kishoreganjnews.com:কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা

হাওরের বাতিঘর জান্নাতুল


 খাইরুল মোমেন স্বপন, স্টাফ রিপোর্টার, নিকলী | ১০ জানুয়ারি ২০১৮, বুধবার, ১০:১৬ | শিক্ষা  


সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের ভাসমান বিদ্যালয় ছাত্রী জান্নাতুল প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে হাওরবাসীর শিক্ষা ক্ষেত্রে মাইলফলক হয়ে উঠেছে। তার এ সাফল্য কিশোরগঞ্জের নিকলীসহ প্রত্যন্ত হাওরের শিক্ষা ব্যবস্থায় আশার সঞ্চার করছে।

জানা গেছে, হাওর উপজেলা নিকলীর সিংপুর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত গ্রাম গোরাদিঘা। বিস্তীর্ণ হাওরের বুকে দ্বীপগ্রামটিতে কয়েক হাজার কৃষি এবং মৎস্যজীবী মানুষের বাস। সরকারি প্রাথমিক ও একমাত্র বিদ্যালয়টি দুর্গম এলাকায় হওয়ায় শিক্ষক সংকট এখানে নৈমত্তিক। কদাচিৎ দুয়েকজন শিক্ষক এখানে আসলেও থাকতে চান না। উৎসাহী অভিভাবকরা কয়েক কিলোমিটার দূরের বিদ্যালয়ে কোমলমতি শিশুদের পাঠান নদীপথে। ফলে অভিভাবকরা শিক্ষায় নিরুৎসাহী।

বেসরকারি সংস্থা পপি এবং স্থানীয় শিক্ষানুরাগীদের উৎসাহে ২০১০ সালে একটি লঞ্চে ভাসমান বিদ্যালয় গড়ে তোলা হয়। দিনে দিনে গ্রামটিতে অক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন লোকসংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও উচ্চ শিক্ষিতের হার বলতে গেলে নেই। গ্রামের কৃষক লহুর উদ্দিনের কন্যা জান্নাতুলের ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হওয়ায় গ্রামবাসীর আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠে জান্নাতুল।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মিরাজ আলী মেম্বার বলেন, আমরা গ্রামবাসী বেশির ভাগই নিরক্ষর। জান্নাতুল কি পেয়েছে না বুঝলেও ভালোভাবে পাস করেছে এবং পড়াশোনার সুযোগ পেলে ভবিষ্যতে আরো ভালো করবে বলে গ্রামবাসী আনন্দিত। জান্নাতুল দৃষ্টান্ত হয়ে শিশু শিক্ষায় গ্রামবাসীকে উদ্বুদ্ধ করছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবু তাহের ভূঁইয়া বলেন, ভাসমান বিদ্যালয়টি ঝরে পড়া শিশুদের জন্য। হাওর গ্রামগুলোতে ঝরে পড়ার সংখ্যা বেশি। এই বিদ্যালয় না থাকলে এ সব শিক্ষার্থী পাওয়া কঠিন হতো।
জান্নাতুলের প্রতিবেশী কৃষক মানিক মিয়া বলেন, নজর দিলে আমাদের সন্তানরাও কিছু করতে পারবে বলে বিশ্বাস হচ্ছে। জান্নাতুল তার উদারণ। আগে বাচ্চার পড়াশোনা নিয়ে তেমন ভাবতাম না।

জান্নাতুলের পিতা লহুর উদ্দিন জানান, বাচ্চারা বাড়িতে থেকে বিরক্ত করে। জান্নাতুলকে বিরক্তি থেকে বাঁচতেই স্কুলে পাঠাতাম। এখন তো শুনছি সে ভালো কিছু করেছে। উপরের ক্লাসে পড়ার স্কুলতো আশেপাশে নেই। দূরে পাঠিয়ে পড়ানোর ক্ষমতাও নেই। জান্নাতুল পড়তে চায়। গ্রামবাসীও জান্নাতুলকে পড়াতে বলছে। বড় ভাবনায় আছি।



[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর



















সেগুনবাগিচা, গৌরাঙ্গবাজার, কিশোরগঞ্জ-২৩০০
মোবাইল:০ ১৮১৯ ৮৯১০৮৮
kishoreganjnews247@gmail.com
Web: www. kishoreganjnews.com
প্রধান সম্পাদক: আশরাফুল ইসলাম
সম্পাদক: সিম্মী আহাম্মেদ