কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পাকুন্দিয়ায় দুই মোটর সাইকেলের সংঘর্ষে আহত এক কিশোরের মৃত্যু, মোট নিহত ২


 স্টাফ রিপোর্টার | ২৬ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ৬:০৮ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় বেপরোয়া গতির দুই মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে গুরুতর আহত ৫ জনের মধ্যে সানোয়ার (১৬) নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ মে) বিকাল ৫টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এর আগে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে জয় (১৯) নামে আরেক কিশোরের মৃত্যু হয়েছিল। এ নিয়ে এ ঘটনায় দুইজন নিহত হলো।

এছাড়া আহত বাকি চারজন চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ মে) মারা যাওয়া সানোয়ার পাকুন্দিয়া উপজেলার বুরুদিয়া ইউনিয়নের নরপতি গ্রামের রফিক মিয়ার ছেলে।

সোমবার (২৫ মে) দুপুর ১টার দিকে পাকুন্দিয়া-ইটাখোলা সড়কে উপজেলার বুরুদিয়া ইউনিয়নের নরপতি গ্রামের ড্রেনেরঘাট ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায় মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনাটি ঘটেছিল।

ঘটনার পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে জয় মারা যায়। নিহত জয় পার্শ্ববর্তী নরসিংদী জেলার মনোহরদী উপজেলার খিদিরপুর ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামের ইদু মিয়ার ছেলে।

এছাড়া সানোয়ার, জাহাঙ্গীর (১৭), মোশারফ (১৮), নাজমুল (১৯) ও শান্ত (১৮) এই পাঁচজনকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

তাদের মধ্যে সানোয়ার, জাহাঙ্গীর ও মোশারফের বাড়ি পাকুন্দিয়া উপজেলার বুরুদিয়া ইউনিয়নের নরপতি গ্রামে। এই তিনজন একটি মোটর সাইকেলের আরোহী ছিল।

অন্যদিকে নাজমুল ও শান্ত এর বাড়ি নরসিংদী জেলার মনোহরদী উপজেলার খিদিরপুর ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামে। নিহত জয় এবং আহত নাজমুল ও শান্ত এই তিনজন একটি মোটর সাইকেলের আরোহী ছিল।

তাদের মধ্যে সানোয়ার ছাড়া জাহাঙ্গীর নরপতি গ্রামের গ্রামের বকুল মিয়ার ছেলে, মোশারফ একই গ্রামেরই মিলন মিয়ার ছেলে, নাজমুল নয়াপাড়া গ্রামের ফজলু মিয়ার ছেলে এবং শান্ত একই গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে।

পাকুন্দিয়ার আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মুহাম্মদ শফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ঈদের দিন সোমবার (২৫ মে) দুইটি মোটর সাইকেলে তিনজন করে ছয় বন্ধু ঘুরতে বের হয়েছিল।

দুপুর ১টার দিকে পাকুন্দিয়া-ইটাখোলা সড়কে উপজেলার বুরুদিয়া ইউনিয়নের নরপতি গ্রামের ড্রেনেরঘাট ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায় দুই মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে দুই মোটর সাইকেলের ছয় আরোহীর সবাই গুরুতর আহত হয়।

তাদেরকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর পর একজনকে ছাড়া বাকি পাঁচজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে জয় মারা যায়।

পরদিন মঙ্গলবার (২৬ মে) বিকাল ৫টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সানোয়ার মারা যায়।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর