কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


নিরাপত্তার চাদরে শোলাকিয়া ঈদগাহ, র‌্যাবের হাতে অত্যাধুনিক স্নাইপার রাইফেল


 বিশেষ প্রতিনিধি | ৪ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, ৮:৩৭ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ময়দানে ঈদুল ফিতরের ১৯২তম জামাতকে ঘিরে এবার নজিরবিহীন নিরাপত্তা পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। প্রথমবারের মতো শোলাকিয়ার নিরাপত্তায় এলিট ফোর্স র‌্যাব ব্যবহার করছে অত্যাধুনিক স্নাইপার রাইফেল। মাঠে স্থাপন করা হয়েছে ৬টি ওয়াচ টাওয়ার। ৮৬টি ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে ঈদগাহ ময়দান, আশেপাশের এলাকা এবং অলিগলিসহ মাঠ সংলগ্ন চারপাশ।

পুলিশের নিরাপত্তা পরিকল্পনায় এবারো যুক্ত থাকছে ড্রোন। তিনটি ড্রোন উড়বে শোলাকিয়ার আকাশে। থাকছে পাঁচ প্লাটুন বিজিবি। র‌্যাব-বিজিবি ও পুলিশের ১২০০ সদস্যসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দেড় হাজারের মতো সদস্য দিয়ে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়া হচ্ছে শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানকে।

ঈদগাহ ময়দানের বাইরে, ভেতরে ও প্রবেশ পথে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। ঈদগাহ ময়দানের প্রবেশপথে স্থাপিত আর্চওয়ে দিয়ে মুসল্লিদের ঢুকতে হবে ঈদগাহ ময়দানে। এর আগে আরো অন্তত কয়েক দফা মেটাল ডিটেক্টরে মুসল্লিদের দেহ তল্লাসি করা হবে। নিরাপত্তার স্বার্থে মুসল্লিদের শুধু জায়নামাজ নিয়ে ঈদগাহে আসার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ফলে নিরাপত্তা নিয়ে কোন ঝুঁকি দেখছেন না সংশ্লিষ্টরা।

শোলাকিয়ার ঐতিহ্যবাহী এই ঈদগাহে সকাল ১০টায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এবারও জামাতে ইমামতি করবেন ইসলাহুল মুসলিহীন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ।

মঙ্গলবার (৪ জুন) দুপুরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশ্যে নিরাপত্তা ব্রিফিং করেন পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার)। ব্রিফিংয়ে তিনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সর্বোচ্চ আন্তরিকতা ও পেশাদারি মনোভাব নিয়ে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন।

পরে পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি জানান, শান্তিপূর্ণভাবে ঈদজামাত অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে ৩২টি চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। চেকপোস্টগুলো এমন ভাবে তৈরি করা হয়েছে যে প্রত্যেককে অন্তত তিন বার তল্লাসি হয়ে ঈদগাহে প্রবেশ করতে হবে।

মাঠ ও মাঠের আশপাশ এলাকায় ড্রোনে পর্যবেক্ষণ ছাড়াও ঈদগাহ ময়দানের বাইরে, ভেতরে ও প্রবেশ পথে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। ঈদগাহ এলাকা নিয়ে আসা হচ্ছে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরায় আওতায়। সার্বিক প্রস্তুতির বিবেচনায় নির্বিঘেœ শোলাকিয়ায় মুসল্লিগণ ঈদুল ফিতরের জামাত আদায় করতে পারবেন বলে পুলিশ সুপার আশা প্রকাশ করেন।

এছাড়া বিকালে দ্বিতীয় বারের মতো শোলাকিয়া ঈদগাহ পরিদর্শন করেন র‌্যাব-১৪ ময়মনসিংহের অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ এফতেখার উদ্দিন। তিনি র‌্যাব সদস্যদের সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় দায়িত্ব পালনের নির্দেশনা দেন।

পরে র‌্যাব-১৪ ময়মনসিংহের অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ এফতেখার উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, শোলাকিয়ায় ঈদুল ফিতরের জামাতের নিরাপত্তায় অন্যান্য বাহিনীর মতো সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় থাকবে এলিট ফোর্স র‌্যাব। এছাড়া এবারই প্রথমবারের মতো শোলাকিয়ায় র‌্যাবের নিরাপত্তা বহরে যুক্ত হচ্ছে অত্যাধুনিক স্নাইপার রাইফেল। মাঠে স্থাপন করা ওয়াচ টাওয়ারে স্নাইপাররা অবস্থান নিবেন। দূরবর্তী কোনো স্থানে যদি কোনো সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চোখে পড়ে সেক্ষেত্রে ওয়াচ টাওয়ারে অবস্থান নেয়া স্নাইপাররা স্নাইপিং রাইফেল দিয়ে ব্যবস্থা নেবে।

ঈদগাহ মাঠ পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহদী হাসান জানান, শোলাকিয়ায় এবারের ১৯২তম ঈদুল ফিতরের জামাত শুরু হবে সকাল ১০টায়। এতে ইমামতি করবেন ইসলাহুল মুসলিহীন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসউদ। উপমহাদেশের বৃহত্তম এই ঈদজামাত আয়োজনের সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। সংস্কার করা হয়েছে মিনার, অজুখানা। মুসল্লিদের প্রাকৃতিক কাজ-কর্ম সারার জন্য তৈরি করা হয়েছে বেশকিছূ অস্থায়ী টয়লেট।

দূর-দূরান্ত থেকে আসা মুসল্লিদের সার্বিক নিরাপত্তা ও সুবিধার্থে এবছর মাঠের পাশেই অবস্থিত কুমুদিনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে থাকা-খাওয়ার সু-ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এ ঈদগাহে আসা মুসল্লিদের আপ্যায়ন ও প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য স্থাপন করা হয়েছে অস্থায়ী স্বেচ্ছাসেবী ক্যাম্প। প্রস্তুত রাখা হয়েছে একাধিক মেডিক্যাল টিম। সব মিলিয়ে বৃহত্তম ঈদজামাতের জন্য ২৬৯ বছরের প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দান পুরোপুরি প্রস্তুত বলে জানান ইউএনও মো. মাহদী হাসান।

ভিডিও:




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর