কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


তৃতীয় পর্যায়ে ১৪০ প্রতিবন্ধী শিশু পরিবারকে ঈদ উপহার দিলো ‘মৃত্তিকা’


 স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ মে ২০২০, রবিবার, ২:৩১ | বাজিতপুর 


কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে তৃতীয় পর্যায়ে বাজিতপুর ও কটিয়াদী এই দুই উপজেলার মোট ৩৬টি গ্রামের মোট ১৪০টি প্রতিবন্ধী শিশু পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছে মৃত্তিকা প্রতিবন্ধী ফাউন্ডেশন।

রোববার (১৭ মে) উপজেলার গোথালিয়া গ্রামের মৃত্তিকা প্রতিবন্ধী শিশু পাঠশালা প্রাঙ্গণে বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর, হালিমপুর, সরারচর, গাজীরচর, কটিয়াদী উপজেলার জালালপুর, করগাঁও, কটিয়াদী সদরসহ ৭টি ইউনিয়নের প্রতিবন্ধী শিশু পরিবারকে এই উপহার দেওয়া হয়।

এলাকার প্রতিবন্ধী-বান্ধব শুভাকাংখীদের আর্থিক সহায়তায় উপহার দেওয়ার সময় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আশিকুর রহমান চৌধুরী, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মো. বাবুল মিয়া, মৃত্তিকা প্রতিবন্ধী শিশু পাঠশালার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আ.কা.ম গোলাম মোস্তফা, সাংবাদিক ও সাস্কৃতিক কর্মী নাসরুল আনোয়ার, পিরিজপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. জাফর ইকবাল জুয়েল, উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য মো. ইমরান উদ্দিন ভূঁইয়া এংরাজ, মৃত্তিকা প্রতিবন্ধী ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া, প্রতিবন্ধী শিশু পাঠশালার প্রধান শিক্ষক নূরে হায়াত আফসানাসহ সকল শিক্ষকগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রত্যেক পরিবারের জন্য উপহারের মধ্যে ছিল ৫ কেজি চাউল, ২ কেজি প্যাকেট আটা, ২ কেজি আলু, ১ লিটার সয়াবিন তেল, ১ কেজি লবণ, ১ প্যাকেট সেমাই, ১ প্যাকেট পুষ্টিকর বিস্কুট, আধা কেজি দেশী মুসুরীর ডাল, আধা কেজি চিনি, ১টি সাবান, ১টি মাস্ক এবং ৪০টি করে সিভিট।

উপহার বিতরণ বিষয়ে মৃত্তিকা প্রতিবন্ধী ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারপারসন ম. মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া বলেন, করোনা দুর্যোগে মৃত্তিকাসহ এর দুটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান শহীদ মোবারক হোসেন ও বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিন খান স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে গত ২০ এপ্রিল প্রথম পর্যায়ে ৪০ জন, ১২ মে দ্বিতীয় পর্যায়ে ১৬০ জন এবং আজ ১৪০ জনসহ মোট ৩৪০ জন অসহায় মানুষকে ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে প্রায় আড়াই লক্ষ টাকার ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বাজিতপুর সার্কেল এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আমিনুর রহমান বলেন, করোনাকালে প্রত্যেকের উচিত সরকারের পাশাপাশি স্ব-অবস্থান থেকে অসহায় খেটে-খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়নো।

বর্তমান সরকার প্রতিবন্ধী-বান্ধব সরকার। এই সরকার সব সময় প্রতিবন্ধীসহ দেশের পিছিয়ে মানুষদের সকল ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দিয়ে আসছে। কারোনাকালে মৃত্তিকার এই মানব দরদী উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবী রাখে।

বাজিতপুরের কৃতী সন্তান ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. চিত্তরঞ্জন দেবনাথ এ প্রতিবেদক কে জানান, আমি ও আমার একজন সহকর্মী (ডা. আজিজুর রহমান) এ উদ্যোগে কিছুটা সহযোগিতা করতে পেরে ভাল লাগছে। মৃত্তিকা শুধু করোনাকালে নয়, সব সময় এলাকার নিরন্ন মানুষের পাশে দাঁড়ায়।

মৃত্তিকা’র উদ্যোগের পাশে যারা দাঁড়িয়েছেন তাদের প্রত্যেককে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন মৃত্তিকা প্রতিবন্ধী শিশু পাঠশালা’র উপদেষ্ঠা ঢাকা’র অতিরিক্ত জেলা জজ মোহাম্মদ সামছুল ইসলাম।

প্রসঙ্গত; কারোনাকালে এ পর্যন্ত ত্রাণ বিতরণে মৃত্তিকা’কে আর্থিকভাবে সহায়তা করেছেন প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ড. মীর রাবেয়া খাতুন, ঢাকার দানবীর শিল্পপতি মো. পারভেজ আহম্মেদ খান লিটন, স্থানীয় এমপি মহোদয়ের একান্ত সচিব মো. আকরামুল হক রুবেল, টিকাদার ব্যবসায়ী ইকবাল মিয়া,কানাডা প্রবাসী এ্যারোনেটিক প্রকৌশলী আবু সাঈদ খান সুমন, কানাডা প্রবাসী নিনা আহম্মেদ, লায়ন এম এ রশিদ, রিহ্যেব পরিচালক নাঈমুর রহমান, পিকেএসএফ-এর কর্মকর্তা আহম্মেদ মাহমুদুর রহমান খাঁন, রূপালী ব্যাংক কর্মকর্তা আলী হোসেন মানিক, মৃত্তিকা পাঠশালার প্রতিষ্ঠাতা সহযোগী মো. ফয়েজ কাউছার, স্থানীয় এনজিও পিএফএইচ, সাংবাদিক নাসরুল আনোয়ার প্রমুখ।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর