কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


বানিয়াগ্রাম বাজার বণিক সমিতির নির্বাচনে সভাপতি হাবিবুর, সম্পাদক আতাউর


 স্টাফ রিপোর্টার | ৬ মার্চ ২০২০, শুক্রবার, ৯:১৩ | কটিয়াদী 


উৎসবমুখর পরিবেশে কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলার বানিয়াগ্রাম বাজার বণিক সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (৬ মার্চ) মধ্যপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

ভোটগণনা শেষে রাতে ফলাফল ঘোষণা করেন নির্বাচনের প্রধান নির্বাচন কমিশনার মো. খালেদুজ্জামান।

নির্বাচনে হাবিবুর রহমান (ছাতা) সভাপতি ও মো. আতাউর রহমান (মোরগ) সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচনের প্রধান নির্বাচন কমিশনার মো. খালেদুজ্জামান স্বাক্ষরিত ফলাফলে জানা যায়, সভাপতি পদে হাবিবুর রহমান (ছাতা) ৩৭৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোস্তাফিজুর রহমান (আনারস) পেয়েছেন ১৩০ ভোট।

সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে আব্দুল লতিফ (মোমবাতি) ৩৩৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুল কাদির সুজন (টেলিভিশন) পেয়েছেন ২২৪ ভোট।

সহ-সভাপতি পদে মো. সালাহ উদ্দিন (হারিকেন) ৩২৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শরীফ মাহমুদ সজিব (ঘোড়া) পেয়েছেন ২৩৩ ভোট।

সাধারণ সম্পাদক পদে মো. আতাউর রহমান (মোরগ) ২৭১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুর রশিদ (আম) পেয়েছেন ১৫৬ ভোট।

সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে আবুল কাসেম (বৈদ্যুতিক বাল্ব) ৪৪৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী পল্টন দেবনাথ (দেয়াল ঘড়ি) পেয়েছেন ১২৩ ভোট।

কোষাধ্যক্ষ পদে মাও. মো. নাসির উদ্দিন (গোলাপ ফুল) ৩৪২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাবুল মিয়া (মাছ) পেয়েছেন ২৫১ ভোট।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মো. আল মামুন (টিয়াপাখি) ৩৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুর রহমান (গরুর গাড়ি) পেয়েছেন ২০৫ ভোট।

নিরাপত্তা ও আইন বিষয়ক সম্পাদক পদে রফিকুল ইসলাম (ময়ূর) ৩০৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী খোকন মিয়া (কুড়াল) পেয়েছেন ২৬৬ ভোট।

ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে শারফুল ইসলাম সুজন (ফুটবল) ৩৪২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আজহারুল ইসলাম খোকন মোড়ল (ব্যাট) পেয়েছেন ২৩৯ ভোট।

প্রচার ও দপ্তর সম্পাদক পদে মো. মাসুদ মিয়া (টেবিল) ৩১০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বকুল মিয়া (চায়ের কাপ) পেয়েছেন ২৫০ ভোট।

সদস্য পদে মো. পেন্টু মিয়া (রিকসা) ৩৮৫ ভোট, রাজু মিয়া (মই) ৩৬৫ ভোট ও শফিকুল ইসলাম (সিলিং ফ্যান) ৩৫৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁদের একমাত্র নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জসিম (হুক্কা) পেয়েছেন ৩২১ ভোট।

নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন মো. খালেদুজ্জামান। তিন সদস্যবিশিষ্ট নির্বাচন কমিশনের অপর দুই সদস্য হলেন, ফেরদৌস আকন্দ ও শরীফ উদ্দিন খোকন।

নির্বাচনে প্রিসাইডিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করেন কটিয়াদী ডা. আব্দুল মান্নান মহিলা কলেজের প্রভাষক সামসুজ্জামান সেলিম।

নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার মো. খালেদুজ্জামান জানান, নির্বাচনে মোট ৬৯৫ জন ভোটারের মধ্যে ৬৩১ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এই নির্বাচনে ১৩টি পদে মোট ২৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

সকাল ৮টা থেকে নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। দুপুর ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত জুমআর নামাজের বিরতি দেয়া হয়। বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ করা হয়।

এদিকে নির্বাচনের ভোটগ্রহণকে শান্তিপূর্ণ করতে পুলিশ, আনসার ও গ্রাম পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সদস্য মোতায়েন করা হয়।

এছাড়া গণমাধ্যমকর্মীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের পর্যবেক্ষক নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

বানিয়াগ্রাম বাজার বণিক সমিতির আহ্বায়ক ওবায়দুল্লাহ আকন্দ ভুবন ও সদস্য সচিব খায়রুল ইসলাম বকুল জানান, এবার প্রথম বারের মতো বানিয়াগ্রাম বাজার বণিক সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন আয়োজন করতে পারায় তারা স্বস্তি ও সন্তোষ প্রকাশ করেন।

এদিকে সকাল ৮টায় ভোট শুরুর পর কটিয়াদী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহাব আইন উদ্দিন, আচমিতা ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান বাচ্চু, বিশিষ্ট সমাজসেবক মতিউর রহমান, আচমিতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোশাররফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন প্রমুখ ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর