www.kishoreganjnews.com

বিশ্ব শিক্ষক দিবস ও কিছু কথা



[ এম.এ. বাতেন ফারুকী | ৫ অক্টোবর ২০১৭, বৃহস্পতিবার, ২:৪৪ | মত-দ্বিমত ]


৫ অক্টোবর। বিশ্ব শিক্ষক দিবস। জাতিসংঘের সহায়ক সংস্থা ইউনেস্কোর ১৯৯৪ সনের ২৬তম অধিবেশনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক মহাসচিব ফ্রেডারিক এম মেয়রের ঘোষণা অনুযায়ী ১৯৯৫ সনের ৫ অক্টোবর থেকে বিশ্ব শিক্ষক দিবস পালিত হচ্ছে। Education International সংস্থা কর্তৃক দিবসটির প্রাতিপাদ্য বিষয় নির্ধারিত হয়। দিবসটির এবারের প্রাতিপাদ্য বিষয় হলো, 'স্বাধীনভাবে পাঠদান, শিক্ষক হবেন ক্ষমতাবান।'

দিবসটি মূলত ইআই, ৪০১টি সংস্থা এবং বিশ্বের তাবত শিক্ষক সংগঠন কর্তৃক পালিত হয়। সরকারিভাবে যেহেতু পালিত হয় না সেহেতু এর তাৎপর্য থাকা সত্বেও দিবসটিরজাঁকজমকতা চোখে পড়েনা। আমরা সারা বছর যা-ই করি বা যেমনেই চলি না কেন বিভিন্ন দিবসে অন্তত ঐ দিবসের রংধরতে বা প্রকৃত অর্থেই দিববসানুরুপ হওয়ার চেষ্টা করি। তবুও তো একদিনের জন্য হলেও সংশ্লিষ্ট বিষয়টি তার যথাযথ মর্যাদা পায়। অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় বিশ্ব শিক্ষক দিবস সেটুকুও পায় না। অথচ বিশ্বের তথা বাংলাদেশের প্রায় সকল দিবস পালনে শিক্ষকরাই মাঠপর্যায়ে গুরু দায়িত্ব পালন করে থাকে। কষ্ট লাগে অভিভাবকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে। রাষ্ট্রিক ভাবে যদি কোনো বিষয়কে গুরুত্বারোপ না করা হয় তবে বিষয়টি সার্বজনীন হয়ে ওঠে না। তদুপরি বর্তমানে পাসের অপেক্ষমাণ শিক্ষা আইনটি এবছরে বিশ্ব শিক্ষক দিবসের প্রাতিপাদ্য বিষয়ের সাথে কতটুকু সাযোজ্য তা বিশ্লেষণের দাবি রাখে।

মনে পড়ে অনেক দিন আগের কথা, ছোট বেলায় রেডিওতে পার্শ্ববর্তী একটি দেশের সংবাদ প্রবাহ শুনতাম। অনুষ্ঠানটি আমার খুব প্রিয় ছিল কারন এতে ঐ দেশের সরকারের মতামত প্রতিফলিত হতো। ৫ অক্টোবর বিশ্ব শিক্ষক দিবসে সংবাদ প্রবাহে ঐ দেশের রাষ্ট্রপতির বরাতে যা বলা হয়েছিল তা আমার কিশোর মনে যে কতটুকু প্রভাব পড়েছিল আজকের এ স্মৃতিচারণ-ই তার প্রমাণ।

ভাবতে অবাক লাগে,আমাদের দেশে কি প্রচার মাধ্যমের অভাব আছে? না কি আমরা ভাল কিছু কম শুনি। আসলে যে যা-ই বলি না কেন সবকিছুর দায়িত্ব সরকারের উপরই বর্তায়। সরকারকেই এগিয়ে আসতে হবে। শিক্ষক দিবসটিকে রাষ্ট্রের কনসার্নে নিতে হবে তবেই দিবসটি সার্বজনীনতা পাবে।

আমাদের মনে রাখতে হবে, মানসম্মত শিক্ষার জন্য প্রয়োজন মানসম্মত শিক্ষক। আর মানসম্মত শিক্ষক নিশ্চিত করতে পারে একমাত্র রাষ্ট্র। কবে জানি সেই দু'টি লাইনের স্বার্থকতা ও যথার্থতা ফিরে পাবে এবং আবারও বলতে পারব, ‘আজ হতে চির উন্নত হল শিক্ষাগুরুর শির/সত্যিই তুমি মহান উদার বাদশাহ আলমগীর।’

এম.এ. বাতেন ফারুকী, প্রধান শিক্ষক, সৈয়দ হাবিবুল হক উচ্চ বিদ্যালয়, বৌলাই, কিশোরগঞ্জ সদর।



[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]



প্রধান সম্পাদক: আশরাফুল ইসলাম

সম্পাদক: সিম্মী আহাম্মেদ

সেগুনবাগিচা, গৌরাঙ্গবাজার

কিশোরগঞ্জ-২৩০০

মোবাইল: +৮৮০ ১৮১৯ ৮৯১০৮৮

ইমেইল: kishoreganjnews247@gmail.com

©All rights reserve www.kishoreganjnews.com