কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে হত্যা মামলায় ফুদুর ডাকাতের তিন সহযোগীর যাবজ্জীবন


 স্টাফ রিপোর্টার | ১৫ এপ্রিল ২০১৮, রবিবার, ৮:০৫ | বিশেষ সংবাদ 


ক্রসফায়ারে নিহত শীর্ষ সন্ত্রাসী ফুদুর ডাকাতের তিন সহযোগী সেলিম মিয়া (২৬), আঙ্গুর মিয়া (৩৪) ও জমশেদ মিয়া (৪৫) কে একটি হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রোববার দুপুরে কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আব্দুর রহমান এ রায় দেন।

রায়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের পাশাপাশি প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে অতিরিক্ত আরো দুই বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। অপর আসামি জোছনা বেগমকে খালাস দেওয়া হয়। এছাড়া মামলার প্রধান আসামি ও মূল অভিযুক্ত ফুদুর আলী ওরফে রিপন (২৮) বিচার চলার সময়ে ২০১৬ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর ‘ক্রস ফায়ারে’ নিহত হন। আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করা হয়।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিতদের মধ্যে সেলিম মিয়া বাজিতপুর উপজেলার দড়িগাগটিয়া গ্রামের মঞ্জু মিয়ার ছেলে, আঙ্গুর মিয়া একই এলাকার আক্কাস মিয়ার ছেলে ও জমশেদ মিয়া একই এলাকার সিদ্দিক মিয়ার ছেলে।

২০১২ সালের ১৮ এপ্রিল আসামিরা কৃষক নাজনু মিয়াকে (৫০) হত্যা করে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, কৃষক নাজনু মিয়ার সঙ্গে একই এলাকার বাসিন্দা ওই আসামিদের জমি-জমাসহ বিভিন্ন বিষয়ে আগে থেকে বিরোধ ছিল। ২০১২ সালের ১৮ এপ্রিল আসামি ফুদুর আলী ওরফে রিপন মুঠোফোনে খবর দিয়ে নাজনু মিয়াকে ডেকে নিয়ে যায়। পরের দিন সকালে আসামি আঙ্গুর মিয়ার বাড়ির কাছে গলা কাটা অবস্থায় নাজনু মিয়ার লাশ পাওয়া যায়।

এ ঘটনায় ১৯ এপ্রিল নাজনু মিয়ার স্ত্রী আনোয়ারা খাতুন বাদী হয়ে পাঁচজনকে আসামি করে বাজিতপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। বিচার চলাকালে আসামি সেলিম ও জমশেদ দোষ স্বীকার করে বিচারকের কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মুর্শেদ জামান ২০১৪ সালের ২৫ জানুয়ারি পাঁচ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন।

রাষ্ট্রপক্ষে এপিপি অ্যাডভোকেট এ কে এম আমিনুল হক ভূঞা চুন্নু এবং আসামিপক্ষে অ্যাডভোকেট মো. আব্দুল কুদ্দুছ ও অ্যাডভোকেট ক্ষীতিশ দেবনাথ মামলাটি পরিচালনা করেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর