কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পাকুন্দিয়ার ৯ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে লড়তে চান ৬৫ জন



 কিশোরগঞ্জ নিউজ রিপোর্ট | ৪ জানুয়ারি ২০২২, মঙ্গলবার, ৮:০২ | পাকুন্দিয়া  



আগামী ৩১ জানুয়ারি কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইউনিয়নগুলো হচ্ছে, জাঙ্গালিয়া, চরফরাদী, এগারসিন্দুর, বুরুুদিয়া, পাটুয়াভাঙ্গা, নারান্দী, হোসেন্দী, চন্ডিপাশা ও সুখিয়া।

তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ সময় ছিল গত সোমবার (৩ জানুয়ারি)। ৯টি ইউনিয়নের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মোট ৬৫ জন, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে মোট ১১৭ জন এবং সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে মোট ৩৬৩ জনসহ মোট ৫৪৫ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এসব মনোনয়ন পত্র বাছাই হবে বৃহস্পতিবার (৬ জানুযারি)। আপিল দায়ের ৭ থেকে ৯ জানুয়ারি ও আপিল নিষ্পত্তি ১০ থেকে ১২ জানুয়ারি।

এছাড়া প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৩ জানুয়ারি ও প্রতীক বরাদ্দ ১৪ জানুয়ারি।

চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পত্র দাখিলকারীদের মধ্যে ৯টি ইউনিয়নেই আওয়ামী লীগ প্রার্থী, ৭টি ইউনিয়নে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী, ৩টি ইউনিয়নে জাতীয় পার্টির প্রার্থী এবং ১টি ইউনিয়নে জাসদ প্রার্থী রয়েছেন।

বাকি ৪৫ জন প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীও রয়েছেন।

জাঙ্গালিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ১১ জন, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে ১৩ জন ও সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৪৭ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান সরকার শামীম আহম্মদ, জাতীয় পার্টির প্রার্থী হাজী আ. আওয়াল ভূঁইয়া, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী মো. রফিকুল ইসলাম এবং আট স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহীন আলম জনী, বুলবুল আহমেদ, মুহাম্মদ আব্দুছ ছাত্তার, একেএম ফজলুল হক বাচ্চু, মো. বিল্লাল হোসেন, মো. জামাল হোসেন জজ মিয়া, মোহাম্মদ আব্দুল হাকিম ও ফরহাদ আহমেদ।

চরফরাদী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে ১০ জন ও সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৩৭ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবদুল মান্নান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী মো. মজিবুর রহমান এবং তিন স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. রফিকুল ইসলাম, মো. সোহরাব উদ্দিন ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. কামাল উদ্দীন।

এগারসিন্দুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে ১৬ জন ও সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৪৮ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী নূরু জ্জামান মিয়া বাবু, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী মো. রায়হান মিয়া এবং তিন স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. বজলুল করিম বাবুল, মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন ও মো. আসাদুজ্জামান।

বুরুদিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৭ জন, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে ১০ জন ও সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৪০ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী মাহাবুবুর রহমান, জাতীয় পার্টির প্রার্থী মতিউর রহমান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী জয়নাল আবেদিন এবং চার স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আসাদুজ্জামান, বর্তমান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নাজমুল হুদা, মো. রজব আলী ও মো. মোস্তফা কামাল আকন্দ।

পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৮ জন, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে ১৮ জন ও সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৪৩ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. সাহাব উদ্দিন এবং সাত স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আ. মান্নান মনাক, আসাদুজ্জামান আসাদ, এমদাদুল হক জুটন, মো. জালাল উদ্দিন বাচ্চু, মো. মাসুম মিয়া, মো. আরফান উদ্দিন ও হুমায়ুন কবির।

নারান্দী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ১০ জন, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে ১২ জন ও সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৩৭ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শফিকুল ইসলাম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী মো. আরিফ হোসেন ভূঞা, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জাসদ প্রার্থী মো. আজিজুল রহমান তপন এবং সাত স্বতন্ত্র প্রার্থী এইচ এ জাওয়াদ, মো. এনামুল হক সাজু, মো. মুছলেহ উদ্দিন, মো. মোতাহার হোসেন, রুহুল আমিন, মজিবুর রহমান ও মোহাম্মদ ফজলুল হক।

হোসেন্দী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৬ জন, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে ১০ জন ও সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ২৮ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী মুহাম্মদ হাদিউল ইসলাম এবং পাঁচ স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মানসুরুল হক, মো. মহিববুল্লাহ আল মাহদী, বর্তমান চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান আকন্দ, মোহাম্মদ নাজমুল কবির ও মো. আবদুল হাই।

চন্ডিপাশা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৭ জন, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে ১৬ জন ও সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৪২ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. মঈন উদ্দিন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী মো. নূরুল ইসলাম এবং পাঁচ স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মতিউর রহমান, মো. জিল্লুর রহমান, মো. বোরহান আহমদ আপন, মো. নাজমুল হুদা ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শামছু উদ্দিন।

সুখিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৬ জন, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে ১২ জন ও সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৪১ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হামিদ টিটু, জাতীয় পার্টির প্রার্থী মো. নূরুল ইসলাম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী মো. রফিকুল ইসলাম এবং তিন স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল, আজিজুল হক ও নাজমুল হক বাচ্চু।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর