কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


তাড়াইলে সাত পুলিশকে আহত করেও ছিনিয়ে নিতে পারেনি আসামি


 স্টাফ রিপোর্টার | ১২ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ২:৪৩ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে পুলিশের হাত থেকে আসামি ছিনিয়ে নিতে গিয়ে পুলিশের সাত সদস্যকে আহত করেছে আসামির সহযোগীরা। তবে পুলিশের দৃঢ়তায় তারা আসামি ছিনিয়ে নিতে পারেনি। আহত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে তাড়াইল থানার এসআই রাজীব আহমেদ এর অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এছাড়া এএসআই হেমন্ত দেবনাথকে তাড়াইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে এবং পুলিশের বাকি পাঁচ সদস্য তাড়াইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

সোমবার (১১ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাড়াইল উপজেলার তাড়াইল-সাচাইল সদর ইউনিয়নের দড়িজাহাঙ্গীরপুর দশদ্রোন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

তাড়াইল থানার ওসি মো. মুজিবুর রহমান জানান, সোমবার (১১ নভেম্বর) রাতে দড়িজাহাঙ্গীরপুর দশদ্রোন গ্রামে চুরির মামলার আসামি হিরন মিয়াকে ধরতে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় হিরন মিয়াকে পুলিশ গ্রেপ্তার করলে হিরন মিয়ার পরিবারের দুই সদস্য আউয়াল মিয়া ও রহিমা বেগম তাদেরকে ছাড়িয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। পুলিশের কাজে বাধা দেয়ায় আউয়াল মিয়া ও রহিমা বেগমকেও আটক করে পুলিশ।

এ সময় তাদের ডাক-চিৎকারে সহযোগীরা এসে পুলিশের ওপর চড়াও হয়। তাদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে এসআই রাজীব আহমেদ ও এএসআই হেমন্ত দেবনাথ গুরুতর আহত হন। এছাড়া অভিযানে অংশ নেয়া পুলিশের আরো পাঁচ সদস্য কমবেশি আহত হন।

আহতদের মধ্যে এসআই রাজীব আহমেদ এর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রাতেই তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এছাড়া এএসআই হেমন্ত দেবনাথকে তাড়াইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে এবং বাকিরা হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

ওসি মো. মুজিবুর রহমান আরো জানান, গ্রেপ্তার হওয়া তিনজন ছাড়াও এ ঘটনার পর অভিযান চালিয়ে জড়িত সন্দেহে আরো ছয়জনকে আটক করা হয়েছে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর