কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


করোনা দুর্যোগে হাজারো অসহায়ের সহায় তরুণ উদ্যোক্তা মাখন


 স্টাফ রিপোর্টার | ২৪ মে ২০২০, রবিবার, ১০:০৮ | কিশোরগঞ্জ সদর 


করোনা দুর্যোগে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন মাখন এন্ড ব্রাদার্স এর প্রতিষ্ঠাতা ও শিশু প্রতিভা বিকাশ কেন্দ্রের ভাইস চেয়ারম্যান জামিলুর রহমান মাখন। তরুণ এই উদ্যোক্তার মানবিক উদ্যোগে হাসি ফুটছে হাজারো দুস্থ, অসহায় আর কর্মহীন মানুষের মুখে।

পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখেও তিনি চালাচ্ছেন মানবিক এই কার্যক্রম। এরই মধ্যে এক হাজার পরিবারের মাঝে পৌঁছে দিয়েছেন ঈদ উপহার। চরম এই দুঃসময়ে অভাবি মানুষজনের মুখে ফুটিয়েছেন হাসি; ঈদের খুশি ছড়িয়ে দিয়েছেন অসহায় পরিবারগুলোতে।

জানা গেছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণজনিত দুর্যোগে যখন দিশেহারা দুস্থ, হতদরিদ্র, কর্মহীন ও নিম্ন আয়ের মানুষ, ঠিক তখনই মানবিক সহায়তা নিয়ে তাদের পাশে দাঁড়ান কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার কর্শাকড়িয়াইল ইউনিয়নের চিকনিরচর গ্রামের গর্বিত সন্তান তরুণ উদ্যোক্তা জামিলুর রহমান মাখন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকেই নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী মানুষকে নগদ অর্থ সহায়তাসহ বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে আসছেন।

মে মাসের শুরুতে তিনি কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার নিজ ইউনিয়ন কর্শাকড়িয়াইল ছাড়াও জেলা শহর, পার্শ্ববর্তী উপজেলা পাকুন্দিয়া ও কটিয়াদীসহ বিভিন্ন উপজেলার দুই হাজার নিম্ন মধ্যবিত্ত, শ্রমজীবী ও অসহায়-দরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন।

এছাড়া করোনামোকাবেলায় নিজ জেলা কিশোরগঞ্জের সম্মুখযোদ্ধা চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ ও প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের জন্য উন্নতমানের পিপিই, হ্যান্ডগ্লাভস, মাস্ক ইত্যাদি সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করেছেন।

এবার ঈদের আগে অসহায়, অসচ্ছল ও করোনা দুর্যোগে কর্মহীন হয়ে পড়া এক হাজার পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণের মধ্য দিয়ে পরিবারগুলোতে ঈদের খুশি ছড়িয়ে দিয়েছেন তরুণ ব্যবসায়ী ও সংগঠক জামিলুর রহমান মাখন।

জামিলুর রহমান মাখনের তত্বাবধানে ইমাম, মুয়াজ্জিন, নিম্ন মধ্যবিত্ত, শ্রমজীবী ও অসহায়-দরিদ্রসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার এক হাজার পরিবারের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ঈদ উপহার সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন স্বেচ্ছাসেবীরা।

ঈদকে সামনে রেখে ঈদ উপহার হিসেবে চাল, ডাল, আলু, সেমাই, দুধ, চিনি, তেল ও পিয়াজসহ অন্যান্য খাদ্য সামগ্রী পেয়ে দরিদ্র পরিবারগুলোর সদস্যরা উচ্ছ্বাস ও স্বস্তি প্রকাশ করেছেন।

তাদের ঘরে ঈদের আনন্দ এনে দেওয়ার জন্য তারা জামিলুর রহমান মাখনের জন্য দোয়া ও তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

জামিলুর রহমান মাখনের শুভাকাঙ্ক্ষীরা জানিয়েছেন, মাখন সব সময় মানুষের বিপদ-আপদে এগিয়ে আসেন। করোনা দুর্যোগে যেভাবে তিনি অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন, তা অবশ্যই প্রশংসার দাবি রাখে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর