কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


‘করোনা চিকিৎসায় কিশোরগঞ্জ উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে, সুস্থতার হার ৮৬.২৫%’


 স্টাফ রিপোর্টার | ১৬ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৭:৫৮ | স্বাস্থ্য 


করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ চিকিৎসা সেবা প্রদানে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে কিশোরগঞ্জ। কিশোরগঞ্জে এ পর্যন্ত ১৩ হাজার ৬৪৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৭৮১ জনের করোনা সনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৫৪০ জন। সুস্থতার হার ৮৬.২৫%। এছাড়া মৃত ৩১ জন (১.৭৫%)।

করোনা ডেডিকেটেড শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসক, নার্স ও সংশ্লিষ্টরা সাহসের সাথে আন্তরিক চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

এছাড়া ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে সমন্বয় ও আন্তরিকতার মাধ্যমে হাসপাতালটিতে করোনা সেবার মান বৃদ্ধিতে ৪টি HFNC মেশিন ও PCR ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে। এতে করে নমুনা পরীক্ষার রেজাল্ট পাওয়ার ক্ষেত্রে বিলম্বের অবসান হয়েছে। একই সঙ্গে সংকটাপন্ন রোগীদের সহায়ক সেবা প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে।

অনলাইনে আয়োজিত করোনাকালীন সংকটে স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নয়নে কিশোরগঞ্জের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের সাথে সনাকের এক মতবিনিময় সভায় বক্তারা এসব অভিমত দেন।

সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), কিশোরগঞ্জ এর উদ্যোগে করোনাকালীন সংকটে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রমের বর্তমান অবস্থা, চ্যালেঞ্জ ও করণীয় শীর্ষক এই মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন সনাক সভাপতি সাইফুল হক মোল্লা দুলু।

বুধবার (১৫ জুলাই) রাত ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত এই অনলাইন মতবিনিময় সভায় অতিথি ছিলেন কিশোরগঞ্জ এর সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (কোভিড ডেডিকেটেড) পরিচালক ডা. সৈয়দ মঞ্জুরুল হক, কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্তাবধায়ক (উপ-পরিচালক) ডা. হিবরুল বারী খান এবং নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি হিসেবে কিশোরগঞ্জ জেলার সাবেক সিভিল সার্জন ডা. দীন মোহাম্মদ। তবে হাসপাতাল তত্বাবধায়ক প্রযুক্তিগত সমস্যার কারণে যুক্ত হতে না পারলেও মোবাইলে যুক্ত ছিলেন।

সভার শুরুতেই করোনায় প্রাণ হারানো সেবাদাতাগণের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়।

মতবিনিময় সভায় অংশগ্রহণকারীদের পর্যবেক্ষণ ও বক্তব্যে বলা হয়. করোনা রোগের প্রকোপ রোধে কিশোরগঞ্জ যে সফলতা দেখিয়েছে তার সম্পূর্ণ বিপরীত চিত্র দেখা যায় কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে। সাধারণ রোগের সেবা পেতে সেখানে সবাইকে বেগ পেতে হয়, অনেক সময় সেবা না পেয়ে ফিরেও যেতে হয়।

এ ব্যাপারে সভায় সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান বলেন, আমরা চেষ্টা করছি, মেডিকেল কলেজ, হাসপাতাল, রাজনৈতিক গ্রুপ ও প্রশাসন সবার সাথে অতি দ্রুত একটি সমন্বয় সভা করে এ বিষয়ে একটি কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণ করার যেন, নন-কোভিড রোগীর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা যায়।

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. সৈয়দ মঞ্জুরুল হক সার্বিক সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দেন।

নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি হিসেবে সাবেক সিভিল সার্জন ডা. দীন মোহাম্মদ সর্বদাই যেকোন সহযোগিতার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন বলে জানান।

সনাকের পর্যবেক্ষণ উপস্থাপন করেন সনাক সদস্য মায়া ভৌমিক যেখানে ২৫০ শস্যা জেনারেল হাসপাতালের সেবার করুণ ও অব্যবস্থাপনার বেহাল চিত্র উঠে আসে। পরবর্তীতে সেবা গ্রহীতা ও নাগরিক সমাজের বক্তব্যে একই চিত্র ফুটে ওঠে।

সেবাদাতাগণের বক্তব্যে জানা যায়, বার বার গাইড লাইন পরিবর্তন হওয়ায় কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে ওষুধ মাঝে মধ্যে সংকট ছিল তবে এখন নেই। এ পর্যন্ত ১৮২ রোগী ভর্তি হয়েছে এর মধ্যে ১৫৯ সুস্থ হয়েছেন এবং অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষসহ হাসপাতালটির ১৬ জন সেবা দিতে গিয়ে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

সনাক সভাপতি অংশগ্রহণকারী সবাইকে ধন্যবাদ দিয়ে বলেন, আমাদের প্রত্যাশা সীমাবদ্ধতাকে মেনে নিয়ে সবোর্চ্চ সতর্কতা অবলম্বন করে আন্তরিকতা বৃদ্ধির মাধ্যমে নন-কোভিড রোগীর সেবা নিশ্চিত করা যেন, বিবেকের কাছে দোষী হতে না হয় নিজের অবহেলায় কারো মৃত্যু হয়েছে।

অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, টিআইবি প্রতিনিধি হিসেবে সিলেট ক্লাস্টারের প্রোগ্রাম ম্যানেজার-সিই, নাজমা খানম নাজু, সেবা দাতার পক্ষে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরএমও ডা. আবিদুর রহমান ভূঁইয়া জিমি, নাগরিক সমাজের পক্ষে জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি মোস্তফা কামাল, কিশোরগঞ্জ নিউজ এর প্রধান সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম, সনাক সদস্য ম.ম জুয়েল, এবং সেবা গ্রহীতা রঞ্জিত সরকার ও আতিয়া রহমান।

সভাটি সঞ্চালনা করেন, টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার মো. ফজলে এলাহী।

সভায় নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি, সাংবাদিক প্রতিনিধি, সেবা গ্রহীতাদের আমন্ত্রণ জানানোর পাশাপাশি করোনাকালীন সময়ে জীবনের ঝুকি নিয়ে যারা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন সেই ডাক্তার সমাজের একটি বড় অংশকে আমন্ত্রণ জানানো হয়।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, সনাকের সদস্যবৃন্দ, স্বজন ও ইয়েস গ্রুপের সদস্যবৃন্দ ও টিআইবি কর্মকর্তাবৃন্দ।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর