কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম


 স্টাফ রিপোর্টার | ২০ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ১১:০৬ | শিক্ষা  


ভৈরব উপজেলার আগানগর জগমোহনপুর গ্রামের বাবুল হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এর প্রধান শিক্ষক মো. সাইফুল ইসলাম জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা পদক-২০১৯ এ কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক (পুরুষ) নির্বাচিত হয়েছেন।

কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক/শিক্ষিকা, বিদ্যালয়, ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, কর্মকর্তা ও কর্মচারী বাছাই কমিটি যাচাই-বাছাই শেষে বাবুল হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এর প্রধান শিক্ষক মো. সাইফুল ইসলাম কে কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক (পুরুষ) হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।

কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক/শিক্ষিকা, বিদ্যালয়, ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, কর্মকর্তা ও কর্মচারী বাছাই কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী, সদস্য সচিব জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সুব্রত কুমার বণিক ও সদস্যগণের স্বাক্ষরিত তালিকার মাধ্যমে বিষয়টি জানা গেছে।

কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক (পুরুষ) নির্বাচিত হওয়া মো. সাইফুল ইসলাম কিশোরগঞ্জ জেলা ict4e অ্যাম্বাসেডর ও শিক্ষক বাতায়নের সাপ্তাহিক সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা। আইসিটিতে দক্ষ একজন প্রধান শিক্ষক কিভাবে একটি বিদ্যালয়কে সহজে বদলে দিতে পারেন, তার একটি প্রকৃষ্ট উদাহরণ হচ্ছেন মো. সাইফুল ইসলাম।

বাবুল হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সাইফুল ইসলাম সবসময় বিদ্যালয়ের ফলাফলসহ সার্বিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি  শিক্ষার্থীদের শতভাগ উপস্থিতি নিশ্চিত করে প্রশংসার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মাঝে আত্মবিশ্বাস সৃষ্টি করার লক্ষ্যে অভিভাবক এবং শিক্ষকদের নিয়ে একযোগে কাজ করে চলেছেন।

উপস্থিতি নিশ্চিত করার জন্যে অভিভাবকদের মোবাইল নম্বারে এক ক্লিকে একটি ক্ষুদে বার্তা প্রেরণ করেন এবং অভিভাবকদের সাথে ভয়েস কল করেন। তিনি জাতীয় দিবসগুলো যথাযথভাবে উদযাপন করেন। প্রতিদিন সমাবেশের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মাঝে জাতীয় শুদ্ধাচার এবং নৈতিক শিক্ষা চর্চা করিয়ে থাকেন।

মো. সাইফুল ইসলাম শিক্ষা ক্ষেত্রে আইসিটির ব্যবহারে খুবই দক্ষ। তাঁর সহায়তায় বর্তমানে বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষকেরাও ডিজিটাল কন্টেন্ট ব্যবহার করে প্রজেক্টরের মাধ্যমে পাঠদান করেন।

প্রধান শিক্ষক হিসেবে তিনি শিক্ষা অফিসে না গিয়ে ল্যাপটপ, প্রিন্টার ও স্ক্যানার ব্যবহার করে ই-মেইলের মাধ্যমে তথ্য আদান-প্রদান করেন। এতে করে বিদ্যালয়ের পাঠদান ক্ষতিগ্রস্ত হয় না।

যে বিদ্যালয়টিতে কোন কালেই কোন  জিপিএ-৫ অথবা বৃত্তি ছিল না, তার হাত ধরে বিদ্যালয়টি বিগত ৫ বছর যাবত শতভাগ পাশ এবং জিপিএ ৫ সহ ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পাচ্ছে।

তিনি শিক্ষক বাতায়নে সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা-২০১৮ নির্বাচিত হন। আইসিটি জেলা অ্যাম্বাসেডর হিসেবে নিযুক্ত আছেন। মুক্তপাঠ প্লাটফর্মে তাঁর অনেক সার্টিফিকেট রয়েছে এবং মাইক্রোসফট এ্যাডুকেটর হিসেবে কাজ করেন। অর্থাৎ তিনি একজন গ্লোবাল শিক্ষক হিসেবে প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলের একটি বিদ্যালয় কে তুলে ধরেছেন।

এরই ধারাবাহিকতায় তিনি উপজেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষকের গণ্ডি পেরিয়ে কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর