কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ইটনায় পটকা মাছ খেয়ে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু, তিন সন্তান হাসপাতালে


 কিশোরগঞ্জ নিউজ রিপোর্ট | ৬ জানুয়ারি ২০২১, বুধবার, ১০:৫৪ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জের ইটনায় পটকা মাছ খেয়ে বিষক্রিয়ায় স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া তাদের তিন কন্যাসন্তানকে গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পটকা মাছ খেয়ে মারা যাওয়া দম্পতি হচ্ছে, হেমেন্দ্র মালাকার (৫২) ও সঞ্চিতা মালাকার (৪৫)।

তাদের মধ্যে হেমেন্দ্র মালাকার উপজেলার মৃগা পূর্বগ্রামের মৃত হরেন্দ্র মালাকারের ছেলে এবং সঞ্চিতা মালাকার হেমেন্দ্র মালাকারের স্ত্রী।

এছাড়া হেমেন্দ্র-সঞ্চিতা দম্পতির তিন মেয়ে সীমা মালাকার (১৮), তমা মালাকার (১৩) ও প্রেমা মালাকার (৫) বর্তমানে কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, মৃগা পূর্বপাড়ার হেমেন্দ্র মালাকারের পরিবারের সকল সদস্য মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) রাতে পটকা মাছ দিয়ে খাবার খায়।

রাতে ঘুমোতে যাওয়ার পর তারা বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়। এর মধ্যে হেমেন্দ্র মালাকার রাত ২টার দিকে মারা যায়।

বুধবার (৬ জানুয়ারি) ভোরে হেমেন্দ্র মালাকারের স্ত্রী সঞ্চিতা মালাকার এবং তিন মেয়ে সীমা, তমা ও প্রেমাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ইটনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার পর তাদের কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সকাল সোয়া ১০টার দিকে তাদের ভর্তি করার পর সন্ধ্যা সোয়া ৫টার দিকে সঞ্চিতা মালাকারের মৃত্যু হয়।

কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান কিশোরগঞ্জ নিউজকে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

অন্যদিকে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন হেমেন্দ্র-সঞ্চিতা দম্পতির তিন মেয়ের অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মুহাম্মদ আবেদুর রহমান ভূঞা জিমি।

প্রসঙ্গত, এই ঘটনার মাত্র এক সপ্তাহ আগে গত ২৮ ডিসেম্বর পটকা মাছ খেয়ে বিষক্রিয়ায় মৃগা ইউনিয়নেরই লাইমপাশা পূর্বগ্রামের রোহেনা (২২) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর