কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


বাবা দিবসে বিনম্র শ্রদ্ধা: তিনিই বটবৃক্ষ!


 মাজহার মান্না | ২১ জুন ২০২০, রবিবার, ১২:০১ | মত-দ্বিমত 


বিশ্ব বাবা দিবস আজ। পিতার প্রতি সন্তানের সম্মান, শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা প্রকাশের জন্য বছরের এই দিনকে প্রিয় সন্তানরা আলাদা করে বেছে নিয়েছেন। জুন মাসের তৃতীয় রবিবার সারা বিশ্বের সন্তানরা পালন করেন এই দিবস। আজকের দিনে সকল বাবাদের প্রতি অকৃত্রিম আন্তরিক ভালোবাসা আর বিনম্র শ্রদ্ধা জানাচ্ছি।

যাদের বাবা বেঁচে নেই, তারা হয়তো আকাশ পানে তাকিয়ে অলক্ষ্যে বাবার স্মৃতি হাতড়াবে। প্রয়াত বাবারাও সন্তানের শুভকামনা করেন। বাবারা সবসময় আমাদের মাঝেই আছেন এবং চিরকাল থাকবেন। যদিও বাবার অনুপস্থিতি কোনো কিছু দিয়েই পূরণ হবার নয়।

বাবার প্রতি সন্তানের ভালোবাসার জন্য কোনো বিশেষ দিনের প্রয়োজন হয় না। তিনি বটবৃক্ষ! নিদাঘ সূর্যের তলে সন্তানের অমল-শীতল ছায়া। তিনি বাবা। বাবার তুলনা তিনি নিজেই। বাবা শাশ্বত, চির আপন-চিরন্তন। প্রতিটি সন্তানের কাছে বাবা হচ্ছেন আশীর্বাদ। জীবনের সার্বিক উন্নতি আর মঙ্গল কামনায় অনন্ত সহযাত্রী।

বাবা মানে নির্ভরতার আকাশ আর অসীম নিরাপত্তার চাদর। ‘বাবা শুধু একজন মানুষ নন, স্রেফ একটি সম্পর্কের নাম নয়। বাবার মাঝে জড়িয়ে আছে বিশালত্বের এক অদ্ভুত মায়াবী প্রকাশ’। সন্তানের প্রতি বাবার ভালোবাসা এতোটাই স্বার্থহীন যে, সন্তানের জন্য নিজের প্রাণ দিতেও তাঁরা কুণ্ঠাবোধ করেন না।

বাবারা যে কোন ধরনের দুঃখ-কষ্ট একাই সহ্য করেন। সবসময় চেষ্টা করেন দুঃখ-কষ্ট যেন সন্তানদের স্পর্শ না করে। সন্তানের সুখ-স্বাচ্ছন্দ্যের কথা ভেবে সারাজীবন দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করেন। যাতে করে সন্তান সুশিক্ষিত হয়ে সমাজে বেড়ে উঠতে পারে। হাজারো কষ্ট সয়ে তিলে তিলে যে সন্তানকে বড় করেছেন বাবা কি শুধুই একটি বিশেষ দিনের জন্য! এরকম বিতর্ক থাকলেও আজকের দিনটি শুধুই বাবাদের জন্য।

বাবার প্রতি সন্তানের ভালোবাসা কখনো ফুরোবার নয়। বাবা হলো সন্তানের জন্য একজন ভালোবন্ধু ও পথ প্রদর্শক। ছোটবেলায় বাবার কাঁধে চড়ে ঘোরার অভ্যাস হয়নি এমন ছেলে খুঁজে পাওয়া যাবে না। বাবার হাত ধরে এখানে ওখানে ছুটে যাওয়ার শৈশবের দিনগুলো কার না মনে থাকে? বাবা মনেই আদর, বাবা মানেই শাসন-বারণ, বাবা মানেই ভালোবাসার এক অন্যরকম সুখ। বাবা মানেই এক টুকরো হাসিখুশি মুখ।

