kishoreganjnews.com:কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা

জায়গার দাম বাড়ায় বিক্রি করা জায়গা কেড়ে নেয়ার চেষ্টা



 স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ এপ্রিল ২০১৮, শুক্রবার, ৬:২৮ | বাজিতপুর 


বাজিতপুরে একটি পরিবার জায়গার দাম বাড়ায় তাদের বিক্রি করা জায়গা এখন কেড়ে নেয়ার জন্য হামলা ও ভাঙচুর চালাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আদালতে মামলা এবং থানায় ডায়রি হলেও হামলাকারীরা নিবৃত্ত হচ্ছে না বলে সংবাদ সম্মেলন করে জায়গার ক্রেতা হোমিও চিকিৎসক মো. শফিকুল ইসলাম অভিযোগ করেছেন। এছাড়া তাকে ক্রমাগত হত্যারও হুমকি দেয়া হচ্ছে।

শুক্রবার সকালে কিশোরগঞ্জ জেলা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে ডা. মো. শফিকুল ইসলাম (৪০) এসব অভিযোগ করেন।

তিনি জানান, বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর বাজারের কাছে মৃত সুরুজ আলীর ছেলে সাফি মিয়ার (৪৮) কাছ থেকে ২০১১ সালের ২৪শে আগস্ট পিরিজপুর মৌজায় ১৪৩৫ নং দাগে ৭ শতাংশ জায়গা ৩ লাখ ২০ হাজার টাকায় কাউলা দলিলমূলে কিনেছিলেন। এরপর জায়গার ওপর আধাপাকা ঘর তৈরি করে তিনি হোমিও দোকান চালিয়ে আসছিলেন। কিন্তু বর্তমানে জমির দাম অনেক বেড়ে যাওয়ায় জমি বিক্রেতা সাফি মিয়া বিক্রি করে দেয়া জায়গা দখল করার পাঁয়তারা শুরু করেন।

এ অবস্থায় ডা. শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে সাফি মিয়া ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৪৪ ধারায় মামলা দায়ের করেন। বাদীর পক্ষে আদেশ হলে সাফি মিয়া নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে এফিডেভিট করে ডা. শফিকুল ইসলামকে ৭ শতাংশ জায়গা গতবছরের ১৭ই মে বুঝিয়ে দেন। এরপর থেকে ওই জায়গার ওপর লোভ করেন সাফি মিয়ার বড়ভাই সিদ্দিক মিয়া (৬০)। তিনি ও তার ছেলে নূরু মিয়া (৩৫) অন্যান্য লোকজন নিয়ে গতবছরের ১৭ই নভেম্বর সকালে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ডা. শফিকুল ইসলামের স্থাপনা ভাঙচুর শুরু করেন। বাধা দিলে তারা ডা. শফিকুল ইসলামের প্রতি ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। ফলে শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ২৫শে নভেম্বর বাজিতপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেছেন। এরপর এখনো প্রতিপক্ষ ডা. শফিকুল ইসলামকে প্রাণনাশের হুমকি ও জায়গা দখলের পাঁয়তারা করে চলেছে। তিনি এর প্রতিকার ও সুবিচার দাবি করেন।

এদিকে জায়গার বিক্রেতা সাফি মিয়া জানান, পারিবারিক সম্পত্তি থেকে তার ভাগে ৫ শতাংশ জায়গা পড়েছে। দলিলে ২ শতাংশ বেশি লেখা হয়ে গেছে।

অন্যদিকে ডা. শফিকুল ইসলাম এই বক্তব্যকে সম্পূর্ণ বানোয়াট আখ্যা দিয়ে বলেন, সাফি মিয়ার ভাগে ৯ শতাংশ জায়গা আছে। আসলে জায়গার দাম এখন বেড়ে যাওয়ায় তিনি মিথ্যা অজুহাত দাঁড় করাচ্ছেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর



















সেগুনবাগিচা, গৌরাঙ্গবাজার, কিশোরগঞ্জ-২৩০০
মোবাইল:০ ১৮১৯ ৮৯১০৮৮
kishoreganjnews247@gmail.com
Web: www. kishoreganjnews.com
প্রধান সম্পাদক: আশরাফুল ইসলাম
সম্পাদক: সিম্মী আহাম্মেদ