কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে নকল স্বর্ণের মূর্তি ও প্রাইভেট কারসহ দুই ‘জ্বীনের বাদশাহ’ আটক


 স্টাফ রিপোর্টার | ১০ মে ২০২০, রবিবার, ৭:৪৬ | অপরাধ 


কিশোরগঞ্জে নকল স্বর্ণের মূর্তি ও প্রাইভেট কারসহ জয়নাল আবেদীন (৩২) ও মো. মতিউর রহমান (৪০) নামে কথিত দুই ‘জ্বীনের বাদশাহ’ কে আটক করেছে র‌্যাব।

রোববার (১০ মে) র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২, কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের একটি অপারেশনাল টিম কিশোরগঞ্জ শহরের গাইটাল বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।

অপারেশনাল টিমটির নেতৃত্ব দেন র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২, কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার লে. কমান্ডার এম শোভন খান বিএন।

আটক হওয়া কথিত দুই ‘জ্বীনের বাদশাহ’র মধ্যে জয়নাল আবেদীন গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ি উপজেলার ভবানিপুর গ্রামের ফজল হক বাবুর ছেলে এবং মো. মতিউর রহমান একই জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার গোপিনাথপুর গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে।

র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২, কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার লে. কমান্ডার এম শোভন খান বিএন জানান, কথিত জ্বীনের বাদশাহ পরিচয়ে নকল স্বর্ণের মূর্তি দেখিয়ে সাধারণ মানুষকে বিভিন্নভাবে প্রলোভনের মাধ্যমে একটি প্রতারক চক্র দীর্ঘদিন ধরে কিশোরগঞ্জ সদর ও আশপাশের জেলাগুলোতে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা পয়সা ও অন্যান্য মূল্যবান স্বর্ণ অলংকার নিয়ে যাচ্ছিল।

গত ৭ মে নকল স্বর্ণের মূর্তি প্রদানের মাধ্যমে এক লাখ টাকা ও প্রায় ছয় ভরি স্বর্ণ প্রতারণা করে নিয়ে যাওয়ার একটি অভিযোগ পায় র‌্যাব।

এই অভিযোগের ভিত্তিতে কথিত জ্বীনের বাদশাহ প্রতারক চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তারের লক্ষ্যে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় রোববার (১০ মে) র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২, কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের একটি অপারেশনাল টিম কিশোরগঞ্জ শহরের গাইটাল বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযানে নকল স্বর্ণের মূর্তি এবং প্রতারণা কাজে ব্যবহৃত একটি প্রাইভেট কার’সহ জয়নাল আবেদীন ও মো. মতিউর রহমান নামে কথিত দুই ‘জ্বীনের বাদশাহ’ কে আটক করা হয়।

র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক হওয়া দুইজন জানায়, তারা গাইবান্ধা থেকে দীর্ঘদিন যাবৎ ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলায় কথিত জ্বীনের বাদশা পরিচয়ে নকল স্বর্ণের মূর্তি দেখিয়ে সাধারণ মানুষকে বিভিন্নভাবে প্রলোভনের মাধ্যমে প্রতারণা করে আসছিল।

এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানায় হস্তান্তরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর