কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভেলোরের মত ঢাকাতেও চালু হল নামমাত্র খরচের সেন্ট জন ভিয়ানী হাসপাতাল


 কিশোরগঞ্জ নিউজ ডেস্ক | ১৬ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার, ১:৫৬ | রকমারি 


ভেলোর, চেন্নাই, বেঙ্গালুরুর মত বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাতেও মানব সেবার পরম ব্রত নিয়ে চালু হল নাম মাত্র খরচের ক্রিশ্চিয়ান হাসপাতাল। নাম সেন্ট জন ভিয়ানী হাসপাতাল। এটি চার্চ মিশনারী হাসপাতাল।

গত ১১ নভেম্বর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হয়েছে সেন্ট জন ভিয়ানী হাসপাতাল। তেজগাঁওয়ে তেজকুনিপাড়ার ৯ হলি ক্রস কলেজ রোডে হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এই মিশনারী হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা স্বল্পমূল্যে সেবা দেওয়া হবে।

ভারতবর্ষে চিকিৎসা সেবায় অগ্রণী ভূমিকা রেখে আসছে এই সেবা সম্প্রদায়। দক্ষিণ ভারতের নানা বড় শহরে রোগী সেবায় সবার আগে এই চার্চ ও গির্জাকেন্দ্রিক হাসপাতাল। নার্সিংয়ে তাদের ভূমিকা অনন্য সমগ্র উপমহাদেশ জুড়ে।

বাংলাদেশে শিক্ষায় তারা অগ্রণী ভূমিকা রেখে আসছে বৃটিশ আমল থেকে। হলিক্রস, সেন্ট জোসেফ, নটর ডেম কলেজ বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষিত নাগরিক তৈরিতে বিরাট অবদান রাখছে। এবার এই সেবা সম্প্রদায়টি এগিয়ে এসেছে হাসপাতাল ও রোগী সেবায়।

হাসপাতালটি সম্পর্কে নির্বাহী পরিচালক ফাদার কমল কোড়াইয়া বলেন, হাসপাতালটি পরিচালিত হবে ফাদার-সিস্টারদের দ্বারা। ঢাকা শহরে মিশনারীদের দ্বারা পরিচালিত এটি হবে প্রথম হাসপাতাল যেখানে জাতি-ধর্ম-বর্ণ সব ধরনের মানুষ স্বাস্থ্য সেবা পাবেন। আপাতত, সকাল ৮টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত রোগীরা সেবা পাবেন। ১লা জানুয়ারী ২০২০ খ্রিস্টব্দ থেকে ২৪ ঘন্টার জন্য সেবা দেওয়া হবে হাসপাতালটি থেকে।

ফাদার কমল বলেন, ‘ঢাকায় মিশনারী স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে, তবে স্বাস্থ্য খাতে সেবা দেওয়ার জন্য কোন হাসপাতাল নাই- সেই চিন্তা থেকেই হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করার চিন্তা। প্রাথমিকভাবে ল্যাব, ফিজিও থেরাপি, জরুরী বিভাগ, মাইনর ওটি, সিজারিয়ান ওটি, বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের চেম্বার থাকবে- যেখানে মানুষ স্বল্প মূল্যে ভাল মানের সেবা পাবে।’

ঢাকা কাথলিক মহাধর্মপ্রদেশের উদ্যোগে সেন্ট জন ভিয়ানী হাসপাতালটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি। তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন ভাটিকান রাষ্ট্রদূত আর্চবিশপ জর্জ কোচেরী ও ঢাকার সহকারী বিশপ শরৎ ফ্রান্সিস গমেজসহ অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তি।

সভাপতি কার্ডিনাল প্যট্রিক ডি’রোজারিও, সিএসসি বলেন, অনেকদিনের বাসনা ছিলো একটি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করা। সেন্ট জন ভিয়ানী হাসপাতালের প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সে আশা পূর্ণ হলো। এ হাসপাতালের মাধ্যমে জাতি-ধর্ম-বর্ণ সকলকে সেবা দেওয়া হবে। সেবার সাক্ষ্য বহন করা হবে।

তিনি বলেন, হাসপাতালটি যাত্রা শুরু করলো একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে। অনেক উপকারী বন্ধুর সাহায্য দরকার। আমাদের ইতিমধ্যে একটি ধর্মসংঘ এবং একটি পরিবার আমাদের চিকিৎসার উপকরণ দিয়েছেন। তাদের কৃতজ্ঞতা জানাই। কার্ডিনাল হাসপাতালের পরিচালক, কর্মীদের সঠিকভাবে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান।

হাসপাতালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, এমপি বলেন, ‘আমারা গর্বিত তেজগাঁয়ে এই হাসপাতাল হচ্ছে। এখানে নামী স্কুল রয়েছে। আরো বিভিন্ন সমবায় প্রতিষ্ঠান রয়েছে। আপনাদের মধ্যে ভ্রাতৃত্ব আমাদের আকৃষ্ট করে। এই এলাকায় চারশ বছর ধরে খ্রিষ্টভক্তরা শান্তিতে বসবাস করছেন।’

নতুন প্রতিষ্ঠিত এই মিশনারী হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা স্বল্পমূল্যে সেবা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের নির্বাহী পরিচালক ফাদার কমল কোড়াইয়া। তিনি বলেন, অনেক পথ আমাদের যেতে হবে। আমাদের হাসপাতালের স্বপ্ন দেখা শুরু। স্বপ্ন বাস্তবায়নে আপনাদের সহযোগিতা দরকার। যা শুরু হয়েছে তা যেন বাস্তবায়ন হয়।

তিনি বলেন, ‘মাদার তেরেজা যেমন দরদ ও ভালবাসা দিয়ে রোগীদের সেবা দিয়েছেন, এই হাসপাতালেও তেমনি দরদ ও ভালবাসা দিয়ে ডাক্তার-নার্সগণ রোগীদের সেবা করবেন।’

ভাটিকান রাষ্ট্রদূত আর্চবিশপ জর্জ কোচেরী এ দেশে কাথলিকদের শিক্ষায় অবদানের কথা উল্লেখ করে বলেন, আমি আশা করি নব প্রতিষ্ঠিত সেন্ট জন ভিয়ানী হাসপাতালও সুনামের সাথে সেবা দিবে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর