কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পাকুন্দিয়ায় ভিয়েতনামী ‘নারিকেল গ্রাম’ উদ্বোধন


 স্টাফ রিপোর্টার | ১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৬:৩১ | পাকুন্দিয়া  


পাকুন্দিয়া উপজেলার এগারসিন্দুর ইউনিয়নের খামা গ্রাম এবার ভিয়েতনামী নারিকেল গ্রামের স্বীকৃতি লাভ করলো। খামা গ্রামটি এর আগে ভার্মি কম্পোস্ট (কেঁচো সার) হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছিল।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে খামা গ্রামের আমতলীতে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কৃষিবিদ মীর নুরুল আলম ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ঢাকা অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ ড. রফিকুল ইসলাম খামা গ্রামটিকে ভিয়েতনামী নারিকেলের গ্রাম হিসেবে ঘোষণা দেন এবং এর শুভ উদ্বোধন করেন।

এসময় জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. মতিউর রহমান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল হাসান আলামিন, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. আব্দুস সামাদ ও আঙ্গিয়াদী ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ হামিমুল হক সোহাগসহ অন্যান্য কৃষি কর্মকর্তা ও স্থানীয় কৃষকেরা উপস্থিত ছিলেন।

পরে অতিথিবৃন্দ খামা গ্রামের কয়েকজন কৃষকের বাড়ি ও রাস্তার পাশে লাগানো ভিয়েতনামী নারিকেলের চারা পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শনকালে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মীর নুরুল আলম কৃষকদের রৌদ্রজ্জোল উঁচু জায়গায় চারা লাগানো ও লাগানোর পর চারার পরিচর্যা অব্যাহত রাখতে বিভিন্ন পরামর্শ দেন। সঠিকভাবে চারা লাগানো ও পরিচর্যা করা হলে নির্দিষ্ট সময়ে অধিক ফলন পাওয়া যাবে বলে তিনি জানান।

এরপর গ্রামের জালাল উদ্দিনের কেঁচো খামার ও আঙ্গিয়াদী টানপাড়া সিআইজিতে এআইএফটু ফান্ড হতে প্রাপ্ত বীজ সংরক্ষণ ড্রাম, পাওয়ার টিলার, এলএলপি, ফুটপাম্প, স্প্রে মেশিন পরির্দশন করেন মহাপরিচালক।

উল্লেখ্য, ভার্মি কম্পোস্ট (কেঁচো সার) গ্রাম হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া খামা গ্রামটি আধুনিক কৃষি প্রযুক্তিতে এ গ্রামটি মডেল গ্রাম হিসেবে ভূমিকা রেখে আসছে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর