কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


২০১৯ সালের জেএসসি পরীক্ষার সময়সূচি


 কিশোরগঞ্জ নিউজ ডেস্ক | ৪ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১২:৪২ | শিক্ষা  


২০১৯ খ্রিস্টাব্দের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষার প্রস্তাবিত সময়সূচি অনুমোদন করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক প্রস্তাবিত সময়সূচি বুধবার (৩ জুলাই) অনুমোদন দেয়া হয়।

আগামী ২ নভেম্বর থেকে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের এই পরীক্ষা শুরু হবে। পরীক্ষা শেষ হবে ১১ নভেম্বর।

এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা নিম্ববর্ণিত সময়সূচি অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে। বিশেষ প্রয়োজনে বোর্ড কর্তৃপক্ষ এ সময়সূচি পরিবর্তন করতে পারবে।

সময়সূচি অনুযায়ী, ২ নভেম্বর (শনিবার) সকাল ১০টায় বাংলা বিষয়ের (বিষয় কোড ১০১) পরীক্ষা শুরু হবে।

৪ নভেম্বর (সোমবার) সকাল ১০টায় ইংরেজি বিষয়ের (বিষয় কোড ১০৭) পরীক্ষা শুরু হবে।

৫ নভেম্বর (মঙ্গলবার) সকাল ১০টায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ের (বিষয় কোড ১৫৪) পরীক্ষা শুরু হবে।

৬ নভেম্বর (বুধবার) সকাল ১০টায় ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা (বিষয় কোড ১১১)/হিন্দুধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা (বিষয় কোড ১১২)/বৌদ্ধধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা (বিষয় কোড ১১৩)/খ্রিস্টধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা (বিষয় কোড ১১৪)বিষয়ের পরীক্ষা শুরু হবে।

৭ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) সকাল ১০টায় বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বিষয়ের (বিষয় কোড ১৫০) পরীক্ষা শুরু হবে।

৯ নভেম্বর (শনিবার) সকাল ১০টায় গণিত বিষয়ের (বিষয় কোড ১০৯) পরীক্ষা শুরু হবে।

১১ নভেম্বর (সোমবার) সকাল ১০টায় বিজ্ঞান বিষয়ের (বিষয় কোড ১২৭) পরীক্ষা শুরু হবে।

জেএসসি পরীক্ষার্থীদের বিশেষ নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ১. পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষাকক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে। ২. প্রশ্নপত্রে উল্লিখিত সময় অনুযায়ী পরীক্ষা গ্রহণ করতে হবে। ৩. সৃজনশীল ও বহুনির্বাচনী পরীক্ষায় একই উত্তরপত্র ব্যবহার করতে হবে।

৪. শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য, কর্ম ও জীবনমুখী শিক্ষা এবং চারু ও কারুকলা, কৃষি শিক্ষা, গার্হস্থ্য বিজ্ঞান, আরবি, সংস্কৃত, পালি বিষয়সমূহ এনসিটিবির নির্দেশনা অনুসারে ধারাবাহিক মূল্যায়নের মাধ্যমে প্রাপ্ত নম্বর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রকে সরবরাহ করতে হবে। পরীক্ষার্থীর রোল নম্বর পাওয়ার পর সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র পরীক্ষা চলাকালীন বোর্ডের ওয়েবসাইটে অনলাইনের মাধ্যমে ধারাবাহিক মূল্যায়নের প্রাপ্ত নম্বর এন্ট্রি করে পাঠাবে।

৫. পরীক্ষার্থীরা তাদের প্রবেশপত্র নিজ নিজ প্রতিষ্ঠান প্রধানের কাছ থেকে পরীক্ষা আরম্ভের কমপক্ষে তিন দিন আগেই সংগ্রহ করবে।

৬. পরীক্ষার্থীগণ তাদের নিজ নিজ উত্তরপত্রের OMR ফরমে তার পরীক্ষার রোল নম্বর, রেজিস্ট্রেশন নম্বর, বিষয় কোড ইত্যাদি যথাযথভাবে লিখে বৃত্ত ভরাট করবে। কোন অবস্থাতেই উত্তরপত্র ভাঁজ করা যাবে না।

৭. পরীক্ষার্থীকে প্রত্যেক বিষয়ে স্বাক্ষরলিপিতে অবশ্যই স্বাক্ষর করতে হবে।

৮. প্রত্যেক পরীক্ষার্থী কেবল নিবন্ধনপত্রে বর্ণিত বিষয়/বিষয়গুলোর পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে। কোনো অবস্থাতেই ভিন্ন বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।

৯. পরীক্ষার্থীগণ পরীক্ষায় সাধারণ সাইন্টিফিক ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে পারবে।

১০. কোন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল ফোন আনতে পারবে না।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর