কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা

সরকারি খরচে প্রশিক্ষণের পর মিলছে চাকরি


 বিশেষ প্রতিনিধি | ৩০ এপ্রিল ২০১৮, সোমবার, ৩:৫৯ | জবস জোন 


সরকারি খরচে প্রশিক্ষণ শেষে মিলছে চাকরি। প্রশিক্ষণ ও কর্মসংস্থানের এই সুযোগ করে দিচ্ছে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের ‘স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম (সেইপ)’। দারিদ্র বিমোচন ও টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ২০১৪ সালের জুলাই মাসে শুরু হওয়া এই প্রকল্পের মাধ্যমে ২০২০ সালের মধ্যে দেশে পাঁচ লক্ষ দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলা হবে। সম্পূর্ণ সরকারি খরচে এই প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে এবং প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে ৭০ শতাংশের চাকরির সুযোগ রাখা হয়েছে।

সোমবার কিশোরগঞ্জে অনুষ্ঠিত ‘স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগাম (সেইপ)’ এর দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ বিষয়ে সামাজিক প্রচারাভিযানের জেলা পর্যায়ের অবহিতকরণ কর্মশালায় এসব তথ্য জানানো হয়। জেলা কালেক্টরেট সম্মেলন কক্ষে এই কর্মশালার আয়োজন করা হয়। সকালে কর্মশালার উদ্বোধন করেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক জহিরুল ইসলাম।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মো. আক্তার জামীলের সভাপতিত্বে কর্মশালার কর্মসূচী নিয়ে ধারণা তুলে ধরেন কর্মসূচীর কন্টেন্ট ডেভেলপমেন্ট স্পেশালিস্ট ড. অলিউর রহমান।

কর্মশালায় অন্যদের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. শরীফুল ইসলাম, সিনিয়র জেলা তথ্য কর্মকর্তা সামছুল হক, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা  যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক রুকন উদ্দিন ভূঁইয়া, কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ হারুন আল মামুন, জেলা পরিষরদের সদস্য ফৌজিয়া জলিল ন্যান্সি, বৌলাই ইউপি চেয়ারম্যান আওলাদ হোসেন, জেলা ব্র্যাক কর্মকর্তা বজলুর রশিদ, সেইপ এর সোশ্যাল মার্কেটিং অফিসার মো. খোরশেদ আলম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

কর্মসূচীর কন্টেন্ট ডেভেলপমেন্ট স্পেশালিস্ট ড. অলিউর রহমান জানান, সরকার ২০১৪ সাল থেকে এই কর্মসূচী চালু করেছে। দেশের কর্মক্ষম জনগোষ্ঠী ৬৬ ভাগ। এদের মধ্যে ৬০ ভাগ জনগোষ্ঠীকে কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ৩৭টি ট্রেডে সরকারি খরচে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে ৩০ ভাগ নারী এবং ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী, চর ও হাওরসহ দুর্গম এলাকার অধিবাসী, বিলুপ্ত ছিটমহলের বাসিন্দা ও প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীর কমপক্ষে এক লাখ মানুষকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রশিক্ষণ ও কর্মসংস্থানে সহায়তা করা হবে। অদক্ষ শ্রমশক্তি বিদেশে গিয়ে নি¤œ বেতনে কাজ করেন। প্রশিক্ষণ নিয়ে গেলে তারা ভাল বেতন পাবেন। সরকারের এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচী উপমহাদেশের মধ্যে সবচেয়ে বড় কর্মসূচী বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এই কর্মসূচীর আওতায় তৈরি পোশাক ও টেক্সটাইল, নির্মাণ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং, জাহাজ নির্মাণ, চামড়া ও পাদুকা, এগ্রো ফুড প্রসেসিং, নার্সিং এন্ড হেলথ টেকনোলজিকে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে। প্রশিক্ষণশেষে চাকরি পেতে সরকারের পক্ষ থেকে সহায়তা করা হচ্ছে।

‘স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম (সেইপ)’ এর আওতায় কিশোরগঞ্জ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ওভেন মেশিন ও নিট মেশিন চালনা বিষয়ক প্রশিক্ষণ নিয়মিত অনুষ্ঠিত হওয়া ছাড়াও খুব শীঘ্রই মোটর ড্রাইভিং এবং বেসিক রক্ষণাবেক্ষণ কোর্সের প্রশিক্ষণ শুরু হবে বলে কর্মশালায় জানানো হয়।



[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর















সেগুনবাগিচা, গৌরাঙ্গবাজার, কিশোরগঞ্জ-২৩০০
মোবাইল:০ ১৮১৯ ৮৯১০৮৮, ০১৮৪১ ৮১৫৫০০
kishoreganjnews247@gmails.com
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি: সাইফুল হক মোল্লা দুলু
প্রধান সম্পাদক: আশরাফুল ইসলাম
সম্পাদক: সিম্মী আহাম্মেদ