কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


নাসা বিজয়ী টিম নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছেন কিশোরগঞ্জের সন্তান প্রযুক্তিবিদ দিদারুল আলম সানি


 স্টাফ রিপোর্টার | ২২ জুন ২০১৯, শনিবার, ৩:১৬ | তথ্য প্রযুক্তি 


যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা আয়োজিত স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জে বিজয়ী হয়েছে বাংলাদেশের টিম অলিক। ১৩৯৫টি দলকে হারিয়ে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার খেতাব অর্জন করে বাংলাদেশ দল। গত ১৬ ফেব্রুয়ারি এই ফল ঘোষণা করা হয়।

নাসায় বাংলাদেশ এর এই বিশ্বজয়ের পর এবার ‘নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮’ এর আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে বাংলাদেশের বিজয়ী দল ‘টিম অলিক’কে নাসার কেনেডি স্পেস সেন্টার ভ্রমণের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের খেতাব অর্জন করা শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘টিম অলিক’ এর প্রোগ্রাম কনভেনার হিসেবে রয়েছেন কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান প্রযুক্তিবিদ দিদারুল আলম সানি। বিজয়ী দলের প্রোগ্রাম কনভেনার হিসেবে নাসা ভ্রমণে যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছেন দিদারুল আলম সানি।

নাসা আর্থ সায়েন্স ডিভিশন এর ভারপ্রাপ্ত উপপরিচালক পলা বনতেমপি স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বুধবার (১৯ ‍জুন) দিদারুল আলম সানিকে এ সংক্রান্ত একটি আমন্ত্রণ পত্র প্রেরণ করা হয়। পত্রে আগামী ২১ থেকে ২৩ জুলাই নাসা আয়োজিত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

দিদারুল আলম সানি কিশোরগঞ্জ সদর আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম আলমগীর হোসেন এর কনিষ্ঠ পুত্র। তিনি দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বাণিজ্য সংগঠন বেসিস এর পরিচালক এবং শুটিং স্টার লিমিটেড এর মহাব্যবস্থাপক।

এ ব্যাপারে দিদারুল আলম সানি বলেন, ব্যাপারটা যখন নাসায় বাংলাদেশ এর বিশ্ব জয়, প্রোগ্রাম কনভেনার হিসেবে থাকাটা গর্বের| শাহজালাল ইউনিভার্সিটির বিশ্বের সবচে বড় হ্যাকাথন - নাসা স্পেস এপস বিজয়ী দলকে নিয়ে এবার নাসা ভ্রমণ এর পালা| ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের প্রচেষ্টায় গ্লোবাল আইসিটি ব্র্যান্ড ইনডেস্ক এ এই অর্জন এক বিশাল ভুমিকা রাখবে|

এ জন্যে তিনি বেসিস এর সকল মেন্টর, এডভাইজার ও ইসি যারা গত ৫ বছর অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন এবং জয়েন্ট কনভেনার আরিফুল হাসান অপুকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা আয়োজিত স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জে বেস্ট ইউজ অব ডেটা ক্যাটেগরিতে বাংলাদেশের টিম অলিক এর প্রজেক্ট ‘লুনার ভিআর’ সারা বিশ্বের ১৩৯৫টি দলের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে বিজয়ী হয়। ‘লুনার ভিআর’ প্রজেক্টটি মূলত একটি ভার্চুয়াল রিয়েলিটি অ্যাপ্লিকেশন যার মাধ্যমে ব্যবহারকারী চাঁদে ভ্রমণের অভিজ্ঞতা পাবেন।

নাসার সরবরাহ করা বিভিন্ন রিসোর্স থেকে থ্রিডি মডেল ও তথ্য সংগ্রহ করে, নাসা অ্যাপোলো ১১ মিশনের ল্যান্ডিং এরিয়া ভ্রমণ, চাঁদ থেকে সূর্যগ্রহণ দেখা এবং চাঁদকে একটি স্যাটেলাইটের মাধ্যমে আবর্তন করা এই তিনটি ভিন্ন পরিবেশকে ভার্চুয়ালভাবে তৈরি করেছে টিম অলিক।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) পক্ষ থেকে অংশ নেওয়া দলটির সদস্যরা হলেন, সাব্বির হাসান, আবু সাবিক মাহদি, বিশ্বপ্রিয় চক্রবর্তী, কাজী মাইনুল ইসলাম ও এস. এম. রাফি আদনান।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর