kishoreganjnews.com:কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা

ফুলের দামে ধাক্কা



 তাফসিলুল আজিজ | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, বুধবার, ১:০১ | অর্থ-বাণিজ্য 


একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে ঘিরে কিশোরগঞ্জে চড়া ছিল ফুলের দাম। এ দিবস ছাড়াও  বসন্তবরণ, ভালোবাসা দিবস, পূজার সময় দুই থেকে তিনগুণ বেড়ে যায় ফুলের দাম। আর এসব দিবসকে ঘিরে রমরমা ব্যবসা করেন ফুল ব্যবসায়ীরা।

কোনো দিবসকে ঘিরে ফুলের হঠাৎ দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় ক্রেতারা অসন্তোষ প্রকাশ করেন। তবে বিক্রেতারা বলেন, তাদের করার কিছুই নাই। কারণ প্রতিটি দিবসের আগেই বেশি দামে ফুল কিনতে হয়। সেজন্যই ক্রেতা অসন্তোষ থাকলেও বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।

মঙ্গলবার কিশোরগঞ্জ শহরের কয়েকটি ফুলের দোকান ঘুরে পাওয়া যায়, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ফুলের ডালা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন ব্যবসায়ীরা। এসময় হৃদয় পেপার স্টোরের মালিক বিষ্ণু বনিকসহ কয়েকজন ফুল বিক্রেতা বলেন, ফেব্রুয়ারি মাসকে ফুল ব্যবসার মৌসুম বলে মনে করা হয়। এ মাসের বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠান ঘিরে ফুলের ব্যবহার বাড়ে। তবে এবার অন্য বছরগুলোর চেয়ে ফুলের চাহিদা একটু বেশি।

তারাঁ বলেন, ভালোবাসা দিবস ও পহেলা ফাল্গুনে গোলাপ বা আরো তিন চার ধরনের ফুলের চাহিদা বেশি থাকে। একটি দুটি ফুল বা ফুলের তোরার বেশি কেউ কেনেন না। সব শ্রেণির মানুষ এসব দিবস তেমন পালনও করেন না। কিন্তু ভাষা দিবস সারা দেশেই বিপুল উৎসাহে পালিত হয়। ফলে চাহিদা বাড়ে।

তবে ক্রেতারা বলেন, ভাষা দিবস চলে গেলে ফুলের দাম আবারও কমে যাবে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, ক্যাপ গোলাপ প্রতিটি ৪০টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যা কয়েকদিন আগেও ছিল ২০টাকা। তেমনি লিংকন গোলাপ, ম্যারেন্ডা গোলাপের দাম ১০টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ২৫টাকা। ১৫টাকার গার্ডিওলাসের দাম বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ৩০টাকা। বিশেষ করে ভাষা দিবস উপলক্ষে অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যায় গাদা ফুলের দাম। আগের ৮টাকার গাদা ফুলের চেইন এ দিবস উপলক্ষে হয়ে যায় ৩০টাকা।

এছাড়া রজনীগন্ধা, জারবেরা, কেলোনজরা, চন্দ্রমল্লিকা, বেলি, কামিনী, জিপসি, স্টারকলি, ডালিয়াসহ বিভিন্ন ধরনের ফুলের দাম বৃদ্ধিসহ কাচা মালের দাম  বেড়ে যায়। সেজন্য আগে মাঝারি ধরণের যে ফুলের ডালা ৬০০ থেকে ৭০০টাকায় পাওয়া যেত। সেটা মঙ্গলবার ক্রেতাদের ১২০০ থেকে ১৪০০ কিনতে হয়।

তবে দাম বাড়লেও বছরের এসময় বেশি দামে ফুল কিনতে কার্পণ্য করেন না ক্রেতারা। ৫০০ টাকা থেকে ২০০০ টাকা দামের ফুলের ঢালা বেশি পাওয়া যায় কিশোরগঞ্জে। তবে ১০০০ টাকা দামের ঢালাগুলোই বেশি বিক্রি হয় বলে জানান ব্যবসায়ীরা।

জেলার করিমগঞ্জ থেকে আসা শিক্ষক নজরুল ইসলাম তাঁর বিদ্যালয়ের জন্য ৩০ ইঞ্চি একটি শ্রদ্ধাঞ্জলির ফুলের ডালা কিনে নেন ১৪০০ টাকায়। তিনি বলেন, আগের বছর এ ধরণের ডালার দাম ছিল ৮০০ টাকা। কিন্তু এখন এটি ১৪০০ টাকায় কিনতে হচ্ছে। গত বছরের চেয়ে এবার ফুলের দাম প্রায় দ্বিগুণ হয়ে গেছে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]


এ বিভাগের আরও খবর



















সেগুনবাগিচা, গৌরাঙ্গবাজার, কিশোরগঞ্জ-২৩০০
মোবাইল:০ ১৮১৯ ৮৯১০৮৮, ০১৮৪১ ৮১৫৫০০
kishoreganjnews247@gmail.com
Web: www. kishoreganjnews.com
প্রধান সম্পাদক: আশরাফুল ইসলাম
সম্পাদক: সিম্মী আহাম্মেদ