জীবন চলার পথে মাঝে মাঝে এমন একটা সময় সবার জীবনেই আসে যখন মানুষ সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগে, তখন কারো পরামর্শ খুব জরুরি হয়ে পড়ে। সেই সময়ে পাশে দাঁড়ানোর মতো আদর্শ একজন মানুষ হলো বাবা। রাগ শাসন আর রাশভারী চেহারার আবডালে এই মানুষটির যে কোমল হৃদয় আছে তা মাতৃহৃদয়ের চেয়ে কম নয়। কেননা পরিবারের শত অভাব অনটনের মাঝেও যার কথায় পুরো নির্ভর করা যায়, সে তো বাবা। বাবা বাড়িতে আছেন মানে পুরো পরিবার নিরাপদ, এই আস্থার মানুষটিই তো সুপার হিরো। প্রতিনিয়ত কষ্টগুলো হাসির আড়ালে রেখে সুখ বিলিয়ে দেয় সে তো শুধুই বাবা!

বাবা হলেন অদ্বিতীয় আলো, যার আলোয় আলোকিত হয়েই আমাদের সারাজীবনের পথচলা। তবু সন্তানরা বড় হয়ে কর্মব্যস্ততায়, লেখাপড়া ও নানা কাজের চাপে বাবা-মাকে সময় দিতে পারে না। কেউবা প্রবাসে, কেউবা বাবাকে গ্রামে রেখে শহরে পাড়ি জমাই। অনেক সময় ভুলতে বসি বাবাকে। এখনো নিজের প্রয়াত বাবার স্মৃতি আকড়ে খুঁজে ফিরি। তাঁর সহজ সরলভাবে কাটানো জীবনযাপন কেবলই বারবার চোখের সামনে ভেসে ওঠে। তিনি যেখানেই থাকুন, সবসময় যেন ভালো থাকুন-এমনটাই প্রত্যাশা করি।

বাবার মাধ্যমেই সন্তানের জীবনের শুরু। ছোটবেলা থেকে দেখেছি জন্মদাতা পিতা জীবনভর সাদামাটা জীবনযাপন করেছেন। কখনো ব্যক্তি-সমাজ-রাষ্ট্রের ক্ষতি হয়, এমন কাজ তিনি করেছেন বলে নজির নেই। তাঁর আদর্শে সবসময় আমাদের লালিত-পালিত করেছেন। বলতেন, সততা-নিষ্ঠা ও পরিশ্রমকে পুঁজি করে জীবনে বড় হলে আত্মমর্যাদা বাড়ে। এতে অর্থকষ্ট হলেও মানসিক প্রশান্তি আসে। তিনি যে আমাদের সঠিক পথটিই দেখিয়ে গেছেন, তা আজ আমি মর্মে মর্মে উপলব্ধি করি। আর তাই তো মানুষের শূন্যতা যেমন পূরণ হবার নয়, তেমিন তাঁর অনুপস্থিতি আমাকে প্রতিনিয়ত পীড়া দেয়।

সন্তান বাবার ঋণ কখনো পরিমাপ করতেও পারে না। বাবার প্রাপ্য সম্মান প্রদর্শনে একদিন কিছু নয়। তবুও শুধুই তার জন্য একটি দিন, একটু আলাদা করে উদযাপন করতেই বাবা দিবস। পৃথিবীর সকল বাবাদের প্রতি ভালোবাসা আর শ্রদ্ধা। সব বাবারা ভালো থাকুন। আর কোনো বাবার ঠিকানা যেন বৃদ্ধাশ্রমে না হয়। জগত সংসারে এ উপলব্ধি-অনুভূতি মনে রেখে সন্তানরা সবসময় ভূমিকা রাখবেন আজকের দিনে হোক- এমনটাই প্রত্যাশা।

# মাজহার মান্না: সাংবাদিক-লেখক ও কর আইনজীবী, কিশোরগঞ্জ।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর