কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে শনাক্তের চেয়ে সুস্থ বেশি, সন্দেহজনক একজনের মৃত্যু, চার উপজেলায় আক্রান্ত নেই


 কিশোরগঞ্জ নিউজ রিপোর্ট | ১০ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ৯:৫১ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জে সর্বশেষ শনিবার (১০ অক্টোবর) দিবাগত রাতে প্রকাশিত রিপোর্টে গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় নতুন করে ১ জনের করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। এতে করে জেলার ১৩টি উপজেলায় মোট ২৮৬৪ জনের করোনা শনাক্ত হলো।

অন্যদিকে নতুন করে জেলায় মোট ৭ জন করোনামুক্ত হয়ে সুস্থ হয়েছেন। ফলে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৭৩৪। আগের ছয় দিনের পর এই ২৪ ঘন্টায়ও অর্থাৎ গত এক সপ্তাহে জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে কোন মৃত্যু নেই। ফলে জেলায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৫০ অপরিবর্তিত রয়েছে।

তবে সন্দেহজনক কোভিড-১৯ একজনের মৃত্যু হয়েছে। কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা গেছেন।

সর্বশেষ প্রকাশিত এই রিপোর্টে বলা হয়েছে, শনিবার (১০ অক্টোবর) কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে শুক্রবার (৯ অক্টোবর) সংগৃহীত মোট ১৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

এতে ১ জনের কোভিড-১৯ পজেটিভ ও ১২ জনের নেগেটিভ রিপোর্ট পাওয়া গেছে।

এছাড়া শুক্রবার (৯ অক্টোবর) বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে ৬৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে কারো কোভিড-১৯ পজেটিভ আসেনি। ৬৯ জনের সবার নেগেটিভ রিপোর্ট পাওয়া গেছে।

অর্থাৎ মোট ৮২ জনের নমুনা পরীক্ষায় মোট একজনের কোভিড-১৯ পজেটিভ রিপোর্ট পাওয়া গেছে।

নতুন করোনা শনাক্ত হওয়া একমাত্র ব্যক্তি জেলার কটিয়াদী উপজেলায় শনাক্ত হয়েছেন।

এদিকে নতুন সুস্থ হওয়া ৭ জনের মধ্যে হোসেনপুর উপজেলার ১ জন, তাড়াইল উপজেলার ১ জন, কটিয়াদী উপজেলার ১ জন, ভৈরব উপজেলার ২ জন, বাজিতপুর উপজেলার ১ জন ও ইটনা উপজেলার ১ জন রয়েছেন।

এই ২৪ ঘন্টায় জেলার করোনা ডেডিকেটেড কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নতুন করে ২ জন ভর্তি হয়েছেন। এই সময়ে ২ জন ছাড়পত্র পেয়েছেন।

বর্তমানে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কোভিড-১৯ আক্রান্ত ও সন্দেহজনক মোট ২৩ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৫ জন আইসিইউ’তে ভর্তি রয়েছেন।

শনিবার (১০ অক্টোবর) নতুন ১ জনের করোনা পজেটিভ আসায় জেলার ১৩টি উপজেলায় মোট ২৮৬৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মোট ২৭৩৪ জন সুস্থ হয়েছেন। এছাড়া করোনার ছোবলে এই সময়ে ঝরে গেছে ৫০টি মূল্যবাণ প্রাণ।

সুস্থ ও মৃত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ জন। যা গতদিনের চেয়ে ৬ জন কম। তাদের মধ্যে ১০ জন হাসপাতালে এবং বাকি ৭০ জন নিজ নিজ বাড়িতে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন।

এছাড়া ১৩ জন সাসপেক্টটেড/নেগেটিভ বিভিন্ন হাসপাতালে আইসোলেশনে রয়েছেন।

শনিবার (১০ অক্টোবর) দিবাগত রাত ৯টার দিকে কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান কিশোরগঞ্জ নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান কিশোরগঞ্জ নিউজকে জানান, প্রকাশিত ৮২ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে নতুন করে ১ জনের পজেটিভ ও ৮১ জনের নেগেটিভ এসেছে।

ফলে শনিবার (১০ অক্টোবর) পর্যন্ত পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী কিশোরগঞ্জ জেলায় মোট ২৮৬৪ জনের করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছে।

জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে মোট সংক্রমণ, মৃত্যু ও সুস্থ এসব সূচকে জেলায় শীর্ষে রয়েছে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা।

সর্বমোট ১০০১ জন শনাক্ত, সর্বমোট ৯৬৫ জন সুস্থ ও সর্বমোট ১৬ জনের মৃত্যু নিয়ে এই তিন সূচকেই জেলায় শীর্ষে রয়েছে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা।

এছাড়া সর্বমোট ২১ জন বর্তমানে আক্রান্ত নিয়ে জেলায় শীর্ষে রয়েছে কটিয়াদী উপজেলা।

উপজেলাওয়ারী হিসাবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ১০০১ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ৭৫ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ১৪৩ জন, তাড়াইল উপজেলায় ১১২ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ১৫৯ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ১৯৭ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ১৩০ জন, ভৈরব উপজেলায় ৬৪৯ জন, নিকলী উপজেলায় ৫১ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ২৪৯ জন, ইটনা উপজেলায় ৩৪ জন, মিঠামইন উপজেলায় ৪৩ জন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় ২১ জন এ পর্যন্ত করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়েছেন।

তাদের মধ্যে ৫০ জন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন। উপজেলাওয়ারী হিসেবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ১৬ জন, হোসেনপুর উপজেলার ২ জন, করিমগঞ্জ উপজেলার ২ জন, তাড়াইল উপজেলার ১ জন, পাকুন্দিয়া উপজেলায় ১ জন, কটিয়াদী উপজেলার ২ জন, কুলিয়ারচর উপজেলার ৩ জন, ভৈরব উপজেলার ১৫ জন, নিকলী উপজেলার ৩ জন, বাজিতপুর উপজেলার ৩ জন, ইটনা উপজেলার ১ জন ও মিঠামইন উপজেলার ১ জন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন।

সুস্থ ও মৃত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ জন। উপজেলাওয়ারী হিসাবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ২০ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ৫ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ১ জন, তাড়াইল উপজেলায় ৩ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ৫ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ২১ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ৪ জন, ভৈরব উপজেলায় ১৩ জন এবং বাজিতপুর উপজেলায় ৮ জন বর্তমানে করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি রয়েছেন।

জেলার ইটনা, মিঠামইন, অষ্টগ্রাম ও নিকলী এই চার উপজেলায় বর্তমানে করোনা আক্রান্ত কোন রোগী নেই।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর