কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক হলেন কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান দিলসাদ বেগম বেলা


 বিশেষ প্রতিনিধি | ১২ জুন ২০১৯, বুধবার, ১০:২২ | প্রশাসন 


রাজবাড়ী জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি) পদে নিয়োগ পেয়েছেন কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান দিলসাদ বেগম বেলা। মঙ্গলবার (১১ জুন) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপনে দিলসাদ বেগম বেলা সহ বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের ১৯ জন কর্মকর্তাকে ১৯ জেলায় জেলা প্রশাসক (ডিসি) পদে নিয়োগ/বদলি করা হয়েছে।

রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের মাঠ প্রশাসন-২ শাখার উপসচিব মুহম্মদ শাহীন ইমরান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।

রাজবাড়ী জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি) পদে নিয়োগ পাওয়া দিলসাদ বেগম বেলা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে উপসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। ২১তম বিসিএস এর মাধ্যমে চাকুরিতে যোগদান করা দিলসাদ বেগম বেলা উপসচিব হিসেবে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে যোগদান করেছিলেন। এর আগে তিনি উপসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে।

দিলসাদ বেগম বেলা কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার হোসেন্দী গ্রামের বিদ্যুৎ বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ বসিরুল হক ও জরিনা আক্তার খাতুন দম্পতির গর্বিত সন্তান। তিন ভাই ও এক বোনের মধ্যে দিলসাদ বেগম বেলা তৃতীয়।

দিলসাদ বেগম বেলা’র শৈশব-কৈশোর ও বেড়ে ওঠা কিশোরগঞ্জ শহরে। কিশোরগঞ্জ শহরের পশ্চিম হারুয়া এলাকার বাসায় বড় হয়েছেন তিনি। প্রাথমিকের পাঠ চুকিয়েছেন সরকারি আদর্শ শিশু বিদ্যালয়ে।

কিশোরগঞ্জ শহরের ঐতিহ্যবাহী এসভি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৯০ সালে কৃতিত্বের সাথে এসএসসি পাশের পর ভর্তি হন সরকারি গুরুদয়াল কলেজে। গুরুদয়াল কলেজ থেকে ১৯৯২ সালে কৃতিত্বের সাথে এইচএসসি পাশের পর প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন কৃতী শিক্ষার্থী দিলসাদ বেগম বেলা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি বায়ো কেমিস্ট্রিতে অনার্স সহ মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। ২১তম বিসিএস এর মাধ্যমে তিনি প্রশাসন ক্যাডারে নিয়োগপ্রাপ্ত হন।

ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত দিলসাদ বেগম বেলার স্বামী কাজী সাইফুল ইসলাম একটি প্রতিষ্ঠিত প্রাইভেট কোম্পানির পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের গর্বিত জননী।

তথ্যসূত্র ও কৃতজ্ঞতা: একেএম শামছুল ইসলাম খান মাসুম, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক, জেলা আওয়ামী লীগ, কিশোরগঞ্জ।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর