কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার কারারক্ষীর ঠাঁই হলো কারাগারেই


 স্টাফ রিপোর্টার | ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শনিবার, ৬:০৭ | বিশেষ সংবাদ 


আবু হানিফ কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারের একজন কারারক্ষী (নং-১২৭০৯)। কারাগারের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা এই কারারক্ষী ইয়াবাসহ পুলিশের হাতে ধরা পড়েছেন। ফলে এবারও তিনি কারাগারেই গেছেন, তবে এবার আর রক্ষক নয় বন্দি হিসেবে।

শুক্রবার (৭ ফেব্রুয়ারি) বেলা পৌনে ১১টার দিকে কিশোরগঞ্জ শহরের আখড়াবাজার এলাকার একটি বাসার গ্যারেজে বসে ইয়াবা সেবনের সময় হাতেনাতে ১০পিস ইয়াবাসহ আটক হন কারারক্ষী আবু হানিফ।

এ সময় তার সাথে থাকা সোহেল (৪৬) নামে আরেকজনকে ২০ পিস ইয়াবাসহ আটক করা হয়। এছাড়া আরেকজন পালিয়ে যায়।

তিন জনের নামে কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা দায়েরের পর শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে কারারক্ষী আবু হানিফ ও সোহেলকে আদালতে পাঠানোর পর তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক। পরে দু’জনকেই কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারের কারারক্ষী (নং-১২৭০৯) কারারক্ষী হানিফ নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও এর ফতেপুর গ্রামের মৃত আফাজ উদ্দিনের ছেলে।

অন্যদিকে সোহেল ওই বাসার মালিক মৃত আতাউর রহমানের ছেলে।

কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. আবুবকর সিদ্দিক পিপিএম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, কিশোরগঞ্জ শহরের আখড়াবাজার এলাকার একটি বাসার গ্যারেজে বসে কারারক্ষী আবু হানিফ, বাসার মালিকের ছেলে সোহেল ও অপর আরেকজন ইয়াবা সেবন করছিল।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই আসাদুজ্জামান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সেখানে অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযানের সময় একজন পালিয়ে গেলেও কারারক্ষী আবু হানিফকে ১০ পিস এবং সোহেলকে ২০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসা হয়।

পরে এসআই আসাদুজ্জামান বাদী হয়ে ইয়াবাসহ আটক হওয়া দুইজন ও পালিয়ে যাওয়া অপরজনসহ মোট তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন।

শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে কারারক্ষী আবু হানিফ ও সোহেলকে আদালতে চালান দেয়া হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারের সুপার বজলুর রশীদ জানান, ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার হওয়ার বিষয়টি জানার পর কারারক্ষী আবু হানিফকে বরখাস্ত করা হয়েছে। এছাড়া বিষয়টি কারা মহাপরিদর্শককে অবহিত করা হয়েছে।

জেল সুপার বজলুর রশীদ আরো জানান, কারারক্ষী আবু হানিফ সম্প্রতি মুন্সীগঞ্জ থেকে বদলী হয়ে কিশোরগঞ্জে এসেছে। তার বিরুদ্ধে আগে থেকেই নানা অভিযোগ ছিল। এমনকি মুন্সীগঞ্জে থাকা অবস্থায় তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলাও হয়েছে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর