কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে ২৪ ঘন্টায় পানিতে ডুবে ৮ জনের মৃত্যু


 কিশোরগঞ্জ নিউজ রিপোর্ট | ৩ আগস্ট ২০২০, সোমবার, ১১:২০ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জ জেলায় রোববার (২ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে সোমবার (৩ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত এই ২৪ ঘন্টায় পানিতে ডুবে মোট ৮ জনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

জেলার ইটনা, নিকলী, পাকুন্দিয়া ও মিঠামইন উপজেলায় পৃথক ঘটনায় এই ৮ জনের মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে ইটনা উপজেলায় সর্বোচ্চ ৪ জন, পাকুন্দিয়া উপজেলায় ২ জন এবং নিকলী ও মিঠামইনে একজন করে মারা যায়।

পানিতে ডুবে মারা যাওয়া ৮ জনের মধ্যে ৫ জনই শিশু। এছাড়া বাকি তিনজনের মধ্যে একজন নববধূ, একজন বৃদ্ধ এবং একজন এইচএসসি পরীক্ষার্থী রয়েছেন।

তাদের মধ্যে তিনজন একটি নৌকাডুবিতে এবং বাকি পাঁচজন পৃথক ঘটনায় পানিতে ডুবে মারা যায়।

রোববার (২ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পাকুন্দিয়া উপজেলার বুরুদিয়া ইউনিয়নের কন্দরপদী গ্রামে বৃষ্টির পানি জমে থাকা গর্তে পড়ে লামিম নামের পাঁচ ববছর বয়সী এক শিশু মারা যায়। সে কন্দরপদী গ্রামের প্রবাসী কাজল মিয়ার একমাত্র ছেলে।

একই দিন বিকালে ইটনা উপজেলার রায়টুটি এলাকায় রাস্তার পাশে ছবি তুলতে গিয়ে বর্ষার পানিতে ডুবে মো. মিজানুর রহমান নামে এক এইচএসসি পরীক্ষার্থীর মৃত্যু হয়।

ওই দিনই অর্থাৎ রোববার (২ আগস্ট) বিকালে ইটনা উপজেলার চৌগাঙ্গা ইউনিয়নের মাগুরী এলাকার ধনু নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় তিনজন নিখোঁজ হয়।

পরদিন সোমবার (৩ আগস্ট) সকালে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহতরা হচ্ছে, উপজেলার চৌগাঙ্গা ইউনিয়নের মাওরা গ্রামের হাসান আলী (৭০), নিহত হাসান আলীর নাতবৌ নববধূ সুমাইয়া (১৮) ও নাতনী হীরামনি (৫)।

সোমবার (৩ আগস্ট) বেলা ১১টার দিকে নিকলী উপজেলার দামপাড়া ইউনিয়নের মজলিশপুর নরসুন্দা নদীতে চাঁদনী আক্তার নামে পাঁচ বছর বয়সী এক শিশু পানিতে ডুবে মারা যায়। সে মজলিশপুর গ্রামের বাসিন্দা সাদ্দাম হোসেনের মেয়ে।

দুপুর ১২টার দিকে পাকুন্দিয়া উপজেলার চন্ডিপাশা ইউনিয়নের আবির হাজী বাড়ি এলাকায় বাড়ির পাশের ফিশারীর পানিতে খেলতে নেমে সাঁতার কাটা ও লাফালাফি করতে গিয়ে পানিতে ডুবে মারুফ নামে ৭ বছর বয়সী এক শিশু মারা যায়। সে আবির হাজী বাড়ির পশ্চিমের বাড়ির মো. ফারুক মিয়ার ছেলে।

দুপুরেই মিঠামইন উপজেলার গোপদিঘী ইউনিয়নের শরীফপুর মডেল পাড়া গ্রামের নানাবাড়িতে মায়ের সাথে বেড়াতে গিয়ে ঘাটে বাঁধা নৌকা থেকে পা পিছলে পড়ে বর্ষার পানিতে ডুবে হাসান নামে ৯ বছর বয়সী এক শিশু মারা যায়। সে একই ইউনিয়নের গোপদিঘী তেলিহাটি গ্রামের নান্নু মিয়ার ছেলে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর