কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কটিয়াদীতে ২০ তরুণের মরণোত্তর চক্ষুদান করার প্রত্যয়


 মো. রফিকুল হায়দার টিটু, কটিয়াদী | ২ নভেম্বর ২০২০, সোমবার, ৭:৪৬ | কটিয়াদী 


'আমার রক্ত শত ধমনীতে আনাবো নতুন প্রাণ, অন্ধ আঁখিতে রশ্মি জ্বালাতে করবো দৃষ্টিদান' স্লোগানে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে নানা কর্মসূচির মাধ্যমে জাতীয় স্বেচ্ছায় রক্তদান ও মরণোত্তর চক্ষুদান দিবস পালিত হয়েছে।

সোমবার (২ নভেম্বর) স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন রক্তদান সমিতি'র উদ্যোগে এ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সন্ধানী'র অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মোহাম্মদ মুশতাকুর রহমান।

এতে সভাপতিত্ব করেন রক্তদান সমিতি'র উপদেষ্টা ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহাব আইন উদ্দিন।

সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও সমন্বয়ক বদরুল আলম নাঈমের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে ডা. আব্দুল মান্নান মহিলা কলেজের প্রভাষক আবৃত্তিকার শামসুজ্জামান সেলিম, প্রভাষক কবি দীপা বর্মন, সাংবাদিক সারোয়ার হোসেন শাহীন, চলচ্চিত্রকর্মী জিসান আজাদ, জাতীয় হিন্দু যুব মহাজোটের জেলা সভাপতি বিদ্যুত কুমার আচার্য্য শশী, ছাত্রনেতা হাসান তারেক বাপ্পী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এতে অন্যদের মধ্যে কবি আব্দুল্লাহ আল মামুন, শিক্ষক ইকবাল হোসেন, আমান উল্লাহ, হোমিও চিকিৎসক মাহবুবুর রহমান, হাসান মাহমুদ আতাউর, ছাত্রনেতা সঞ্জয় রায় তপু, শাকিল আহসান, ফুয়াদ হাসান আদর, সংস্কৃতিকর্মী সীমান্ত পোদ্দার, নবজিৎ সাহা, হাসিবুর রশিদ রাফি, নোভেল আহমেদ ইমন, মাসুদ রানা জয়, শরীফুজ্জামান, আরমান হোসেন শুভ, প্রশান্ত বিশ্বাস, শাহরিয়ার হোসেন রিপন, রাসেল আহমেদ, সজিব আহমেদ, মাহফুজ আহমেদ, জুয়েল, রাকিব, ফাহিম, সাকিন, সম্রাট, অমি, ফাহিম, তামিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা বলেন, স্বেচ্ছায় রক্তদান আন্দোলনকে বেগবান করতে সকলের সম্পৃক্ত হওয়া উচিৎ। বিশেষ করে তরুণদের এগিয়ে আসতে হবে। এছাড়া মরণোত্তর চক্ষুদান বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির আহ্বান জানান বক্তারা।

আলোচনা শেষে উপস্থিত শতাধিক তরুণ স্বেচ্ছায় রক্তদানে সেঞ্চুরী এবং ২০ জন তরুণ মরণোত্তর চক্ষুদান করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

উপজেলা পরিষদ চত্বরে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচির মাধ্যমে দুই শতাধিক ব্যক্তিকে রক্তের গ্রুপ জানিয়ে দেওয়া হয়। এর মধ্যে ৫০ জন ব্যক্তি স্বেচ্ছায় রক্তদানে আগ্রহ প্রকাশ করে সদস্যপদ গ্রহণ করেন।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সন্ধানী'র অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রীয় পরিষদের তৎকালীন সহ-সভাপতি ডা. মোহাম্মদ মুশতাকুর রহমান তাঁর স্মৃতিচারণে ১৯৭৮ সালের ২ নভেম্বর সন্ধানী কর্তৃক আয়োজিত স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি কিভাবে জাতীয় স্বেচ্ছায় রক্তদান ও মরণোত্তর চক্ষুদান দিবসে রূপান্তরিত হল তার প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর