কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভৈরবে ১৮-১৯ নভেম্বর দুই দিনব্যাপী কর মেলা


 সোহেল সাশ্রু, ভৈরব | ১৪ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১২:৪৮ | ভৈরব 


করসেবা প্রদান ও কর সচেতনতা বাড়াতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) অধীন কর অঞ্চল-০৫, ঢাকা এর আয়োজনে ভৈরব উপজেলায় আয়কর মেলা-২০১৯ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ভৈরব প্রেসক্লাবে দুই দিনব্যাপী এই কর মেলার আয়োজন করা হয়েছে। আগামী ১৮ নভেম্বর সোমবার ও ১৯ নভেম্বর মঙ্গলবার এই মেলা অনুষ্ঠিত হবে। মেলা সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলবে।

অনুষ্ঠানে কর সার্কেল-১০০ (ভৈরব) কর অঞ্চল-৫, ঢাকা সহকারী কর কমিশনার মো. আব্দুর রশিদ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, কর অঞ্চল-০৫, ঢাকা’র কর কমিশনার সোয়ায়েব আহমেদ।

এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, কর অঞ্চল-০৫, ঢাকা অতিরিক্ত কর কমিশনার মোহাম্মদ মাহমুদুজ্জামান, ভৈরব উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. সায়দুল্লাহ মিয়া, ভৈরব পৌরসভার মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট ফখরুল আলম আক্কাছ, ভৈরব চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি সভাপতি আলহাজ্ব হুমায়ুন কবির।

কর সার্কেল-১০০ (ভৈরব) কর অঞ্চল-৫, ঢাকা সহকরী কর কমিশনার মো. আবদুর রশিদ জানান, দেশের সব জেলা ও উপজেলাতে কর মেলা অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলাগুলোতে দুই দিন মেলা অনুষ্ঠিত হবে। এবারের মেলার প্রতিপাদ্য “আয়করে প্রবৃদ্ধি, দেশ ও দেশের সমৃদ্ধি”।

তিনি বলেন, “প্রতিবছরের মত করদাতারা এবারের মেলায়ও আয়কর বিবরণীর ফরম দাখিল থেকে শুরু করে কর পরিশোধের জন্য ব্যাংক বুথ পাবেন। তাদের জন্য মেলায় সহায়তাকেন্দ্রে অপেক্ষা করবেন কর কর্মকর্তারা। একই ছাদের নিচে সব সেবা পাওয়া যাবে। করদাতা শুধু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে আনলেই হবে।”

তিনি জানান, মেলায় ই-টিআইএন নিবন্ধন ও আয়কর বিবরণী গ্রহণ, কর পরিশোধ, আয়কর বিবরণী পূরণে সহায়তা এবং কর শিক্ষা প্রদানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা থাকবে।

করদাতাদের সুবিধার্থে এবারের মেলায় কর সংক্রান্ত সকল তথ্য সম্বলিত একটি ওয়েবসাইট এবং কর পরিশোধে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু করা হয়েছে।

ওয়েবসাইট থেকে আয়কর বিবরণী ফরম ও চালান ফরম ডাউনলোড করার পাশাপাশি সব ধরনের নির্দেশিকা পাওয়া যাবে। তাই করমেলার ন্যায় অধিকাংশ সুবিধা ঘরে বসেই ভোগ করতে পারবেন করদাতারা।

মোশাররফ হোসেন ভূইয়া আরো জানান, এই মেলায় দুই হাজারের মতো আয়কর বিবরণী দাখিল হবে বলে প্রত্যাশা করছি।

উল্লেখ্য, প্রতিবছর ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত আয়কর বিবরণী জমা দেওয়া যায়।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর