কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পাকুন্দিয়ায় ঝুঁকিপূর্ণ ব্রীজ, দুর্ঘটনার আশঙ্কা


 সাখাওয়াত হোসেন হৃদয় | ১৯ জুন ২০২০, শুক্রবার, ১:৩৫ | জনদুর্ভোগ 


কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় ঝুঁকিপূর্ণ একটি ব্রীজ দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যান ও পথচারী চলাচল করা হচ্ছে। এতে যে কোনো সময় বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে পুরনো এ ব্রীজটি সংস্কার না হওয়ায় মাঝের অংশে ও এক পাশের রেলিং ভেঙে গিয়ে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পাকুন্দিয়া উপজেলার পাকুন্দিয়া-হোসেনপুর সড়কের শেষ সীমানা জাঙ্গালিয়ার কাওনা এলাকায় অবস্থিত ব্রীজটি বহু পুরনো। প্রায় ৪০ বছরের পুরনো এ ব্রীজটি পাকুন্দিয়া ও হোসেনপুর উপজেলার সংযোগ ব্রীজ। ব্রীজটির ২০ থেকে ৩০ গজ পর থেকেই হোসেনপুর উপজেলার শুরু।

প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে বাস, ট্রাক, সিএনজি, অটোরিকশাসহ বিভিন্ন ধরণের যানবাহন চলাচল করে থাকে। দুই উপজেলা লোকজন ছাড়াও পার্শ্ববর্তী নান্দাইল উপজেলার লোকজনও ঢাকায় যাতায়াতের জন্য এই সড়কটি ব্যবহার করে থাকেন। এজন্য এ সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

মাস দুয়েক আগে সড়কটি সংস্কার করা হয়েছে। এতে এ সড়কে যান ও পথচারী চলাচল আরো বেড়েছে। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কের কাওনা এলাকার ব্রীজটির মাঝখানে ও রেলিংয়ের এক পাশ ভেঙ্গে গিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় লোকজন ব্রীজটির এক পাশে লাল নিশান টানিয়ে দিলেও যান চলাচল থেমে নেই। অনেকটাই ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন ছোট-বড় ও মাঝারিসহ শতশত যান চলাচল করছে। এতে যে কোনো সময় ব্রীজটির পুরো অংশ ভেঙে গিয়ে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা বুলবুল মিয়া, মঞ্জিল মিয়া ও সৈয়দুজ্জামানসহ বেশ কয়েকজন জানান, ব্রীজটি বহু পুরনো। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার নেই। এতে ব্রীজটির মাঝের অংশ এবং এক পাশের রেলিং ভেঙে গিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

গত ১৫-২০দিন ধরে অবস্থা আরও খারাপ হয়েছে। এক পাশে বাঁশের খুঁটিতে সর্তকর্তা স্বরূপ লাল নিশান টানিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু থেমে নেই যান চলাচল। এতে যে কোনো সময় ব্রীজটি ভেঙে গিয়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটারও আশঙ্কা রয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পাকুন্দিয়া উপজেলা প্রকৌশলী মো. হাবীবুল্লাহ কিশোরগঞ্জ নিউজকে বলেন, ব্রীজটি নতুন করে নির্মাণ করতে হোসেনপুর উপজেলা প্রকৌশলী অফিস থেকে তালিকা পাঠানো হয়েছে। যা টেন্ডারের প্রক্রিয়ায় রয়েছে। টেন্ডার হলেই শিগগিরই কাজ শুরু হবে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর