ২৭টিতে। অন্যদিকে একই সময়ে পাকিস্তান ৮০টি ওডিআই খেলে জিতেছে মাত্র ৩৫টিতে, হেরেছে ৪২টিতে। এসব পরিসংখ্যান বলে দেয় যে, ইংল্যান্ড-পাকিস্তান ম্যাচে ইংল্যান্ডই জিতবে।

তবে বিশ্বকাপের ইতিহাসের দিকে তাকালে পাকিস্তানের এতটা হতাশ হওয়ার কিছু নেই। ১৯৭৫ সাল থেকে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড- দু’টো দেশই বিশ্বকাপে খেলছে। দু’টো দেশই গ্রুপ পর্ব থেকে তিনবার করে বিদায় নিয়েছে। এর বাইরে পাকিস্তান একবার চ্যাম্পিয়ন, একবার রানার্স-আপ, চারবার সেমিফাইনাল ও দু’বার কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে।

আর ইংল্যান্ডও কিন্ত কম নয়। তারা চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি, তবে রানার্স-আপ হয়েছে তিন তিনবার। সেমিফাইনাল ও কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে দু’বার করে, সুপার এইটে উঠেছে একবার। অন্যভাবে বলা যায়, ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে ৭২ ম্যাচ খেলে জিতেছে ৪১টিতে। আবার পাকিস্তান বিশ্বকাপে ৭১ ম্যচ খেলে জিতেছে ৪০টিতে। অর্থাৎ বিশ্বকাপে এউইন মরগানদের জয়ের হার ৫৮%, সরফরাজ আহমেদদের জয়ের হারও ৫৮%। বিশ্বকাপের এসব পরিসংখ্যান কিন্তু আজকের (৩ জুন) ইংল্যান্ড-পাকিস্তান ম্যাচটা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হওয়ারই ইঙ্গিত দেয়।

ইংল্যান্ড অভিজ্ঞ ও পরিণত একটি দল। তাদের স্কোয়াডের খেলোয়াড়দের গড় বয়স ২৮.৮। পক্ষান্তরে পাকিস্তান তুলনামূলকভাবে অনভিজ্ঞ ও তরুণ একটা দল। তাদের স্কোয়াডের খেলোয়াড়দের গড় বয়স ২৭.৫।

সব পরিসংখ্যান আর ইতিহাস ভুলে দর্শকরা একটা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচ দেখতে চায়।

(লেখক: মো. শাহাদত হোসেন, সহকারী অধ্যাপক, ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগ, গুরুদয়াল সরকারি কলেজ, কিশোরগঞ্জ। Email: sahadot.hossain@gmail.com)




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর