কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংগঠক হাজী মো. আশরাফউদ্দিন মেনু মোল্লার ইন্তেকাল


 স্টাফ রিপোর্টার | ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৭:২৬ | কিশোরগঞ্জ সদর 


কিশোরগঞ্জের বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংগঠক হাজী মো. আশরাফউদ্দিন মেনু মোল্লা বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

সকাল সাড়ে ৮টায় কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তাকে সেখানে ভর্তি করা হয়েছিল।

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, সাত পুত্র, আত্মীয়স্বজন ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তার দুই পুত্র ইউরোপে পড়াশোনা শেষে চাকুরী করছেন।

৭০ ও ৮০ দশকের মাঝামাঝি সময়ে কিশোরগঞ্জে জাতীয় খেলা হাডুডু’র সংগঠক ও পদক প্রাপ্ত তুখোড় খেলোয়ার হাজী মো. আশরাফউদ্দিন মেনু মোল্লা কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার রশিদাবাদ ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী মোল্লা বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন।

হাজী মো. আশরাফউদ্দিন মেনু মোল্লার পিতা মরহুম হাজী দীন মোহাম্মদ মোল্লা। তার চাচা অত্যন্ত জনপ্রিয় আওয়ামীলীগ নেতা মরহুম আব্দুর রাশিদ মোল্লা পরপর ৫ বার রশিদাবাদ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ছিলেন। তার বড় ভাই ইউপি মেম্বার আব্দুল খালেক মোল্লা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা।

স্বাধীনতা উত্তর সময়ে কিশোরগঞ্জ জেলা ষ্টেডিয়াম থেকে শুরু করে নিভৃত পল্লীতে সুঠাম দেহের অধিকারী মেনু- খালেক ভ্রাতৃদ্বয় জুটি ক্রীড়াঙ্গনের ধ্রুবতারা হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

তখনো ফুটবল ছাড়া ক্রিকেট সহ অন্যান্য বিদেশী খেলাগুলো সাধারণ জনগণের মাঝে পরিচিত ও জনপ্রিয় হয়ে উঠেনি।

কোন উপকরণ ছাড়াই সমতলভূমিতে চতুষ্কোণ সীমানা অংকন করে মাঝ বরাবর রেখা টেনে দুপক্ষের খেলোয়াড় গণ সারা গায়ে সরিষার তৈল মেখে হা-ডু-ডু-ডু উচ্চারণে দম নিয়ে নির্ধারিত সীমান্তে বীরত্বের পাশাপাশি তাদের দেহ-সৌষ্ঠব প্রদর্শন খেলাটি গ্রাম বাংলার ক্রীড়ামোদি মানুষের কাছে সর্বাধিক জনপ্রিয় ও নিজস্ব খেলা বলেই এটি আমাদের জাতীয় খেলার সম্মান পেয়েছে।

ক্রীড়া ক্ষেত্রের বাইরে হাজী মো. আশরাফউদ্দিন মেনু মোল্লা একজন সফল ব্যাবসায়ী ও পরোপকারী সমাজসেবক হিসেবে সমাজে সমাদৃত ছিলেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর