কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দান রক্ষায় আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা


 স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ২:০০ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ রক্ষায় আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দান সংলগ্ন চত্বরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নাগরিক অধিকার সুরক্ষা মঞ্চ এ কর্মসূচি ঘোষণা করে। ঘোষিত কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে রাষ্ট্রপতি ও কিশোরগঞ্জের ছয়জন সংসদ সদস্যের সাথে সাক্ষাৎ করে শোলাকিয়া ঈদগাহের ঐতিহ্য ও মর্যাদা রক্ষার দাবির যৌক্তিকতা তুলে ধরা, এ দাবির সমর্থনে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযান, স্থানীয় বুদ্ধিজীবী, শিক্ষাবিদ, সূধীজন ও আলেম সমাজের সাথে মতবিনিময় এবং ধারাবাহিকভাবে মানববন্ধন ও সভা-সমাবেশ করা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন নাগরিক অধিকার সুরক্ষা মঞ্চের আহ্বায়ক শেখ সেলিম কবীর। এ সময় এ দাবির যৌক্তিকতা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন সাবেক পৌর মেয়র আবু তাহের মিয়া, শিক্ষাবিদ আবু খালেদ পাঠান, সাংস্কৃতিক কর্মী আবুল এহসান অপু, মাওলানা আবুল কাশেম জিহাদী, মাওলানা ইলিয়াস আমিনী, অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম দুলাল, কামরুল হাসান মুকুল প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, মডেল মসজিদ কাম ইসলামিক কালচারাল সেন্টার প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী খাস জমি নির্বাচন করতে হবে। যদি খাস জমি না পাওয়া যায় সেক্ষেত্রে সরকারি বিধি মোতাবেক ৪০ শতাংশ জায়গা অধিগ্রহণের মাধ্যমে ক্রয় করে কমপ্লেক্স নির্মাণ করতে হবে। কিন্তু তা না করে কোন যুক্তিতে, কী স্বর্থে কে বা কারা এ রকম কা-জ্ঞানহীন ও অবিবেচনাপ্রসুত সিদ্ধান্ত নেবার সাহস রাখেন তা খুঁজে বের করার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

এছাড়া কোন সভায় কাদের মাধ্যমে শোলাকিয়া ঈদগাহে মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তা আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাষ্ট্রপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্যদের নজরে আনারও দাবি জানানো হয় প্রশাসনের প্রতি।

সংবাদ সম্মেলনে মডেল মসজিদ কাম ইসলামিক কালচারাল সেন্টারটি শোলাকিয়া ঈদগাহের পাশের গরুর হাটে নির্মাণের জন্যও দাবি জানানো হয়। দাবি মানা না হলে আরো বৃহত্তর কর্মসুচি ঘোষণা করা হবে বলে জানানো হয়।

উল্লেখ্য, মডেল মসজিদ কাম ইসলামিক কালচারাল সেন্টার প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য স্থানীয় প্রশাসন আড়াইশত বছরের ঐতিহ্যবাহী শোলাকিয়া ঈদগাহকে বেছে নেয়। জনদাবি উপেক্ষা করে প্রশাসনের এ কার্যকলাপের প্রতিবাদে কিশোরগঞ্জের বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ আন্দোলন শুরু করেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর