কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


একজন জনবান্ধব প্রশাসকের বিদায়


 আমিনুল ইসলাম বাবুল | ২৬ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৭:৩৯ | তাড়াইল  


মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ম শেখ হাসিনা জনবান্ধব প্রশাসন প্রতিষ্ঠার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি) একুশ শতকের উপযোগী যোগ্য ও মেধাবী লোকবল বাছাই করে অধিকতর দক্ষ, সৎ ও মেধাবী লোকবল বাছাইয়ের দায়িত্ব পিএসসির।

এমনি একজন মেধাবী বিসিএস : ৩৪ ব্যাচের জনবান্ধব প্রশাসনের যোগ্য উত্তরসূরি মো. মোশারেফ হোসাইন। তিনি ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ ১৫ এপ্রিল সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসেবে কিশোরগঞ্জ জেলার তাড়াইল উপজেলায় যোগদান করেন।

ভাল আর মন্দ নিয়ে-ই তো মানুষের জীবন। জনবান্ধব প্রশাসক, সৎ ও আদর্শবান হওয়ায় অতি সহজেই তাড়াইল উপজেলার ভূমি-মালিক, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারি, শিক্ষক, ব্যবসায়ী, রাজনীতিক, জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যম কর্মী ও সর্বসাধারণের নির্ভরযোগ্য হতে পেরেছিলেন।

বাঙালির শ্রেষ্ঠ সময় ১৯৭১, শ্রেষ্ঠতম কাজ মহান মুক্তিযুদ্ধ। এই শ্রেষ্ঠত্বের গৌরব বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবু জাফর ভূঁইয়া’র [স্বাধীনতার স্বপক্ষের প্রাচীনতম রাজনৈতিক দলের চাঁদপুর জেলার কোন এক অঞ্চলের একজন কর্মীবান্ধব জননেতা হিসেবে সভাপতির দায়িত্ব পালন করে ছিলেন জীবনের শেষদিন পর্যন্ত] সুযোগ্য পুত্র মো. মোশারেফ হোসাইন। তাড়াইলের গুণিজনেরা তো এমনটাই বলেন।

মো. মোশারেফ হোসাইন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসেবে তাড়াইল উপজেলায় মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) শেষ কর্মদিবস পালন করেন। বিদায়ী এসি (ল্যান্ড) মো. মোশারেফ হোসাইনকে ‘বিদায় সংর্ধ্বনা’ দেওয়া হয়েছে মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) তাড়াইল অফিসার্স ক্লাব মিলনায়তনে। এ ‘বিদায় সংর্ধ্বনা’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও তাড়াইল অফিসার্স ক্লাবের সভাপতি মো. তারেক মাহমুদ।

সাত মাস এগার দিন অল্প সময়ে দায়িত্ব পালনকালে সর্বস্তরের মানুষের কাছে মো. মোশারেফ হোসাইন জনবান্ধব সহকারি কমিশনার (ভূমি) হিসেবে ব্যর্থতার চেয়ে সফলতার পাল্লাই ভারী।

ভূমি অফিস মানেই ভোগান্তি, কার্যালয়ের বাইরে দালালদের দৌরাত্ম্য। ভূমি সংক্রান্ত কাজে মোটা অংকের ঘুষ আর বাড়তি টাকা, সেবা প্রার্থীদের প্রতি কর্মচারীদের অবহেলা, দিনের পর দিন ভূমি মালিকদের হয়রানি। সাধারণ মানুষের কাছে এটি হলো ভূমি অফিসের বাস্তব চিত্র...।

কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলা ভূমি অফিসের চিত্রও একসময় এমনই ছিল। তবে তাড়াইল উপজেলা ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোশারেফ হোসাইন ধীরে ধীরে পাল্টে দিয়েছেন সে চিত্র। ইতোমধ্যে ওই অফিসকে দালালমুক্ত করার ঘোষণা করেছিলেন তিনি।

সদ্য বিদায়ী সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোশারেফ হোসাইন বলেন, মানুষকে সেবা দেওয়াই আমাদের মূল কাজ। ভূমি সংক্রান্ত সেবা নিতে এসে কেউ ভোগান্তির শিকার হবে-এটা কোনোভাবেই কাম্য নয়।

তিনি আরো বলেন, সরকার নির্ধারিত প্রতিটি নামজারীতে ১১৭০ টাকা ফি’র ব্যতিত অতিরিক্ত কোন টাকা না দিতে। কেউ অযথা হয়রানি করলে  অথবা অতিরিক্ত অর্থ দাবি করলে আপনার এসি ল্যান্ডকে জানান...।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর