কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইন চলাকালে কমিউনিটি ক্লিনিকে নবজাতকের আগমন


 সোহেল সাশ্রু, ভৈরব | ১১ জানুয়ারি ২০২০, শনিবার, ৫:৫৮ | ভৈরব 


সারা দেশে উৎসব মুখর পরিবেশে ভিটামিন এ প্লাস ২০২০ (২য় রাউন্ড) ক্যাম্পেইন চলছে। এর ধারাবহিকায় ভৈরবেও শনিবার (১১ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এ ক্যাম্পেইন চলে। ভৈরবে ১৬৯টি ক্যাম্পে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়।

সকাল ৮টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ প্লাস ক্যাম্পেইন (২য় রাউন্ড) উদ্বোধন করেন ভৈরব উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা।

উদ্বোধন শেষে উপজেলা প.প. কর্মকর্তা ডা. বুলবুল আহমেদ ভৈরব উপজেলার কালিকাপ্রসাদের আকরনগর কমিউনিটি ক্লিনিকে পরিদর্শনে গেলে দেখা পান ফুটফুটে এক নব জাতকের।

শনিবার (১১ জানুয়ারি) প্রথম দিন শিশুকে ছয় মাস না হলে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো যায় না। কিন্তু শিশুর মাকে জন্মের পর শিশুকে পরিচর্যার বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন।

এ সময় উপজেলা প.প. কর্মকর্তা ডা. বুলবুল আহমেদ বলেন, শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) মুজিববর্ষের কাউন্ট-ডাউনের দিন উদ্বোধন করা হয়।

শনিবার (১১ জানুয়ারি) দ্বিতীয় দিনে প্রথম স্বাস্থ্যসেবামূলক উৎসবে এ ক্যাম্পে শিশুটি অতিথি হয়ে এসেছে। উৎসবের আমেজকে যেন কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে।

এ সময় তিনি নবজাতক ও মায়ের প্রতি একটি বার্তা দেন। জন্মের সাথে সাথে শিশুকে শাল দুধ খাওয়াতে হবে। ৬ মাস শুধু মায়ের বুকের দুধ খাওয়ানোর নির্দেশনা দেন তিনি। অন্য কোন কিছু যেন না খেতে দেন এ দিকে দিক নির্দেশনা দেন।

৬ মাস পর মায়ের দুধের পাশাপাশি বাড়তি খাবার খাওয়ানোর পরামর্শ দেন এবং আগামী ৬ মাস পর আজকের এ নবজাতককে দিয়েই এ ক্যাম্পের পরবর্তী ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন শুরু করা হবে বলে তিনি জানান।

জানা যায়, ভৈরব উপজেলায় শনিবার (১১ জানুয়ারি) দিনব্যাপী ৬ থেকে ১১মাস বয়সী ৩ হাজার ৩২৬ জন শিশুকে নীল রংয়ের ক্যাপসুল ও ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী ২৭ হাজার ৯৯১ জন শিশুকে লাল রংয়ের ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর