কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে নতুন ১৮ জনের করোনা, মোট শনাক্ত ২০৮১, সুস্থ ১৮০২, শনাক্ত ও সুস্থতায় শীর্ষে সদর


 কিশোরগঞ্জ নিউজ রিপোর্ট | ৫ আগস্ট ২০২০, বুধবার, ১২:৪২ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জে করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ নতুন শনাক্তের পাশাপাশি বাড়ছে সুস্থতার সংখ্যাও। সর্বশেষ মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) দিবাগত রাতে প্রকাশিত রিপোর্টে জেলায় নতুন করে ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। একই সঙ্গে নতুন করে ৮ জন সুস্থ হয়েছেন। এছাড়া করোনার ভয়াবহ ছোবলে ঝরে গেছে মূল্যবান ৩৮টি প্রাণ।

নতুন শনাক্ত, মোট শনাক্ত, নতুন সুস্থ ও মোট আক্রান্তের ক্ষেত্রে জেলায় শীর্ষে রয়েছে সদর উপজেলা। অন্যদিকে মোট সুস্থ ও মোট মৃত্যুর ক্ষেত্রে জেলায় শীর্ষে রয়েছে ভৈরব উপজেলা।

মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) দিবাগত রাতে মোট ৮০ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত এই নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে জেলায় নতুন করে মোট ১৮ জনের করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। অন্যদিকে ৬২ জনের নেগেটিভ এসেছে।

নতুন ১৮ জনের করোনা পজেটিভ আসায় জেলার ১৩টি উপজেলায় মোট ২০৮১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মোট ১৮০২ জন সুস্থ হয়েছেন।

সুস্থ ও মৃত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২৪১ জন।

নতুন করোনা শনাক্ত হওয়া ১৮ জনের মধ্যে ১১ জন কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায়। এছাড়া বাকি ৭ জনের মধ্যে তাড়াইল উপজেলায় ৪ জন, ভৈরব উপজেলায় ১ জন এবং বাজিতপুর উপজেলায় ২ জন রয়েছেন।

নতুন সুস্থ হওয়া ৮ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার সর্বোচ্চ ৫ জন রয়েছেন। এছাড়া বাকি ৩ জনের মধ্যে পাকুন্দিয়া উপজেলার ১ জন, কটিয়াদী উপজেলার ১ জন ও ভৈরব উপজেলার ১ জন রয়েছেন।

সুস্থ ও মৃত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ২৪১ জনের মধ্যে ২৬ জন হাসপাতালে এবং বাকি ২১৫ জন নিজ নিজ বাড়িতে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন।

হাসপাতালে থাকা ২৬ জনের মধ্যে দুইজন শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন।

এছাড়া অন্য জেলায় শনাক্তকৃত ১ জন করোনা পজেটিভ এবং ৮ জন সাসপেক্টটেড/নেগেটিভ বিভিন্ন হাসপাতালে আইসোলেশনে রয়েছেন।

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রি-আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তিকৃত জরুরী রোগীসহ সোমবার (৩ আগস্ট) ও মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) সংগৃহীত ৮০ জনের নমুনা কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়।

ল্যাবটিতে এই ৮০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

সোমবার (৩ আগস্ট) পর্যন্ত কিশোরগঞ্জ জেলায় করোনা শনাক্তের সংখ্যা ছিল ২০৬৩ জন। মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) নতুন করে আরো ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হওয়ায় বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০৮১ জনে।

এদিকে জেলায় করোনাভাইরাস থেকে নতুন করে ৮ জন সুস্থ হয়েছেন। এর আগে জেলায় সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ছিল ১৭৯৪ জন। ফলে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮০২ জন।

মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) দিবাগত রাত ১২টার দিকে কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান কিশোরগঞ্জ নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান কিশোরগঞ্জ নিউজকে জানান, প্রকাশিত ৮০ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে নতুন করে ১৮ জনের পজেটিভ ও ৬২ জনের নেগেটিভ এসেছে।

ফলে মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) পর্যন্ত পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী কিশোরগঞ্জ জেলায় মোট ২০৮১ জনের করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছে।

উপজেলাওয়ারী হিসাবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৬২৩ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ৫০ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ১২১ জন, তাড়াইল উপজেলায় ৯০ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ১১২ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ১১৮ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ১০৮ জন, ভৈরব উপজেলায় ৫৬৬ জন, নিকলী উপজেলায় ৪৪ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ১৬৬ জন, ইটনা উপজেলায় ৩২ জন, মিঠামইন উপজেলায় ৩৮ জন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় ১৩ জন এ পর্যন্ত করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়েছেন।

তাদের মধ্যে ৩৮ জন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন। উপজেলাওয়ারী হিসেবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৯ জন, হোসেনপুর উপজেলার ১ জন, করিমগঞ্জ উপজেলার ২ জন, তাড়াইল উপজেলার ১ জন, কটিয়াদী উপজেলার ১ জন, কুলিয়ারচর উপজেলার ৩ জন, ভৈরব উপজেলার ১৪ জন, নিকলী উপজেলার ৩ জন, বাজিতপুর উপজেলার ২ জন, ইটনা উপজেলার ১ জন ও মিঠামইন উপজেলার ১ জন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন।

সুস্থ ও মৃত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২৪১ জন। উপজেলাওয়ারী হিসাবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ১৩১ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ৯ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ৬ জন, তাড়াইল উপজেলায় ৮ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ১৪ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ১০ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ১ জন, ভৈরব উপজেলায় ৪১ জন, নিকলী উপজেলায় ১২ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ৭ জন, ইটনা উপজেলায় ১ জন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় ১ জন বর্তমানে করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি রয়েছেন।

জেলার ১৩ টি উপজেলার মধ্যে একমাত্র মিঠামইন উপজেলায় বর্তমানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কোন রোগী নেই।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর