কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ফুফাতো ভাইয়ের খতনা উৎসবে যোগ দেয়া হলো না মরম আলীর, পরিবারে মাতম


 স্টাফ রিপোর্টার | ৯ জুন ২০১৯, রবিবার, ৯:০৪ | ইটনা  


শনিবার (৮ জুন) নিকলী উপজেলার সিংপুর ইউনিয়নের মলাহাটি গ্রামে ফুফাতো ভাই সুমনের সুন্নতে খতনা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে ইটনা উপজেলার সদর ইউনিয়নের পশ্চিমগ্রাম হাজারিকান্দা গ্রামের বাড়ি থেকে একটি ইঞ্জিনচালিত নৌকাযোগে স্বজনদের সাথে রওনা হয়েছিল মরম আলী (১৮)। কিন্তু সেই খতনা উৎসবে আর যোগ দেয়া হলো না তার।

দুপুরের দিকে গন্তব্যের কাছাকাছি পৌঁছার পর সিংপুর বাজারহাটি এলাকার ধনু নদীতে মর্মান্তিক এক নৌ-দুর্ঘটনায় অকালে ঝরে গেছে তার প্রাণ। স্বজনেরা বাড়ি ফিরলেও রোববার (৯ ‍জুন) বিকালে মরম আলী বাড়ি ফিরে প্রাণহীন নিথর দেহে।

স্বজনেরা জানিয়েছেন, মরম আলী তার চাচাতো ভাইসহ অন্যান্য স্বজনদের সাথে নিয়ে একটি ইঞ্জিনচালিত নৌকাযোগে নিকলী উপজেলার সিংপুর ইউনিয়নের মলাহাটি গ্রামে তার ফুফা হারিছ মিয়ার বাড়িতে যাচ্ছিল। উপলক্ষ ফুফাতো ভাই সুমনের সুন্নতে খতনা।

তাদের নৌকাটি সিংপুর বাজারের কাছাকাছি যাওয়ার পর একটি ধানবোঝাই বড় নৌকার সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে মরমদের নৌকার পিছনের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং সেখানে থাকা মরম আলীকে চাপা দেয় বড় নৌকাটি। এ সময় মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে ঘটনাস্থলেই মরম আলীর মৃত্যু হয়।

নিহত মরম আলী ইটনা উপজেলার সদর ইউনিয়নের পশ্চিমগ্রাম হাজারিকান্দা গ্রামের আলতু মিয়ার ছেলে।

মরম আলীর মৃত্যুর সংবাদে পরিবার ও এলাকায় নেমে আসে শোকের ছায়া। ছেলের শোকে মা মিনারা খাতুন বার বার মূর্চ্ছা যান। ছেলের মৃত্যুতে নির্বাক হয়ে যান বাবা আলতু মিয়া।

বিলাপ জুড়ে দেয় আদরের ছোট ভাই ইউসুফ (১২)। অবুঝ ছোট ভাই তোফাজ্জল (৪) বাড়িভর্তি মানুষের ভিড়ে খুঁজে ফিরে বড় ভাই মরম আলীকে।

কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে রোববার (৯ জুন) বিকালে যখন পশ্চিমগ্রাম হাজারিকান্দা গ্রামে মরম আলীর মরদেহ নিয়ে আসা হয় তখন স্বজনদের কান্না আর আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠে এলাকার পরিবেশ।

পরে ইটনা সদরের রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সরকারি কলেজ মাঠে নামাজে জানাজা শেষে কেন্দ্রীয় কবরস্থানে মরদেহ দাফন করা হয়।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর